দলে না থাকাটা সত্যিই যন্ত্রণাদায়ক : জো হার্ট

0 319

ইংল্যান্ডের সবচেয়ে বেশি অভিজ্ঞ গোলরক্ষক জো হার্ট। তাকে বাদ দিয়ে ইংল্যান্ড জাতীয় দল কল্পনাই যেন করা যায় না। অথচ, ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপেই জায়গা হয়নি একসময়ের দলের নাম্বার ওয়ান গোলরক্ষক জো হার্টের। ৩১ বছর বয়সী হার্ট জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন ৭৫টি ম্যাচ। ছিলেন গত ৩টি বড় টুর্নামেন্টের গোলবারের অতন্দ্র প্রহরি। সেই ৩১ বয়সি হার্টকে এবার দলেই রাখেননি কোচ গ্যারেথ সাউথগেট।

বিশ্বকাপের দল থেকে বাদ পড়াটা কোনোভাবেই যেন মেনে নিতে পারছেন না ম্যানসিটির এই গোলরক্ষক। তিনি বলেন, ‘মিথ্যা বলতে চাচ্ছি না, সত্যিই এটা আমাকে পোড়াচ্ছে। আমি জানি, দলকে কি দিয়েছি; কিন্তু এটা (দল থেকে বাদ পড়া) মেনে নিতেই হবে।’

গোলরক্ষক হিসেবে জ্যাক বাটল্যান্ড, জর্ডান পিকফোর্ড আর নিক পোপ এবার ইংল্যান্ড দলের হয়ে ২৩ সদস্যের বিশ্বকাপ দলে ডাক পেয়েছেন। তাতেই কপাল পুড়েছে অভিজ্ঞ জো হার্ট-এর।

সাম্প্রতিক সময়ে ক্লাব পর্যায়ে খুব খারাপ সময় যাচ্ছে হার্ট-এর। বাজে পারফর্ম্যান্সের কারণে ম্যানসিটি হার্টকে লোনে ইটালিয়ান ক্লাব তোরিনোতে পাঠায়। সেখান থেকে আবার প্রিমিয়ার লিগের দল ওয়েস্ট হ্যামে যোগ দেন হার্ট। গেল মৌসুমে ১৯ ম্যাচে ৩৯ গোল হজম করেছেন হার্ট। গোলবারের নিচে এরকম নিষ্প্রভ থাকাই মূলতঃ তার বাদ পড়ার প্রধান কারণ।

নিজের বাদ পড়া নিয়ে হার্ট বলেন, ‘দুই বছর অনেক খারাপ সময় কাটিয়ে এ রকম খবর সত্যিই অনেক হতাশার। গর্ব করতে পারি, আমি দলের জন্য যা করেছি, আর যতটুকু করতে পেরেছি বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে। বাকি খেলোয়াড়েরাও জানে, যদিও আমি দলে না থাকি তবুও আমি আমার দেশের জার্সি পরে থাকবো একজন সমর্থক হিসেবে।’

গত বৃহস্পতিবার গ্যারেথ সাউথগেট দল ঘোষণার সময় বলেন- ‘এটা সত্যি অনেক কঠিন সিদ্ধান্ত ছিল, হার্টকে দলে না নেওয়া। তবে এটাতেই ওর (হার্ট) ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যাওয়ার কথা নয়।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.