তিতলির আঘাতে ভারতে ২ জনের মৃত্যু

0 22

ডেস্ক : ঘূর্ণিঝড় তিতলির আঘাতে ভারতের অন্ধ্র প্রদেশে দুইজন মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার সকালে অন্ধ্র প্রদেশের শ্রীককুলাম জেলার পলাসায় ঘূর্ণিঝড়ে মারা যান তারা। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের পরিচয় জানা যায়নি।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ওড়িশার গোপালপুর এবং কলিঙ্গপট্টনমে তিতলি আঘাত হানে। ঝড়ের সঙ্গে সঙ্গে প্রবল জলোচ্ছ্বাস ও বৃষ্টিপাত হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় প্রবণ পাঁচ জেলায় রেড এলার্ট জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে লণ্ডভণ্ড হয়েছে উড়িষ্যার গোপালপুর। ধসে পড়েছে অসংখ্য বাড়িঘর। গাছ উপড়ে পড়ে সড়কে যান চলাচল ব্যাহত হয়েছে। বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ছে। ট্রেন ও বিমান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরের উপরে ঘোরাফেরা করা গভীর নিম্নচাপটি শক্তি বাড়িয়ে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। এদিকে জরুরি বৈঠক করেছেন ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক। গঞ্জাম, পুরী, খুরদা, কেন্দ্রাপড়া ও জগৎসিংহপুর থেকে বাসিন্দাদের নিরাপদ স্থানে সরে যেতে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

জানা গেছে, ঝড়ের গতিবেগ ছিল প্রাথমিকভাবে ঘণ্টায় ১৪০ থেকে ১৫০ কিলোমিটার। ওড়িশার গোপালপুরে আছড়ে পড়ার সময় ঝড়ের গতি ছিল প্রতি ঘণ্টায় ১০২ কিলোমিটার।

আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, আগামী ১৮ ঘণ্টায় আরো শক্তি বাড়াবে ওই ঘূর্ণিঝড়। কাল ভোরে উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমে সরে গোপালপুর ও কলিঙ্গপত্তনমের ওপর দিয়ে ওড়িশা ও অন্ধ্রপ্রদেশ অতিক্রম করবে। এরপরে ফের একই জায়গায় ঘুরে এসে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের দিকে সরে যাবে। সেখানে পৌঁছে ধীরে ধীরে শক্তি কমবে ঝড়ের।

তিতলির কারণে আগামীকাল গঞ্জাম, গজপতি, পুরী, জগৎসিংহপুর, কেন্দ্রাপড়া, খুরদা, নয়াগড়, কটক, জাজপুর, ভদ্রক ও বালেশ্বরে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া, জিনিউজ, আনন্দবাজার, এনডিটিভি

Leave A Reply

Your email address will not be published.