ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ নাকি বিএনপির শোডাউন?

0 23

 

ডেস্ক: জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জনসভায় বিপুল জনসমাগমের লক্ষ্যে জোটের নেতাকর্মীরা রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জড়ো হচ্ছেন। দুপুর ২টায় আনুষ্ঠানিকভাবে সমাবেশ শুরুর কথা থাকলেও সকাল থেকেই উদ্যানের সামনে জড়ো হতে থাকে জোটের নেতাকর্মীরা।

বিশেষ করে, বিএনপি নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে মুখর হয়ে উঠেছে পুরো সোহরাওয়ার্দী এলাকা। নেতাকর্মীদের হাতে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া, তারেক রহমানের ছবি সম্বলিত ফেস্টুনসহ আছে নানা রকমের ব্যানার-প্ল্যাকার্ড। এছাড়া খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে নেতাকর্মীরা বিভিন্ন স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করছে আশপাশের এলাকা।

ঢাকার আশপাশের জেলা থেকেও আসছে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের নেতাকর্মীরা। খণ্ড খণ্ড মিছিল ও স্লোগানে সমাবেশস্থলে জড়ো হচ্ছেন তারা।জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জনসভায় প্রথমবারের মতো মঞ্চে উঠবেন কৃষক-শ্রমিক-জনতা লীগ সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট প্রধান ড. কামাল হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে প্রধান বক্তা হিসেবে কর্মসূচি ঘোষণা করবেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব। এ ছাড়া নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নাসহ ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতারা বক্তব্য রাখবেন।অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করবেন বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী ও সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ।

সংসদ ভেঙে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন ও খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ সাত দফা দাবিতে শাহবাগ থেকে মৎস্যভবন, মৎস্য ভবন থেকে শিল্পকলা পর্যন্ত পুরো রাস্তা জুড়ে অবস্থান নিয়েছেন দলীয় নেতাকর্মীরা।

 

এদিকে বিভিন্ন সড়কে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা নেতাকর্মীদের সমাবেশ স্থল নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যরা।

অন্যদিকে কেরানীগঞ্জ, চক বাজার, লালবাগ, কামরাঙ্গীরচর ও হাজারীবাগ দিয়ে জনসভায় যোগ দিচ্ছে, এমন সন্দেহভাজন কাউকেই ঢাকার দিকে আসতে দেয়া হচ্ছে না। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নবাবগঞ্জ বেড়িবাঁধ এলাকা থেকে অন্তত অর্ধশত জন আটক করে নেয়া হয়েছে লালবাগ থানায়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.