নড়াইলে নেই সিনেমা হল

0 18

 

ডেস্ক: নড়াইল জেলায় বর্তমানে চালু নেই কোনো সিনেমা হল। কিছু সিনেমা হল পরিত্যাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। ফলে বড় পর্দায় সিনেমা দেখা থেকে বঞ্চিত হয়ে পড়েছে এ জেলার জনসাধারণ। কয়েক বছর আগে জেলা সদরে তিনটি, লোহাগড়া উপজেলায় দুইটি ও কালিয়া উপজেলায় একটিসহ মোট ছয়টি সিনেমা হল চালু থাকলেও বর্তমানে বিভিন্ন কারণে সব সিনেমা হল বন্ধ হয়ে গেছে।

জেলার প্রধান সিনেমা হল ছিল চিত্রাবানী সিনেমা হল, প্রায় ৮/৯ বছর এ হলে কোন চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হয় না। বর্তমানে তা পরিত্যাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। এই হলের সামনে জমিতে নির্মাণ হচ্ছে মার্কেট। নড়াইল সদরের গোবরা বাজারে আশা সিনেমা হলটি এখন ব্যবসায়ীদের পণ্য রাখার গোডাউন হিসেবে ব্যাবহার হচ্ছে এবং সিমাখালী এলাকায় অবস্থিত সিনেমা হলটি প্রায় দশ বছর হলো একটি মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। লোহাগড়া উপজেলার দুটি সিনেমা হলের স্থানে একটিতে হয়েছে মার্কেট, অপরটি বানানো হয়েছে কাঠের দোকান। কালিয়া উপজেলার একমাত্র আলপনা সিনেমা হলটিও পরিত্যাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে।

সিনেমা হল চালু থাকা সময়ে কর্মরত সংশ্লিষ্টরা বলেন, এই সিনেমা হল ছিল বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম। ছবি দেখার জন্য মানুষের ছিল উপচে পড়া ভিড়, ছিল অন্য রকম আনন্দ। অনেকে টিকিট ব্ল্যাক করে বাড়তি পয়সা উপার্জন করতেন। হল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তারা বেকার হয়ে পড়েছেন, পেশা বদল করে অন্য পেশায় যেতে বাধ্য হয়েছেন। পুনরায় হল চালু করার দাবি জানান তারা।

নড়াইল সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মলয় কুমার কুণ্ডু বলেন, জাতি গড়ার ক্ষেত্রে চলচ্চিত্র একটি শক্তিশালী মাধ্যম। এর মধ্য দিয়ে পারিবারিক, সামাজিক জীবন দেখানো হতো। বর্তমান প্রজন্মকে সঠিক পথে পরিচালনা করবার জন্য ছবি নির্মাণ ও হলমুখী করবার আহবান জানান।

জেলা তথ্য অফিসার বলেন, তথ্য মন্ত্রণালয় সিনেমা হল চালু করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। সব বন্ধ সিনেমা হলের তালিকা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। বিশেষ করে প্রতি জেলায় কমপক্ষে একটি সিনেমা হল ডিজিটাল সিস্টেমে চালানো উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে কার্যক্রম চালু রয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.