ত্রিশ কারণে মনোনয়ন বাতিল, শীর্ষে ঋণ খেলাপ

0 12

 

ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঋণ খেলাপির দায়সহ মোট ত্রিশটি কারণে মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ইসি। এর মধ্যে সর্বাধিক পরিমাণ মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে ঋণ খেলাপির দায়ে।

এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্য থেকে ১ শতাংশ ভোটারের সমর্থন না দেখাতে পারায় মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে অনেক প্রার্থীর। সারাদেশে বিভিন্ন আসনে দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তাদের পাঠানো তথ্য সমন্বয় করে এমন তথ্য জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

নির্বাচন পরিচালনা শাখার তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, প্রার্থীদের মধ্যে ঋণ খেলাপির দায়ে মনোনয়নপত্র বাতিলের সংখ্যা শীর্ষে। এর মধ্যে আবার বিএনপির প্রার্থীই বেশি। আর স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ক্ষেত্রেও বেশিভাগের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে ১ শতাংশ ভোটারের সমর্থনসূচক প্রমাণ না থাকায়।

এভাবে নির্বাচনে মোট ত্রিশ ধরনের ত্রুটি থাকায় মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

মনোনয়ন বাতিলের কারণগুলোর মধ্যে রয়েছে- স্থানীয় সরকারের লাভজনক পদে অধিষ্ঠিত থাকা, পদ ছেড়ে মনোনয়নপত্র জমা দেয়া ও পদত্যাগপত্র গৃহীত না হওয়া। আর এসব কারণে অন্তত ৩৬জনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

এছাড়া রয়েছে- মনোনয়নপত্রে স্বাক্ষর না থাকা, দলিল বা হলফনামা না দেয়া, দলীয় প্রত্যয়নপত্র না দেয়াসহ নানা ধরনের আইনী জটিলতা।

জানা গেছে, দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কোনো দলিলাদি জমা না দেয়ায় নেত্রকোণা-১ আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী শাহ কুতুবউদ্দিন তালুকদারের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। এছাড়া একই আসনের আওয়ামী লীগের আরেক প্রার্থী এরশাদুর রহমানের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে দলীয় প্রত্যয়নপত্র জমা না দেয়ায়।

অন্যদিকে নেত্রকোণা-৫ আসনে আবু তাহের তালুকদার ও রাবেয়া খাতুন নামে বিএনপির দুই প্রার্থীরও মনোনয়ন বাতিল হয়েছে দলীয় মহাসচিবের স্বাক্ষরে মিল না থাকায়।

এছাড়া পিরোজপুর-১ আসনে বিএনএফ-এর প্রার্থী মনিমোহন বিশ্বাসের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে স্বাক্ষর না থাকার কারণে। এছাড়া হলফনামা না থাকায়ও তার মনোনয়ন বাদ ঘোষণা করা হয়।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, গেল ২ ডিসেম্বর ছিলো মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের দিন। এবারের নির্বাচনে মোট ৩৯টি দল ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মিলে ৩ হাজার ৬৫টি মনোনয়নপত্র জমা দেয়। এর মধ্য থেকে ২ হাজার ২৭৯টি মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। আর অবৈধ ঘোষণা করা হয় ৭৮৬টি মনোনয়নপত্র। এগুলোর মধ্যে- বিএনপির ১৪১টি, আওয়ামী লীগের ৩টি এবং জাতীয় পার্টির ৩৮টি। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্য থেকেও ৩৮৪টি মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.