জীবননগরে আওয়ামীলীগের নির্বাচনী অফিস ভাংচুরের অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যানসহ বিএনপির চার নেতা গ্রেফতার

0 93

 

জীবননগর: চুয়াডাঙ্গা-২ আসনে আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতিকের নির্বাচনী অফিস ভাংচুর ও নেতাকর্মিকে মারপিটের অভিযোগে জীবননগর উপজেলা বিএনপির সাংগাঠনিক সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান ও দুইজন ইউপি সদস্যসহ চারজন নেতাকে গ্রেফতার করেছেন থানা পুলিশ। রোববার এ গ্রেফতার অভিযান পরিচালনা করা হয়।
জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ গনি মিয়া বলেন,জীবননগর উপজেলার রায়পুর বাজারে নৌকা প্রতিকের নির্বাচনী অফিসে গত মঙ্গলবার রাতে বিএনপির নেতাকর্মিরা হামলা চালিয়ে অফিস ভাংচুর ও নেতাকর্মিদের মারপিটের অভিযোগ থানায় একটি মামলা হয়। ওই মামলায় জীবননগর উপজেলা বিএনপির সাংগাঠনিক সম্পাদক উথলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ(৫৬) জড়িত সন্দেহে তাকে রোববার সন্ধ্যায় উথলী বাজার থেকে গ্রেফতার করা হয়। অন্যদিকে ওই মামলার উপজেলার বাঁকা রঘুনন্দনপুর গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে এজাহার নামীয় আসামী ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি বাঁকা ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার আব্দুল মান্নান(৪৬), খয়েরহুদা গ্রামের মৃত নইম উদ্দিন মন্ডলের ছেলে বিএনপি নেতা কেডিকে ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার আবুল কালাম আজাদ ঝন্টু(৪৮) এবং বাঁকা প্রতাপুর গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে আমানউল্যাহদেরও(৪৫) গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।
এদিকে পুলিশের এ গ্রেফতারের ফলে এলাকায় বিএনপি নেতাকর্মিদের মধ্যে গ্রেফতার আতঙ্ক বিরাজ করছে। অনেক নেতাকর্মিই ইতিমধ্যে এলাকা ছেড়ে চলে গেছেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাবেক চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন খান খোকন বলেন,ঘটনার দিন সন্ধ্যায় অমিসহ বিএনপির কয়েকজন নেতা রায়পুর বাজারে ধানের শীষ প্রতিকের নির্বাচন অফিস উদ্বোধন করে আমরা এলাকায় ফিরতে না ফিরতেই আওয়ামীলীগের নেতাকর্মিরা আামদের ওই নির্বাচনী অফিসের চেয়ার ভাংচুর করে এবং ছাত্রদল নেতা সিহাবকে মারপিট করে মারাত্মক ভাবে জখম করে। আবার সেই আওয়ামীলীগ উল্টা আমাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে নিরীহ নেতাকর্মিকে গ্রেফতার করছেন পুলিশ। গ্রেফতারের ভয়ে আমরা নির্বাচনী মাঠেও ঠিক মত কাজ করতে পারছিনা ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.