বিএনপি-জামায়াতের হামলার প্রতিকারে আওয়ামী লীগের চিঠি

0 65

 

ডেস্ক: দেশের বিভিন্ন স্থানে দলীয় নেতাকর্মীদের উপর বিএনপি-জামায়াতের হামলার ঘটনায় প্রতিকার চেয়ে নির্বাচন কমিশনে চিঠি দিয়েছে আওয়ামী লীগ। ওই চিঠিতে হামলাকারীদের শাস্তি দাবি করেছে দলটি। চিঠিতে সুনামগঞ্জ, নোয়াখালী, কুমিল্লা, ফেনী, ঝালকাঠী, পাবনা, বগুড়া, জয়পুরহাট, ঝিনাইদহে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীর উপর হামলা, নির্বাচনী ক্যাম্প ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সঙ্গে সাক্ষাত করে এ চিঠি পৌঁছে দেন আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দলটি। প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা মো. আক্তারুজ্জামান।

পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি, বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে আমাদের দেশপ্রেমিক, পেশাদার, সুশৃঙ্খলা ও সশস্ত্র সেনাবাহিনীকে নিয়ে যে বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে তা খুবই আপত্তিজনক ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। তারা কোনো দলের বা পক্ষের নয়। কাজেই কারো সেনাবাহিনীকে নিয়ে উচ্ছ্বসিত হওয়ার কোনো কারণ বা সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের পেশাদার সেনাবাহিনার একটি সার্বজনীন মর্যাদা রয়েছে। এই বাহিনীকে প্রশ্নবিদ্ধ বা বিতর্কিত করতে পারে এমন কোনো বক্তব্য বা বিবৃতি থেকে সবাইকে বিরত থাকতে হবে। সবাই এ ধরনের বক্তব্য দেয়া থেকে বিরত থাকবে বলে আমরা আশা করি।

আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের উপর হামলার বিষয়ে তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীরা দেশের সর্বত্র সন্ত্রাস, নৈরাজ্য ও হামলা করছে। আওয়ামী লীগসহ সব গণতান্ত্রিক দলের ও জোটের অফিস ভাংচুর করছে। তাদের হামলায় আওয়ামী লীগের পাঁচজন নেতাকর্মী মারা গেছেন। আহত হয়েছেন আরো কয়েকশ’। এসব ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে বিচারের দাবি জানাই।

তিনি আরো বলেন, বিএনপির নেতাকর্মীরা নিজেরাই নিজেদের মধ্যে হামলা করে উল্টো নির্বাচন কমিশনে মিথ্যা অভিযোগ করছেন।

আওয়ামী লীগ প্রতিনিধি দলে আরো ছিলেন উপ-দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় নেতা মারুফা আক্তার পপি, অ্যাডভোকেট রিয়াজুল কবীর কায়ছার, নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য ড. সেলিম মাহমুদ প্রমুখ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.