চীনের সঙ্গে তাইওয়ানের এক হওয়া অনিবার্য: শি জিনপিং

0 80

 

ডেস্ক: ‘তাইওয়ানকে চীনের সঙ্গে একত্রিত হতেই হবে এবং এটা অনিবার্য’ বলে মন্তব্য করেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

বুধবার তাইওয়ান নীতির ৪০ বছর পূর্তিতে বেইজিংয়ের গ্রেট হলে দেয়া এক ভাষণে নতুন করে এ কথাগুলো বলেন তিনি। এ লক্ষ্যে তিনি তাইওয়ানের জনগণকেও এ সত্য মেনে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

তাইওয়ান স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল হলেও তাদেরকে ‘এক দেশ দুই ব্যবস্থা’র ভিত্তিতে শান্তিপূর্ণ পন্থায় এক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন শি জিনপিং। আর এই পুনরেকত্রীকরণ নিশ্চিত করতে চীনের শক্তি প্রয়োগেরও অধিকার আছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

চীন তাইওয়ানকে তাদের মূল-ভূখণ্ডের অংশ হিসেবেই মনে করে এবং এক্ষেত্রে তারা ‘এক দেশ, দুই নীতি’ মেনে চলে।

এদিকে, তাইওয়ানের নিজস্ব সরকার-ব্যবস্থা আছে এবং তারা নিজেদের স্বাধীন দেশ বলে মনে করে। কিন্তু চীন থেকে তারা কখনো আনুষ্ঠানিকভাবে তাইওয়ানের স্বাধীনতা ঘোষণা করেনি।

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বলেন, উভয় পক্ষ একই, চীনা পরিবারের অংশ। এজন্য তাইওয়ানের স্বাধীনতা ইতিহাসের বিপরীত স্রোত, যেটা কখনোই কূল খুঁজে পাবে না।

“তাইওয়ানের জনগণকে অবশ্যই বুঝতে হবে, স্বাধীনতা তাদের জন্য শুধু কষ্টই বয়ে নিয়ে আসবে। তাইওয়ানের স্বাধীনতা নিয়ে কোনো ধরনের উদ্যোগ বেইজিং কখনো মেনে নেবে না।”

এর জবাবে বুধবার তাইওয়ান প্রেসিডেন্ট সাই-ইং-ওয়েন বলেন, চীনের সঙ্গে পুনরায় একত্রীকরণের বিষয়ে বেইজিং যে প্রস্তাব দিয়েছে, তাইওয়ান তা কখনোই মেনে নেবে না।

তিনি বলেন, আমি আবারো বলছি, তাইওয়ান কখনোই ‘এক দেশ, দুই নীতি’ মেনে নেবে না। তাইওয়ানের বেশিরভাগ মানুষও ‘এক দেশ, দুই নীতি’র ঘোর বিরোধী।

চীনের ‘এক দেশ, দুই নীতি’র অধীনে তাইওয়ান সরকার অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নিজেরাই সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার পাবে। যা অনেকটা হংকংয়ের শাসনব্যবস্থার মতো।

Leave A Reply

Your email address will not be published.