দায়িত্ব অবহেলায় চিকিৎসকদের ওএসডির নির্দেশ

0 20

 

ডেস্ক: সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসকরা হাজির না থাকলে তাদের ওএসডি করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সরকারি সুযোগ-সুবিধা ভোগ করে যথাযথ চিকিৎসাসেবা না দিলে, চাকরি ছেড়ে দিতে বলেছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জেলায় জেলায় জরিপ করতে হবে, কেন হাসপাতালে ডাক্তার থাকেন না। যারা সেবা দেবেন না, তাদের ওএসডি করে রাখতে হবে। চিকিৎসকদের রাষ্ট্রীয় সম্মান দেয়া হয়েছে, তাদের অবশ্যই চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে হবে। তা না হলে চাকরি ছাড়তে হবে।

শনিবার সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে এসে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি এ কথা বলেন।

চিকিৎসকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করার ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, চিকিৎসকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে হাসপালগুলোতে বায়োমেট্রিক পদ্ধতি চালু করতে হবে। চিকিৎসকদের দু’বছরের ইন্টার্নশিপ চালু করতে হবে। চিকিৎসকদের অন্তত এক বছর থাকতে হবে উপজেলা পর্যায়ে। উন্নত চিকিৎসা এবং সেবার মান উন্নয়নেরও তাগিদ দেন তিনি।।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার গঠনের পর থেকেই স্বাস্থ্য সেবা মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে কাজ করেছে আমার সরকার। স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে আমরা কমিউনিটি মেডিকেল স্থাপন করে দিই। সারা বাংলাদেশে চিকিৎসক দরকার অনেক।

তিনি বলেন, চিকিৎসকদের দুই বছর ইন্টানিশিপের ব্যবস্থা করতে হবে। এরমধ্যে এক বছর খাকতে হবে উপজেলা পর্যায়ের হাসপাতালে।

নার্সদের প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন নার্সদের উচ্চশিক্ষার সুযোগ আছে। নার্সরা সেবা দেবে না, এটা ঠিক নয়। নার্সদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালনের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। যারা রোগীদের সেবা দেবেন না, সেসব নার্সদের হুঁশিয়ারও করেন তিনি।

এ সময় তিনি শিগগিরই নার্সদের কর্মপরিধি আবারো সুনির্দিষ্টকরণের তাগিদ দেন মন্ত্রণালয়কে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বেসরকারি মেডিকেল কলেজের দিকে মনোযোগ দিতে হবে। তারা যেন সঠিক শিক্ষা নিয়ে চিকিৎসক হন, সেজন্য মনিটর বাড়াতে হবে।

এর আগে নিজ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন দিক ও চ্যালেঞ্জ প্রধানমন্ত্রীর সামনে উত্থাপন করেন ডা. জাহিদ মালেক৷

তিনি জানান, আগামীতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ আরো সম্প্রসারণ করা হবে। আটটি বিভাগীয় শহরে ১০০ শয্যা বিশিষ্ট ক্যান্সার হাসপাতাল স্থাপন করা হবে৷ ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে৷

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, মেডিকেল কলেজগুলোতে চিকিৎসা বিদ্যায় পর্যাপ্ত শিক্ষকের অভাব রয়েছে৷ তাদের উৎসাহিত করতে প্রণোদনার ব্যবস্থা করা যেতে পারে। রোগীদের নিবিড় সেবা দিতে নার্সদের কর্মপরিধি সুনির্দিষ্ট করা প্রয়োজন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.