পুঁজিবাজারে অকারণে বাড়ছে ‘দুর্বল’ কম্পানির শেয়ার দাম

লোকসানের কারণে পাঁচ বছর ধরে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের (বাংলাদেশ) ফ্লাইট বন্ধ আছে। প্রতিষ্ঠানটির কোনো আর্থিক উন্নতি না হলেও পুঁজিবাজারে এর শেয়ার দাম বাড়ছে। কখনো বেঁধে দেওয়া সীমা পর্যন্ত (সার্কিট ব্রেকার) দাম বাড়ছে। একই অবস্থা সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালসের। গত বছরের ডিসেম্বর থেকে সেন্ট্রাল ফার্মার উৎপাদন বন্ধ। উৎপাদনে না থাকলেও ‘অজানা’ কারণে বাড়ছে কম্পানিটির শেয়ার দাম। ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর সেন্ট্রাল ফার্মার কিছু ওষুধ উৎপাদনে নিষেধাজ্ঞা দিলে উৎপাদন বন্ধ হয়। তবুও কম্পানিটির শেয়ার দাম এখন বাড়ছে।
উৎপাদনে না থাকার কথা জানানো হলেও শেয়ারটির দাম বাড়তি, যাতে আশঙ্কা করা হচ্ছে কম্পানিটির শেয়ার কারসাজি চলছে। অভিহিত মূল্যের নিচে থাকা কম্পানিটির শেয়ার দাম এখন ১৭ টাকা। গত ২৩ ফেব্রুয়ারি কম্পানিটির শেয়ার দাম ছিল ৯.৬০ টাকা। গতকাল এই শেয়ার দাম দাঁড়ায় ১৭ টাকা। এক দিনে শেয়ার দাম বেড়েছে ১.৫ টাকা বা ৬.৬৮ শতাংশ। মালিকানা পরিবর্তনের গুজব ছড়িয়ে কম্পানির শেয়ার দাম বাড়ানো হচ্ছে বলে সূত্র জানিয়েছে।
শুধু এমন দু-একটি কম্পানি নয়, উৎপাদনে নেই কিংবা লোকসানে রয়েছে পুঁজিবাজারের এমন দুই ডজন কম্পানির শেয়ার দাম বাড়ছে। শেয়ার বিক্রির চাপে পুঁজিবাজার পর্যদস্তু হলেও লোকসানি কম্পানির দাপট বাড়ছে। লোকসানে থাকা কম্পানির আর্থিক কোনো উন্নতি না হলেও শেয়ার দামে ঊর্ধ্বগতি।
সূত্র জানায়, লোকসানি কম্পানির আর্থিক উন্নতি না হলেও দাম বৃদ্ধির ঘটনা অস্বাভাবিক। লোকসান কিংবা বন্ধের কারণে আয় কমে যাওয়ায় তালিকাভুক্ত কম্পানি বিনিয়োগকারীকে লভ্যাংশ দিতে ব্যর্থ হয়। যার ফলে ওই সব কম্পানিকে বিদ্যমান শ্রেণি থেকে দুর্বল ভিত্তির ‘জেড’ শ্রেণিতে অবনমন করা হয়। আর্থিক কোনো উন্নতি হলে বিধান অনুযায়ী কম্পানির ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) তথ্য প্রকাশ করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।
পুঁজিবাজারসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, লোকসানি কম্পানির আর্থিক কোনো উন্নতি না হলেও কারসাজি গোষ্ঠী গুজব, মিথ্যা তথ্য ছড়ায়। কখনো আর্থিক উন্নতি কিংবা কখনো কম্পানির পর্ষদের পরিবর্তন আবার কখনো বিদেশি কম্পানির বিনিয়োগ আসছে-এমন গুজব ছড়িয়ে শেয়ার দাম প্রভাবিত করে। তথ্যের সত্যতা যাচাই না করে ওই কম্পানিতে বিনিয়োগকারী হুমড়ি খেয়ে পড়লে শেয়ার দাম বেড়ে যায়। এ ক্ষেত্রে ঝুঁকিপূর্ণ কম্পানিতে বিনিয়োগ করে ঝুঁকির মধ্যে না পড়ে জেনে-শুনে-বুঝে বিনিয়োগের পরামর্শ সংশ্লিষ্টদের।

বিচ হ্যাচারি, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কম্পানিটির আর্থিক দুর্বলতার কারণে ২০১৪ সালের পর বিনিয়োগকারীকে কোনো লভ্যাংশ দেয়নি। চলতি অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে লোকসান প্রায় এক কোটি টাকা। ২০১৬ ও ২০১৭ সালে লোকসানের পর ২০১৮ সালে মুনাফা হয়। কিন্তু চলতি অর্থবছরে লোকসান হলেও দাম বাড়ছে।
দুলামিয়া কটন, ২০১৫ সাল থেকে লোকসানে। চলতি বছরের ছয় মাসে কম্পানিটির লোকসান ৮১ লাখ টাকা। লোকসানে থাকলেও কম্পানিটির শেয়ার দাম বাড়ছে। লিব্রা ইনফিউশন ২০১৮ সালে মুনাফা করলেও চলতি বছরে পড়েছে লোকসানে। চলতি অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসের কম্পানিটির লোকসান দুই কোটি ৭১ লাখ টাকা। ২০১৯ সাল শেষ হলেও এখনো বার্ষিক সাধারণ সভা করতে পারেনি। দুই দফা সভার দিন-তারিখ ঘোষণা করলেও ব্যর্থ হয়েছে কম্পানিটি। যাতে কম্পানিটির শাস্তিস্বরূপ দৃঢ়ভিত্তির ‘এ’ শ্রেণি থেকে অবনমন করে ‘জেড’ শ্রেণীভুক্ত করা হয়েছে। তবে গতকাল বৃহস্পতিবার এক দিনে কম্পানিটির শেয়ার দাম বেড়েছে ২৭ টাকা।
২০১৯ সালের আর্থিক হিসাবে শেয়ারহোল্ডারকে কোনো লভ্যাংশ না দেওয়ায় ‘জেড’ শ্রেণিতে রয়েছে ইনটেক লিমিটেড। ওই বছর কম্পানিটির আয় হয়েছিল এক কোটি ২৩ লাখ টাকা। তবে চলতি অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে কম্পানিটির আয় কমেছে।
২০১৯-২০ অর্থবছরের জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত কম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ০.০৩ টাকা। যদিও আগের বছর একই সময়ে এই আয় ছিল ১.২৬ টাকা। সেই কম্পানিটির আয় কমেছে। কিন্তু আয় কমলেও উল্টো বাড়ছে শেয়ার দাম। গতকাল বৃহস্পতিবার কম্পানিটির কোনো শেয়ার বিক্রেতা ছিল না। প্রতি শেয়ারের দাম বেড়েছে ১.৮ টাকা, শতকরা হিসাবে এই বৃদ্ধি ৯.৫২ শতাংশ।
২০১৫ সাল থেকে লোকসানে রয়েছে শ্যামপুর সুগার। সরকারি এই কম্পানিটির আর্থিক কোনো উন্নতি হয়নি। চলতি প্রথম ছয় মাসে কম্পানিটির লোকসান ২৩ কোটি টাকা। আগের বছর লোকসান হয়েছিল ৬৩ কোটি ১৪ লাখ টাকা। আর্থিক কোনো উন্নতি না হলেও কম্পানিটির শেয়ার দাম বাড়তি।
ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন সার্ভিস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোস্তাক আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বাজার বাড়লে দুর্বল কম্পানির শেয়ার দামও বাড়তে থাকে। উঠতি বাজারে এক শ্রেণির বিনিয়োগকারী ফায়দা লুটতে গুজব ও মিথ্যা তথ্য ছড়ায়। বিনিয়োগকারী সেই তথ্যে প্রভাবিত হয়ে শেয়ার কিনে ঠকছে। নিজের বিনিয়োগ সুরক্ষা করতে জেনে-শুনে ভালো কম্পানিতে বিনিয়োগ করতে হবে। রাতারাতি মুনাফার আশা বাদ দিয়ে দীর্ঘ মেয়াদে বিনিয়োগ করতে হবে।’

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.