আতঙ্কের নগরীতে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৮

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনকে (সিএএ) ঘিরে ভারতের রাজধানী দিল্লিতে হিন্দু-মুসলিম সংঘাতে অন্তত ৩৮ জন মারা গেছেন। আহতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২০০। চারদিন ধরে চলা সহিংসতার ঘটনায় এ পর্যন্ত ৪৮টি এফআইআর দাখিল হয়েছে এবং আটক বা গ্রেফতার করা হয়েছে ৫১৪ জনকে। দিল্লি এখনো থমথমে, বিরাজ করছে আতঙ্ক। খবর- আনন্দবাজার।

বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) আগের কয়েকদিনের তুলনায় দিল্লি ছিল তুলনামূলক শান্ত। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল নিহতদের পরিবারকে ১০ লাখ রুপি করে অর্থ সহায়তা দেওয়ার কথা জানিয়েছেন।

সংঘর্ষে উত্তরপূর্ব দিল্লি সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভজনপুর, চাঁদ বাগ, মৌজপুর, কদমপুরী, জাফরাবাদ, অশোক নগর, শিব বিহারে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বিক্ষুব্ধ এলাকায় ৭০ কোম্পানি আধা-সামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে চাঁদ বাগে একটি নর্দমা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো (আইবি)-র অফিসার অঙ্কিত শর্মার মৃতদেহ। তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ট্রাম্পের ভারত সফর চলাকালেই দিল্লিতে শুরু হয় সিএএ সমর্থক ও বিরোধীদের পাল্টাপাল্টি মিছিল ও সংঘর্ষ। কয়েক দশকের মধ্যে এটিই দিল্লিতে হিন্দু-মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে হওয়া সবচেয়ে বড় সংঘর্ষ।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.