জাহাজে আগুন,আমিরাতের বন্দরে বিস্ফোরণ

সংযুক্ত আরব আমিরাতের ফুজায়রা সমুদ্রবন্দরে ভয়াবহ বিস্ফোরণের খবর পাওয়া গেছে। রবিবার দিনের প্রথম ভাগে এ বিস্ফোরণ ঘটে। এতে সাতটি তেলবাহী ট্যাংকার পুড়ে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তবে আমিরাতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, আমিরাতের পানিসীমার কাছে এই ‘অন্তর্ঘাতমূলক হামলা’ বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে। বন্দরের চারটি বাণিজ্যিক জাহাজকে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করে এ বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

আমিরাতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ফুজাইরা বন্দরের কাছে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। তবে এতে কোনও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি।

বিবৃতিতে বলা হয়, বাণিজ্যিক জাহাজগুলোকে নাশকতামূলক তৎপরতার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করা হয়েছে। এসব জাহাজের কর্মীদের জীবন বিপন্ন করা হয়েছে। এসব কর্মকাণ্ডকে ভয়ানক কাজ হিসেবে বিবেচনা করছে আমিরাত।

মধ্যপ্রাচ্যের তেল নিয়ে হরমুজ প্রণালি হয়ে বেরিয়ে যাওয়ার সময় বিদেশি জাহাজ ও তেল ট্যাংকারগুলোকে ফুজাইরা বন্দরের পাশ দিয়ে যেতে হয়। ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে আশঙ্কা প্রকাশ করে বলা হয়েছে, এ ঘটনাকে তেহরানের ওপর সামরিক হামলার অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করতে পারে আমিরাতের মিত্র যুক্তরাষ্ট্র।

সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাক্টিভিস্টদের বরাত দিয়ে পার্স ‍টুডে-র খবরে বলা হয়, বন্দরটির ওপর দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ফ্রান্সের বিমান উড্ডয়ন করছে। তবে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ এ খবর অস্বীকার করেছে।

এর আগে রবিবার দিনের শুরুতে লেবাননভিত্তিক আল মায়াদিন টেলিভিশন চ্যানেল জানায়, আল-ফুজাইরা তেল ট্যাংকার টার্মিনালের সাতটি ট্যাংকারে ভয়াবহ আগুন লেগেছে। টার্মিনাল থেকে কয়েকটি ভয়াবহ বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়। প্রথমে আমিরাতি কর্তৃপক্ষ এ খবর অস্বীকার করলেও পরে আগুন ধরে যাওয়া জাহাজের নাম প্রকাশ হয়ে গেলে কর্তৃপক্ষ বিষয়টি স্বীকার করে।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.