কঙ্গনাকে জেল বা মানসিক হাসপাতালে পাঠানো উচিত

বিস্ফোরক মন্তব্য করা থেকে পিছু হটছেন না বলিউডের আলোচিত-সমালোচিত অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। দীর্ঘদিন ধরে অভিনয় দক্ষতা দিয়ে আলোচনায় না আসলেও বেফাঁস মন্তব্য করে বরাবরই আলোচনায় আসছেন কোকড়া চুলের এই অভিনেত্রী।

এবার ইনস্টাগ্রামে শিখ সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে অবমাননাকর ভাষা ব্যবহার করায় তার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ করেছে দিল্লি শিখ গুরুদুয়ারা ব্যবস্থাপনা কমিটি। গতকাল শনিবার মন্দির মার্গ থানার সাইবার সেলে অভিযোগটি দায়ের করা হয়।

 

অভিযোগে বলা হয়েছে যে অভিনেত্রী শিখ সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে অবমাননাকর এবং অপমানজনক ভাষা ব্যবহার করেছেন। পোস্টটি উদ্দেশ্যমূলকভাবে প্রস্তুত করা হয়েছে এবং শিখ সম্প্রদায়ের অনুভূতিতে আঘাত হানার অপরাধমূলক অভিপ্রায় থেকে শেয়ার করা হয়েছে।

 

বিবৃতিতে অভিযোগ করা হয়েছে, শিখ সম্প্রদায়কে তিনি খালিস্তানি সন্ত্রাসবাদী বলেছেন এবং ১৯৮৪ সালে সংগঠিত গণহত্যাকে ইন্দিরা গান্ধীর দিক থেকে পরিকল্পিত পদক্ষেপ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

 

এদিকে কঙ্গনার কড়া সমালোচনা করে তাকে জেলে বা মানসিক হাসপাতালে রাখা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন শিরোমনি আকালি দলের নেতা এবং দিল্লি শিখ গুরুদুয়ারা ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মানজিন্দর সিং সিরসা।

 

একটি বিবৃতিতে তিনি বলেন, কঙ্গনার বিবৃতি খুব সস্তা মানসিকতা তুলে ধরেছে। খালিস্তানি সন্ত্রাসীদের কারণে তিনটি খামার আইন বাতিল করা হয়েছে, এই কথা বলা কৃষকদের প্রতি অসম্মান।

 

তিনি আসলে একটি ঘৃণার কারখানা। সরকারের কাছ থেকে আমরা কঠোর পদক্ষেপ দাবি করছি। অবিলম্বে তার নিরাপত্তা এবং পদ্মশ্রী প্রত্যাহার করতে হবে। তাকে মানসিক হাসপাতালে বা জেলে রাখা উচিত।

 

 

Edited By: K F

 

আরও পড়ুন

রাজনীতি  আন্তর্জাতিক খেলাধুলা লাইফস্টাইল সারাদেশ  

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.