আউট না হয়েও মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে গেলেন যুবরাজ

বলা হয়, ক্রিকেট ভদ্রলোকের খেলা। যে কারণে প্রায়ই দেখা যায় কোনো সিদ্ধান্তে আম্পায়ার ভুল করে আউট না দিলেও, ব্যাটসম্যানরা সেটি বুঝতে পেরে মাঠ থেকে বেরিয়ে যান সাগ্রহে। কিন্তু তাই বলে আউট না হয়েও মাঠ ছেড়ে চলে যাওয়া নিশ্চয়ই স্বাভাবিক কোনো ঘটনা নয়।

এ অস্বাভাবিক ঘটনাই ঘটেছে কানাডার ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ক্রিকেট টুর্নামেন্ট গ্লোবাল টি-২০’র উদ্বোধনী ম্যাচে। আম্পায়ার আউট দেননি, আবার নিজেও আউট হননি- তবু মাঠ থেকে বেরিয়ে গেছেন টরোন্টো ন্যাশনালের অধিনায়ক যুবরাজ সিং।

ঘটনাটি ম্যাচের প্রথম ইনিংসের ১৭তম ওভারের। ভ্যাঙ্কুবার নাইটসের কানাডিয়ান পেসার রিজওয়ান চিমার করা সে ওভারের দ্বিতীয় বলে সজোরে হাঁকিয়েছিলেন যুবরাজ। ব্যাটের কানায় লেগে বল চলে উইকেটরক্ষক টোবিয়াস ভিসের হাতে।

কিন্তু সেটি গ্লাভসবন্দী করতে পারেননি ভিসে। তবে তার হাত থেকে বেরিয়ে বল আঘাত হানে স্টাম্পে। তা দেখে যুবরাজ ভাবতে শুরু করেন তিনি স্টাম্পিং হয়ে গেছেন। তাই আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের অপেক্ষা না করে নিজ থেকেই বেরিয়ে যান মাঠ থেকে।

অথচ পরে টিভি রিপ্লেতে দেখা যায় বল যখন ভিসের গ্লাভস থেকে পড়ে স্টাম্পে আঘাত করে, তখন নিজের ক্রিজেই মধ্যেই ছিলেন যুবরাজ। যার ফলে থার্ড আম্পায়ারের কাছে তিনি হতেন নটআউট। কিন্তু নিজের ভুলে কারণে হারাতে হয় উইকেট।

অবশ্য সে মুহূর্তে যুবরাজ আউট হওয়ায় খুশিই হয়েছিল টরোন্টো। কারণ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে আউট হওয়ার আগে ২৭ বল খেলে মাত্র ১৪ রান করতে পেরেছিলেন যুবরাজ। তিনি আউট হওয়ার পর বাকি থাকা ২২ বল থেকে ৫৫ রান করে টরোন্টো।

ম্যাচে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৫৯ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায় টরোন্টো। হেনরিখ ক্লাসেন ২০ বলে ৪১ ও কাইরন পোলার্ড খেলেন ১৩ বলে ৩০ রানের অপরাজিত ইনিংস।

এ রান তাড়া করতে ক্রিস গেইলের নেতৃত্বাধীন ভ্যাঙ্কুবারের খরচ হয় ১৭.২ ওভার, হারায় ২টি মাত্র উইকেট। চ্যাডউইক ওয়ালটন ৩৫ বলে ৫৯ এবং ফন ডার ডুসেন ৪৩ বলে ৬৫ রান করেন। গেইল আউট হন ১০ বলে ১২ রান করে।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.