করোনায় স্পেনে তরুণ ফুটবল কোচের মৃত্যু

যে বয়সে ফুটবল পায়ে সবুজ ঘাসে দৌড়ানোর কথা ছিল ফ্রান্সিসকো গার্সিয়ার, সে বয়সে তিনি বেছে নিলেন প্রশিক্ষকের চাকরি। অর্থ্যাৎ, ক্যারিয়ারটাই শুরু করেছেন তিনি ফুটবল কোচ হিসেবে। কিন্তু কে জানতো, ক্যারিয়ারটা প্রস্ফুটিত হওয়ার আগেই ঝরে যাবে!

প্রাণঘাতি করোন ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েই না ফেরার দেশে চলে গেছেন স্পেনের মাত্র ২১ বছর বয়সী ফুটবল কোচ ফ্রান্সিসকো গার্সিয়া। বিশ্বব্যাপি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতদের মধ্যে অন্যতম কম বয়সী হিসেবে মৃত্যুবরণ করেছেন তিনি।

শুধু করোনা ভাইরাসই নয়, মারাত্মক লিউকোমিয়ায়ও আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর হাসাপাতালে নিলে উচ্চতর পরীক্ষা-নীরিক্ষার পর ডাক্তাররা নিশ্চিত হন, তিনি লিউকোমিয়ায়ও আক্রান্ত।

গার্সিয়া ২০১৬ সাল থেকেই কাজ করতেন মালাগাভিত্তিক ক্লাব অ্যাটলেটিকো পোর্টাডা আল্টার সঙ্গে। অর্থ্যাৎ, ১৭ বছর বয়স থেকেই কোচিংয়ের সঙ্গে যুক্ত গার্সিয়া। ক্লাবটির জুনিয়র দল পরিচালনা করতেন তিনি।

স্পেনে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে ৩০০’রও বেশি ব্যক্তি মৃত্যুবরণ করেছেন। মালাগা অঞ্চলে মৃতদের মধ্যে গার্সিয়া হলেন ৫ম ব্যক্তি। কিন্তু যখন ৭০ কিংবা ৮০ বছর বয়সী বৃদ্ধরা এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বেশি মৃত্যুবরণ করছে, সেখানে মাত্র ২১ বছর বয়সী গার্সিয়াও ঢলে পড়লেন মৃত্যুর কোলে!

বয়স কম হওয়ার কারণে, সবাই ধরে নিয়েছিল করোনার সঙ্গে লড়াই করে টিকে যাবেন গার্সিয়া। কিন্তু হাসাপাতালে আনার পর দেখা গেলো তিনি লিউকোমিয়ায়ও আক্রান্ত। এরপর ডাক্তাররা অনেক চেষ্টার পরও রক্ষা করতে পারলেন না তার জীবন। ডাক্তারদের দাবি, লিউকোমিয়ায় আক্রান্ত না হলে হয়তো বেঁচে যেতেন গার্সিয়া।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.