খেলার অনুমতি পেলেন ‘কেঁদে বুক ভাসানো’ সেই শাহজাদ

গত বছরের আগস্টে আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে হঠাৎই অনির্দিষ্টকালের জন্য নিষিদ্ধ করা হয় মোহাম্মদ শাহজাদকে। কিন্তু কি ভুল করেছেন উইকেটরক্ষক এই ব্যাটসম্যান, সেটি তখন লোকসম্মুখে জানায়নি আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (এসিবি)।
পরে জানানো হয়, অনুমতি ছাড়া দেশের বাইরে ভ্রমণ ও পাকিস্তানে অবস্থান করায় বোর্ডের কোড অফ কন্ডাক্ট ভেঙেছেন শাহজাদ। তাই এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হলো তাকে।
এর আগে ২০১৯ বিশ্বকাপের মাঝপথে হাঁটুর চোটের কারণ দেখিয়ে দেশে ফিরিয়ে নেয়া হয় শাহজাদকে। কিন্তু আফগান উইকেটরক্ষক তখন দাবি করেন, তার কোনো চোট নেই।
শুধু তাই নয়, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লাইভে এসে রীতিমত কান্নায় ভেঙে পড়েন শাহজাদ। দল থেকে তাকে ষড়যন্ত্র করে বাদ দেয়া হয়েছে, এমন অভিযোগও তুলেন। তার দাবি ছিল, বোর্ডের কিছু লোক ষড়যন্ত্র করে এমন কাজ করেছে। এই কথা বলার পর বোর্ডের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ একজন ক্রিকেটারের সম্পর্ক কোথায় গিয়ে ঠেকে, অনুমান করাই যায়।

তবে একটা সময় শাহজাদ নিজের ভুল বুঝতে পারেন। বোর্ডের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের আবেদন করেন। অবশেষে মন গলেছে আফগান বোর্ডের। মারকুটে এই উইকেটরক্ষকের খেলার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তই নিয়েছে তারা।
আজ (বুধবার) এক টুইট বার্তায় আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড বলেছে, ‘এসিবির ডিসিপ্লিন কমিটি উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ শাহজাদের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে। বোর্ড চেয়ারম্যান ফারহান ইউসুফজাই ক্ষমা চেয়ে করা তার আবেদন গ্রহণ করেছেন। তবে বোর্ডের সঙ্গে চুক্তির নিষেধাজ্ঞা ২০২০ সালের আগস্ট পর্যন্ত বহাল থাকবে।’
অস্ট্রেলিয়ায় চলতি বছরের শেষদিকে আছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। নিষেধাজ্ঞামুক্ত হওয়ায় এখন এই বিশ্বকাপের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে পারবেন শাহজাদ।
দীর্ঘদিন ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে আছেন ৩৩ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান। এর মধ্যে বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট জিতেছে আফগানিস্তান। তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে জিতেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতো পরাশক্তির বিপক্ষে।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.