মেয়েদের বিশ্বকাপে সবার ‘ক্রাশ’ বাংলাদেশের জাহানারা

ক্যানবেরা, ২৮ ফেব্রুয়ারি- ম্যাচটা ছিল ভারতের বিপক্ষে। মাঠে খেলছিলেন জাহানারা আলম। ওদিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাঁকে ঘিরে চলছিল আলোচনা। চোখে কী ব্যবহার করেন জাহানারা? দেখতে তো কাজল চোখের হরিণী লাগে!
বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা জাহানারাকে এভাবে দেখতেই অভ্যস্ত। টানা টানা চোখে গাঢ় করে ‘আইলাইনার’ মেখে মাঠে নামেন নারী ক্রিকেট দলের এ পেসার। অনেকে ভেবে নেন কাজল। একেবারে ভুলও না। মেয়েদের ফ্যাশনে আইলাইনার ও কাজল প্রায় সমগোত্রীয়। সে যা–ই হোক, এবার নারী বিশ্বকাপে আইলাইনারে সাজানো জাহানারার চোখে মজেছেন অনেকেই। সহজ কথায়, মেয়েদের বিশ্বকাপের মাঝে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে জাহানারা এখন ‘ক্রাশ’।
বিবিসি টেস্ট ম্যাচ স্পেশালের কথাই ধরুন। বিবিসির এই ‘আইকনিক’ ক্রিকেট ধারাভাষ্য টুইটার পেজও জাহানারার এই আইলাইনারে সাজানো চোখ নিয়ে আগ্রহী। ২৬ বছর বয়সী এ পেসারের একটি ছবি তারা পোস্ট করেছে টুইটারে। বাংলাদেশের জার্সি পরে আইলাইনারে টানা জাহানারার ভ্রমরকালো চোখের ছবি। ক্যাপশনে তারা লিখেছে, ‘জাহানারার যুদ্ধ-সাজ। কেউ বলতে পারবেন, সে কোন আইলাইনার ব্যবহার করে যা ঘামকে কাঁচকলা দেখায়?’
মাঠে দৌড়াদৌড়িতে শরীরে জমা ঘামে আইলাইনারের রং বেশিক্ষণ টেকার কথা না। কিন্তু এই নারী বিশ্বকাপে বাংলাদেশের ম্যাচের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত জাহানারাকে একইভাবে দেখা যাচ্ছে। যেভাবে আইলাইনার মেখে মাঠে ঢুকছেন, মাঠ ছাড়ছেনও একই সাজে। এটাই আশ্চর্য করেছে অনেককে। মেলিন্ডা ফ্যারেলের কথাই ধরুন। অস্ট্রেলিয়ার এ খ্যাতিমান ক্রিকেট সংবাদকর্মীও টুইট করেছেন জাহানারার কাজল চোখ নিয়ে। ‘জীবনে এই একটা জিনিসই খুঁজে বের করতে চাই। জাহানারা কোন ব্র্যান্ডের অমোচনীয় আইলাইনার ব্যবহার করে, ওর মতো একটু হলেও ব্যবহার করে দেখতে চাই।’

অ্যালেক্স ব্রাউন নামে ফ্যারেলের এক টুইটার অনুসারী সেখানে মন্তব্য করেন, ‘সে হয়তো এভাবেই জন্মেছে।’ অভিষেক শর্মা নামে এক অনুসারীর মন্তব্য, ‘উপমহাদেশে এই আইলাইনারকে বলা হয় সুরমা। এটা খারাপ কোনো কিছু থেকে রক্ষা করে বলে বিশ্বাস করা হয়।’
মন্দাকিনি নামে এক ভারতীয় অনুসারী ফ্যারেলের টুইটে মন্তব্য করেন, ‘প্রাসঙ্গিক প্রশ্ন। সব খেলোয়াড়ের মধ্যে সে সবচেয়ে স্টাইলিশ। সবার মনোযোগ কেড়ে নেয় এবং আমার অফিসে ক্রিকেটারদের মধ্যে তাঁকে নিয়েই বেশি আলোচনা হয়।’ ডমিঙ্গোজ আরাউজো নামে আরেক অনুসারীর মন্তব্য করেন, ‘ভেবেছিলাম এটা শুধু আমিই জানতে চাই। এবার তুমিও।’ আরেক অনুসারীর মন্তব্য, ‘যা–ই বলুন, ম্যাচের ক্রাশ ছিলেন জাহানারাই।’ ফ্যারেল সেখানে আইলাইনার নিজের সমস্যার কথাও লিখেছেন, ‘আমি লাগালে ঘামলেই তা ভিজে-গলে গলায় নেমে আসে।’
অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের সর্বশেষ ম্যাচেও আলোচনা হয়েছে জাহানারার হরিণ কাজল চোখ নিয়ে। অস্ট্রেলিয়ার জেমি অ্যান্ডারসন নামে টুইটার ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘জাহানারার আইলাইনার আমাকে নতুন জীবন দিচ্ছে।’ সুবিক্ষা রমন নামে ভারতীয় টুইট করেন, ‘জাহানারা আলমের ডানা মেলা আইলাইনার খুব ভালোবাসি।’ ভারতের বিপক্ষে ম্যাচেই ‘সিলি পয়েন্ট’ নামে টুইটার ব্যবহারকারীর টুইট, ‘মানি না। ম্যাচসেরার পুরস্কার পাওয়া উচিত জাহানারার।’
অস্ট্রেলিয়ায় মেয়েদের বিশ্বকাপে দুই ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ এখনো জেতেনি। জাহানারাও কোনো উইকেটের দেখা পাননি। তবে আইলাইনারে সাজানো হরিণ কাজল চোখ দিয়ে জাহানারা যে অনেকেরই মন জিতেছেন, সে কথা বলাই বাহুল্য।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.