লড়াই করে ইংল্যান্ডের কাছে হারলো পাকিস্তান

সাউদাম্পটনে রান উৎসব করলো ইংল্যান্ড ও পাকিস্তান। কিন্তু শেষ হাসি হাসলো ইংলিশরা। জস বাটলারের ঝড়ো সেঞ্চুরিতে গড়া ৩৭৪ রানের লক্ষ্যে নেমে লড়াই করে হারলো পাকিস্তানিরা। শনিবার দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ১২ রানে জিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেলো ইংল্যান্ড। প্রথম ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছিল।

শনিবার বাটলারের ৫০ বলের সেঞ্চুরির সঙ্গে জেসন রয়, জনি বেয়ারস্টো ও এউইন মরগানের হাফসেঞ্চুরিতে ৩ উইকেটে ৩৭৩ রান করে স্বাগতিকরা। জবাবে ফখর জামানের দারুণ শতক অস্বস্তি তৈরি করেছিল স্বাগতিকদের মনে। কিন্তু রানের বিশাল পাহাড়ে উঠতে ব্যর্থ পাকিস্তান, ৭ উইকেটে ৩৫১ রানে থামে তারা।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে জেসনের সঙ্গে ১১৫ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়েন বেয়ারস্টো। ৬ চারে ৪৪ বলে হাফসেঞ্চুরি করার পরের বলেই আউট হন এই ওপেনার। ১৩ রানের জন্য সেঞ্চুরিবঞ্চিত হন জেসন, তার ৮৭ রান এসেছে ৯৮ বলে।

জো রুট ৪০ রানে আউট হলে ক্রিজে ছড়ি ঘোরান মরগান ও বাটলার। ১৬২ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন তারা। দুজনে পাল্লা দিয়ে রান করেছেন। তবে বেশি মারকুটে ছিলেন বাটলার। ৪টি চার ও ৯টি ছয়ে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় দ্রুততম সেঞ্চুরি করেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। তার ৫৫ বলে ১১০ রানের অপরাজিত ইনিংসে ছিল ৬ চার ও ৯ ছয়। মরগান অপরাজিত ছিলেন ৭১ রানে। তার ৪৮ বলের ইনিংস সাজানো ছিল ৬টি চার ও একটি ছয়ে।

পাকিস্তানের পক্ষে একটি করে উইকেট নেন হাসান আলী, ইয়াসির শাহ ও শাহিন শাহ আফ্রিদি।

সাউদাম্পটনে রান উৎসব করলো ইংল্যান্ড ও পাকিস্তান। কিন্তু শেষ হাসি হাসলো ইংলিশরা। জস বাটলারের ঝড়ো সেঞ্চুরিতে গড়া ৩৭৪ রানের লক্ষ্যে নেমে লড়াই করে হারলো পাকিস্তানিরা। শনিবার দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ১২ রানে জিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেলো ইংল্যান্ড। প্রথম ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছিল।

শনিবার বাটলারের ৫০ বলের সেঞ্চুরির সঙ্গে জেসন রয়, জনি বেয়ারস্টো ও এউইন মরগানের হাফসেঞ্চুরিতে ৩ উইকেটে ৩৭৩ রান করে স্বাগতিকরা। জবাবে ফখর জামানের দারুণ শতক অস্বস্তি তৈরি করেছিল স্বাগতিকদের মনে। কিন্তু রানের বিশাল পাহাড়ে উঠতে ব্যর্থ পাকিস্তান, ৭ উইকেটে ৩৫১ রানে থামে তারা।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে জেসনের সঙ্গে ১১৫ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়েন বেয়ারস্টো। ৬ চারে ৪৪ বলে হাফসেঞ্চুরি করার পরের বলেই আউট হন এই ওপেনার। ১৩ রানের জন্য সেঞ্চুরিবঞ্চিত হন জেসন, তার ৮৭ রান এসেছে ৯৮ বলে।

জো রুট ৪০ রানে আউট হলে ক্রিজে ছড়ি ঘোরান মরগান ও বাটলার। ১৬২ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন তারা। দুজনে পাল্লা দিয়ে রান করেছেন। তবে বেশি মারকুটে ছিলেন বাটলার। ৪টি চার ও ৯টি ছয়ে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় দ্রুততম সেঞ্চুরি করেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। তার ৫৫ বলে ১১০ রানের অপরাজিত ইনিংসে ছিল ৬ চার ও ৯ ছয়। মরগান অপরাজিত ছিলেন ৭১ রানে। তার ৪৮ বলের ইনিংস সাজানো ছিল ৬টি চার ও একটি ছয়ে।

পাকিস্তানের পক্ষে একটি করে উইকেট নেন হাসান আলী, ইয়াসির শাহ ও শাহিন শাহ আফ্রিদি।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.