ঝালকাঠিতে ফুল বিক্রয়ে স্বাবলম্বী পাইকার ও খুচরা ব্যবসায়ীরা

পহেলা ফাল্গুন এবং বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে প্রতিবছরই ঝালকাঠিতে পাইকারি মোকাম ফুলচাষি ও ব্যবসায়ীদের পদচারণে সরগরম হয়ে ওঠে। এবারেও ব্যতিক্রম ঘটেনি। তাই তো বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে চলছে ফুল বিক্রয়ের ব্যস্ততা।

এছাড়াও ব্যবসায়ীরা এসব ফুল নিয়ে বরিশাল, ঢাকা, চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন জায়গার পাইকারি ও খুচরা বাজারে বিক্রি করে থাকেন। ঝালকাঠির মোকাম থেকে দূর-দূরান্তের পাইকারদের কিনে নেওয়া গোলাপ, জারবেরা, গ্লাডিওলাস, রজনীগন্ধা ও গাঁদা ফুল বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার সারা দেশের খুচরা বাজারে বিক্রি হবে এসব ফুল।

ঝালকাঠির এই ফুলের মোকামে গতকালও ছিল ফুলচাষি ও পাইকারী ব্যবসায়ীদের কাছে মৌসুমের সবচেয়ে ব্যস্ততম দিন। কারণ, পয়লা ফাল্গুনের আগের দিনই এখানে বছরের সবচেয়ে বড় হাটটি বসে। এদিনই হয় বছরের সর্বোচ্চ কেনাবেচা ফুল ব্যবসায়ীদের। বরাবরের মতো এবারেও তাই হয়েছে। সাধারণত সকাল ৮টার মধ্যে ঝালকাঠির গালর্স স্কুল মোড় মোকামে কেনাবেচা শেষ হয়ে যায়। কিন্তু আজ সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত কৃষক ও ব্যাপারীরা ফুল কেনাবেচা করছেন। 

জানতে চাইলে এক ফুল বিক্রেতা বলেন, ‘দুটি দিবস (পয়লা ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবস) উপলক্ষে প্রতিটি গোলাপ ৬ থেকে ১০ টাকা, জারবেরা ৫ থেকে ৮ টাকা, গ্লাডিওলাস ৫ থেকে ১০ টাকা ও রজনীগন্ধার প্রতিটি ডাটা ২ থেকে সাড়ে ৩ টাকা পাইকারি দরে বেচাকেনা হয়েছে। সূর্যের আলো উঁকি দেওয়ার আগেই এখানকার কৃষকেরা ফুল তুলে হাটে নিয়ে যান। সেই ফুল কিনে ব্যাপারীরা পাঠিয়ে দেন দেশের বিভিন্ন জায়গায়।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.