জার্মানিতে শতবর্ষী নাৎসি নিরাপত্তারক্ষীর কারাদণ্ড

নাৎসি জার্মানির বন্দিশিবিরের সাবেক একজন নিরাপত্তারক্ষীর পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে।

 

দণ্ডিত ওই ব্যক্তির নাম জোসেফ এস। বয়স ১০১ বছর। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, বার্লিনের কাছে স্যাক্সেনহাউসেনে কয়েক হাজার বন্দীকে হত্যার ক্ষেত্রে সাহায্য করেছিলেন তিনি।

জার্মান আদালতে কখনো কোনো শতবর্ষী নাৎসি অপরাধী বিচারের মুখোমুখি হননি।

তবে বন্দিশিবিরে এসএস গার্ড থাকার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে আসছেন জোসেফ। নাৎসি জার্মানির ওই বন্দিশিবিরে ৩ হাজার ১৫৮ জন বন্দীকে হত্যায় সহায়তা ও প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে তিনি আদালতে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন।

আদালতে প্রমাণিত হয়েছে, দণ্ডিত জোসেফ তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের যুদ্ধবন্দীদের গুলি করে এবং জাইক্লন বি গ্যাস দিয়ে অন্যদের হত্যার সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তবে জোসেফের আইনজীবীরা তাঁকে বেকসুর খালাস দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। কারাদণ্ডের বিরুদ্ধে আপিল করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাঁরা।

 

শতবর্ষী নাৎসি নিরাপত্তারক্ষী

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালে স্যাক্সেনহাউসেনে নাৎসি বন্দিশিবিরে অনাহার, জোরপূর্বক শ্রম, বিভিন্ন ধরনের মেডিকেল পরীক্ষা-নিরীক্ষা, এসএস গার্ড গ্রুপের হাতে হাজারো বন্দীর মৃত্যু হয়েছিল। সেখানে দুই লাখের বেশি বন্দী ছিল। এর মধ্যে রাজনৈতিক বন্দীরা যেমন ছিলেন তেমনি ছিলেন ইহুদি, রোমা ও জিপসিরাও।

বার্লিনের পশ্চিমের একটি শহর ব্রান্ডেনবার্গ আন ডার হ্যাভেলের একটি আদালত জোসেফকে এই দণ্ড দিয়েছেন। আদালতে রায় ঘোষণার সময় শেষবারের মতো এ নিয়ে একটি বিবৃতি দিয়ে জোসেফ বলেন, ‘আমি জানি না কেন আমি এখানে এই পাপের স্তূপে বসে আছি। প্রকৃতপক্ষে এটা নিয়ে আমার কিছুই করার ছিল না।’

 

শতবর্ষী নাৎসি নিরাপত্তারক্ষী

বিচারক উডো লেচটারমান জোসেফকে বলেন, ‘জোসেফ অভিযোগ অস্বীকার করলেও আদালত প্রমাণ পেয়েছে ১৯৪২ থেকে প্রায় তিন বছর বন্দিশিবিরে কাজ করেছিলেন। আপনি স্বেচ্ছায় আপনার পেশাগত জায়গা থেকে এই গণহত্যাকে সমর্থন করেছিলেন।’

 

জার্মানিশতবর্ষী 

শতবর্ষী

সিরিয়ায় আল-কায়েদাসংশ্লিষ্ট নেতাকে হত্যার দাবি যুক্তরাষ্ট্রের

দ্রৌপদী মুর্মুর মনোনয়নে বিজেপি যেভাবে বিজয়ী

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.