নবজাতকের কপালে ৯ সেলাই

ফরিদপুরে সিজার করাতে গিয়ে নবজাতকের কপাল কেটে ফেলেছে নার্স ও আয়া।

 

শনিবার সকালে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সামনের আল-মদিনা প্রাইভেট হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। ওই শিশুর কপালে ৯টি সেলাই দেওয়া হয়েছে।

সেলাই

পরে রোগীর স্বজনরা থানায় অভিযোগ দিলে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশ গিয়ে চায়না বেগম নামের ওই হাসপাতালের নার্স, হাসপাতালের পরিচালক পলাশ ও এক দালালকে আটক করে।

 

জানা গেছে, রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার মইজুদ্দিন মাতব্বর পাড়ার শফিক খানের স্ত্রী রুপা বেগমকে শনিবার ভোরে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়।

সেলাই

সকালে হাসপাতালের সামনে অপেক্ষা করছিল তারা। পরে দালালদের কথায় আল-মদিনা প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করে তারা। সেখানে সিজার করার সময় নবজাতকের কপালের একটি অংশ কেটে ফেলে নার্স ও আয়ারা।

 

ফরিদপুর সদরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুদুল আলম জানান, এ জাতীয় ঘটনা কাম্য নয়। আমরা ইতিমধ্যে হাসপাতাল থেকে তিনজনকে আটক করেছি। এ ব্যাপারে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ফরিদপুর সদর উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফাতেমা করিম বলেন, বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের এ ধরনের উদাসীনতা মেনে নেওয়া হবে না। আমরা একটি তদন্ত কমিটি গঠন করবো। দোষীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

ফরিদপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন রঞ্জন কর জানান, প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পেয়ে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক, আয়া ও এক দালালকে আটক করেছি। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

 

 

 

আরও পড়ুন

শিক্ষা  অপরাধ  স্বাস্থ্য  অর্থনীতি  রাজনীতি  আন্তর্জাতিক  খেলাধুলা  লাইফস্টাইল  সারাদেশ

নবজাতকের

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.