নৌকা পেলেন বহিষ্কৃত নেতা

যশোরের শার্শা উপজেলার নিজামপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বহিষ্কৃত আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল ওহাবকে নৌকার মনোনয়ন দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

গত ইউপি নির্বাচনে তিনি বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে প্রচার-প্রচারণা অংশ নেয়ায় জেলা আওয়ামী লীগ বহিষ্কার করে। সেই বহিষ্কৃত নেতাকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ায় হতাশ তৃণমূল।

সোমবার প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ তুলেছেন গত নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নিজামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য সেলিম রেজা বিপুল।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে নৌকার মনোনয়ন পাওয়া আবদুল ওহাব বলেন, গত নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে ভোট করিনি। বহিষ্কারের তথ্য সঠিক নয়।

গত ৫ বছরে বহিষ্কার সংক্রান্ত কোনো চিঠি আমি পাইনি। ২০১২ সাল থেকে অদ্যাবধি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছি।

সংবাদ সম্মেলনে সেলিম রেজা বিপুল অভিযোগ করেন, গত ২০১৬ সালে ইউপি নির্বাচনে সেলিম রেজা বিপুল নৌকা প্রতীক বরাদ্দ পান। জামায়াত-বিএনপির সঙ্গে আঁতাত করে বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ জয়ী হন।

ওই নির্বাচনে সরাসরি নৌকার বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে নৌকার পরাজয়ে ভূমিকা রাখেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল ওহাব। এজন্য যশোর জেলা আওয়ামী লীগ থেকে ওই সময় আব্দুল ওহাবকে বহিষ্কার করা হয়।

তিনি বলেন, ২০১৬ সালের মে মাসে জেলা আওয়ামী লীগের তৎকালীন দপ্তর সম্পাদক এসএম মাহমুদ হাসান বিপু তাকে বহিষ্কারের বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় পত্রিকায় বিবৃতি দেন।

কিন্তু সেই আব্দুল ওহাবকে এবারের নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্পষ্ট বার্তা থাকার পরেও একজন বহিষ্কৃত নেতাকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ায় নিজামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা হতাশ হয়েছেন, ক্ষুব্ধ হয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- নিজামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আশরাফ আলী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আইয়ুব সরদার, সাবেক সহসভাপতি ও বর্তমান সদস্য আব্দুল হাই দফাদার, আইন বিষয়ক সম্পাদক বাবুল হোসেন, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান, ইউনিয়ন কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক নূর মোহাম্মদ, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন হোসেন প্রমুখ।

 


 

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.