বাসচালক ও হেলপার মিলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

হালুয়াঘাটে বাসের ড্রাইভার ও হেলপার কর্তৃক ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক স্কুলছাত্রী।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর বাবা মঙ্গলবার রাতে বাসচালক হেলাল উদ্দিন , বাসের হেলপার জয়নাল ও মোটরসাইকেল চালক রাকিবকে আসামি করে হালুয়াঘাট থানায় গণধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।

এই ঘটনায় পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রী সোমবার দুপুর আড়াইটার দিকে নজরুল সেনা স্কুল সংলগ্ন এলাকায় প্রাইভেট পড়ার উদ্দেশ্যে বাসা থেকে বের হয়। প্রাইভেট শেষে ব্রিজে এসে হালুয়াঘাট উপজেলার কালিয়ানীকান্দা গ্রামে মামার বাড়ির উদ্দেশ্যে একটি বাসে ওঠে ।

স্কুলছাত্রী বাসচালক হেলাল উদ্দিনের কাছে কালীয়ানীকান্দা তার মামার বাড়ির ঠিকানা বললে বাসচালক হেলাল বলেন, হেলপার জয়নাল কালীয়ানীকান্দা যাবে, তুমি তার সঙ্গে যাও।

স্কুলছাত্রী সরল বিশ্বাসে জয়নালের সঙ্গে ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেলে রওনা দেয়। কিন্তু মোটরসাইকেল চালক রাকিব কালীয়ানীকান্দা না গিয়ে বিরগুছিনাস্থ তার বাড়ির কাছে গিয়ে থামে। পরে রাকিবের বাড়ির পেছনে পুকুরপাড়ে জোরপূর্বক দুইজন মিলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়। কিছুক্ষণ পর বাসচালক হেলাল সেখানে উপস্থিত হয়ে তিনিও ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন।

মঙ্গলবার ভোর ৬টায় ধর্ষক রাকিব স্কুলছাত্রীকে নিয়ে তার বাড়ির গেটে ডাকাডাকি করতে থাকলে স্কুলছাত্রীর বাবা মেয়েকে ঘরে নিয়ে যান। ঘটনার বর্ণনা শুনে রাতেই হালুয়াঘাট থানায় মামলা দায়ের করেন তিনি।

এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হালুয়াঘাট থানার ওসি ইমরান আল হোসাইন বলেন, এ ঘটনায় প্রধান আসামি বাসচালক হেলাল উদ্দিনকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।বাকিদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.