চোখের জলে বাবাকে বিদায় মেয়ে স্বস্তিকার

দীর্ঘদিন ধরে ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ ছিলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ের বাবা বর্ষীয়ান অভিনেতা সন্তু মুখোপাধ্যায়। গতকাল সন্ধ্যায় নিজের গলফগ্রিনের বাসভবনেই তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর। রাত ১১ টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয় অভিনেতার শবযাত্রা। 

শেষযাত্রায় বাবাকে বিদায় জানাতে গিয়ে প্রায় কান্নায় ভেঙে পড়েন কন্যা স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। 

প্রবীণ অভিনেতার প্রয়াণের খবর প্রকাশ্যে আসতেই শোকের ছায়া টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে। গতকাল রাতেই শোকবার্তা জ্ঞাপন করেছেন মাধবী মুখোপাধ্যায়, কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়-সহ আরও অনেকে। সহকর্মীর মৃত্যুতে স্মৃতিমেদুর সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের গলা যেন বুজে আসছিল। নস্ট্যালজিয়ায় ভেসে সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন সিনেমার সেটেই সন্তু মুখোপাধ্যায়কে আইবুড়ো ভাত খাওয়ানোর কথা। 

অভিনেত্রী মানালী মণীষা দে, যিনি কিনা ‘নকশীকাঁথা’ ধারাবাহিক ও শিবু-নন্দিতার ‘গোত্র’তে সন্তু মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে স্ক্রিনস্পেস শেয়ার করেছেন তিনি বললেন, “কত বড় মাপের অভিনেতা, কিন্তু কিছু ভুল হলে কী সুন্দর শিখিয়ে দিতেন। খুব মজার মানুষ ছিলেন।” 

পায়েল সরকার যিনি কিনা ক্যারিয়ারের একেবারে গোড়ার দিকে সন্তু মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে অভিনয় করার সুযোগ পেয়েছিলেন, তার কথায়, “আমাদের ইন্ডাস্ট্রির জন্য অপূরণীয় ক্ষতি।”

সহকর্মী মাধবী ও সাবিত্রী বিষাদমাখা সুরে অতীতের অনেক অজানা কথাই জানিয়েছেন। সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়ের কথায়, “ওর সঙ্গে কত মজা করেছি। এত ভাল অভিনেতা ছিল ও। মানুষটা চলেই গেল।”

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.