‘যেভাবে তিনি গায়ে হাত দিয়েছিলেন, মনে হয়েছিল রেপড হয়ে যাব!’

হলিউড, বলিউডের পর এবার #মিটু-র ঝড় উঠল টলিউডেও। পরিচালক অরিন্দম শীলের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ তুললেন জনপ্রিয় টেলি অভিনেত্রী রূপাঞ্জনা মিত্র। 

তিনি বলেন, যেভাবে অরিন্দম আমার সঙ্গে কথা বলছিলেন এবং আমার গায়ে হাত দিয়েছিলেন তাতে আমি বুঝে গিয়েছি তিনি কী করতে পারেন। মনে হয়েছিল রেপড হয়ে যাব! পরিচালকের বিরুদ্ধে একের পর এক বোমা ফাটালেন রূপাঞ্জনা। 

অভিনেত্রী বললেন, তার অফিসে স্ক্রিপ্ট পড়ে শোনানোর বাহানায় এই জঘন্য কাজ তিনি করেছিলেন।

সম্প্রতি এক সাক্ষাতকারে নিজের সঙ্গে ঘটে যাওয়া ঘটনা নিয়ে মুখ খুললেন তিনি। রূপাঞ্জনা বললেন, ‘অরিন্দম পরিচালিত ‘ভূমিকন্যা’ সিরিয়ালে প্রথম এপিসডের স্ক্রিপ্ট শোনানোর জন্য আমাকে তার অফিসে ডাকা হয়েছিল। অফিসে পৌঁছে দেখি, পুরো অফিস ফাঁকা। হঠাৎ করে সে নিজের জায়গা থেকে উঠে একটা কাউচে বসলেন। তিনি এমন আচরণ করতে লাগলেন যা বলার অপেক্ষা রাখে না। হাত বাড়িয়ে আমাকে ডাকছে।’

এরপর অভিনেত্রী আরও জানালেন,’ যখন তিনি কাউচে বসতে গেলেন তখন যাওয়ার আগে আমার মাথায়, পিঠে হাত বুলোলেন। আমি বুঝতে পেরে গেছি এরপরে কী হতে চলেছে। কারণ, তখন অফিসে আমরা দুজন ছাড়া আর কেউ ছিলাম না। মনে হচ্ছিল আমি রেপড হয়ে যাব। এরপর তাকে স্পষ্ট ভাষায় বললাম, ”অরিন্দমদা, প্লিজ টেল মি অ্যাবাউট দ্য স্ক্রিপ্ট।” তিনি হয়তো বুঝে গেলেন আমি এই ধরণের আচরণ মোটেই পছন্দ করছি না। এরপর আমাকে স্ক্রিপ্ট বোঝাতে লাগলেন। হঠাৎ করেই সেখানে অরিন্দমের স্ত্রী এসে যায়। তিনি হয়ত জানতেন না অফিসে আমরা দুজন আছি। নিমিষের মধ্যে সে বদলে ফেলে আচরণ। একেবারে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে বউয়ের ভক্ত হয়ে যায়।’

এতদিন পর মুখ খোলার কারণ হিসেবে তিনি বলেন,  ‘ঘটনাটার এক বছর কেটে গেছে। তখন মুখ খুলিনি কারণ আমি ওই বেসরকারি চ্যানেলটির সঙ্গে কনট্র্যাক্টে ছিলাম। তাহলে চ্যানেলটির নাম খামোকা জড়িয়ে যেত। দ্বিতীয়ত, মানসিকভাবে এতটাই ভেঙে পড়েছিলাম যে, ভেবে পাচ্ছিলাম না কী করব! ডিপ্রেশনে চলে গিয়েছিলাম। এখন মনে হল এই সব মানুষের মুখোশ খুলে দেওয়া দরকার। আজ আমাকে প্রস্তাব দিয়েছে। কাল নতুন কোনও মেয়েকে একই প্রস্তাব দেবে।’

এই প্রসঙ্গে পরিচালককে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘এ সমস্ত পলিটিক্যাল স্টান্ট। জানি না কেন এধরণের কথা বলছে। আমার এতদিনের বন্ধু ও। যেদিনের কথা বলছে সেদিন অফিস থেকে বেরিয়ে নীলাঞ্জনা আমায় টেক্সট করে জানায়, ‘আই অ্যাম সো এক্সসাইটেড। একসঙ্গে ওয়ার্কশপ করতে হবে কিন্তু। চাইলে সেই টেক্সটা আমি দেখাতে পারি। সম্পূর্ণ মিথ্যে বলছে সে।’

উল্লেখ্য, অরিন্দম শীল ২০১৩ সাল থেকে পরিচালনায় নিয়মিত হন। আবর্ত (২০১৩), এবার শবর (২০১৫), হর হর ব্যোমকেশ (২০১৫), স্বাদে আহ্লাদেসহ (২০১৫) বেশ কয়েকটি ছবি পরিচালনা করেছেন। সুতরাং, #মিটু-র মতো গুরুত্বপূর্ণ অভিযোগ তাঁর বিরুদ্ধে ওঠায় কিছুটা হলেও অস্বস্তিতে পড়েছেন তিনি।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.