যে নাটক দেখে কাঁদছেন প্রবাসীরা

ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ইউটিউবে প্রকাশ পেয়েছে ‘মাগো আমি বিদেশ যাব’ শিরোনামের নাটক। জীবীকার টানে দেশ ছেড়ে বিদেশ যাওয়ার মর্মস্পর্শী এক গল্প ফুটে উঠেছে এ নাটকে। এতে মা-পুত্রের চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকের মন ছুঁয়ে দিলেন মুনীরা মিঠু ও শামীম হাসান সরকার।
মো. সাইফুর রহমান কাজলের রচনায় নাটকটি নির্মাণ করেছেন সাখাওয়াত মানিক। গেল ১২ ফেব্রুয়ারি রাতে ডিমার্স ক্রিকেশনের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশের পর থেকেই দর্শকদের ব্যপক সাড়া পাচ্ছে নাটকটি। পরিচালক বলেন, পরিবার ও আপনজন ছেড়ে সন্তান বিদেশ যাওয়ার অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে এ নাটকে।
এই নাটকে মিঠু-শামিম ছাড়া আরও অভিনয় করেছেন পায়েলিয়া পায়েল, তাহমিনা কৃতিকা, আজম খানসহ অনেকে। তাদের মধ্যে মা ও পুত্রের চরিত্রে শামিম-মিঠুর অভিনয় প্রশংসায় ভাসছে। মন ভরিয়েছেন তাহমিনা কৃতিকাও।
এর মধ্যেই ইউটিউবে নাটকটির দর্শক ভিউ দায়িয়েছে সাড়ে ৩ লাখের মত। পাশাপাশি এখন পর্যন্ত মন্তব্য করেছেন দুই হাজারেরও বেশি দর্শক। এর মাঝে প্রবাসী বাঙালিদের মন্তব্য চোখে পড়ার মত।

মন্তব্যের ঘরে আল আমিন নামে এক দর্শক লিখেছেন, ‘জীবনে কখনো নাটক কিংবা সিনেমা দেখে কাঁদিনি কিন্তু এ নাটকটা দেখে চোখের পানি ধরে রাখতে পারি নাই। আদরের ছোট বোনটার কথা মনে পরে গেল। মাকে অনেক মিস করি। আমি নিজে খাবারের প্লেটটা ধুয়ে খাইনি সেই আমি নিজে রান্না করে খাই। শুধুমাত্র ফ্যামিলির দিকে তাকিয়ে ফ্যামিলিকে একটু সুখ দেওয়ার জন্য হায়রে প্রবাসী সকল প্রবাসী কে হাজার হাজার সালাম আমি সৌদি আরব প্রবাসী।’

আব্দুর রাজ্জাক লিখেছেন, ‘প্রত্যেকটা বাবা-মা চায় তার ছেলে বিদেশে গিয়ে টাকা কামাই করে সুন্দর একটা ভবিষ্যৎ গড়বে। আর প্রত্যেকটা ছেলে চায় ফ্যামিলির মঙ্গলের জন্য বিদেশে গিয়ে টাকা কামাই করে তার বাবা মাকে সুখে রাখবে, ফ্যামিলিকে সুখে রাখবে। এরই নাম প্রবাস। অসাধারণ হয়েছে, ধন্যবাদ পরিচালক ভাইকে।’
রফিক নামে এক প্রবাসী দর্শক মন্তব্য করেছেন, ‘তিন বছর আগের কথা মনে পরে গেলো! সবাই এক গাড়ি দিয়ে এয়ারপোর্ট গেটে আসলাম। পুলিশ সবাইকে নামিয়ে দেয়। শুধু আমার সাথে একজন উপরে যেতে পারবেন। তখন আমার মা বলতেছে আমি যাব আমার ছেলে সাথে। আমার মায়ের কষ্ট দেখে আমি না বলতে পারি নাই। আবার যখন আমি ভিতরে ঢুকে যাই, মার চোখ দিয়ে পানি ঝরতেছে কলিজাটা ফাইটা গেছে। ভাই এমন নাটক দরকার নাই। যে নাটক দেখে চোখ দিয়ে পানি আসে। স্যরি ভাই।’
ওয়াসিম আকরাম লিখেছেন, ‘চিৎকার করে বলতে ইচ্ছে করছে, মা তুমি কি একটিবারও আমাকে ফেরাতে
পারলে না। নাটকটির নির্মাতা শাখাওয়াত মানিক জানান, দর্শকদের এমন ভালোবাসায় সত্যিই আমি মুগ্ধ। এমন ভালোবাসা নিজেকে কাজের প্রতি আরো দায়িত্বশীল করে দেয়।’

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.