ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার বিরুদ্ধে দুদকের চার্জশিট

সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করায় দুর্নীতি দমন কমিশনের পাল্টা মামলায় সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার বিরুদ্ধে কমিশন চার্জশিট দাখিল করেছে।

সম্প্রতি ঢাকার সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করেন দুদকের পরিচালক মো. বেনজীর আহম্মেদ। চার্জশিট গ্রহণের বিষয়ে শুনানির জন্য ২৪ নভেম্বর দিন ধার্য করেন আদালত।

সোমবার ঢাকা মহানগর আদালতের দুদকের সাধারণ নিবন্ধন শাখায় কর্মকর্তা জুলফিকার আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে ৭ অক্টোবর এ অভিযোগপত্র অনুমোদন দেয় দুদক।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে নাজমুল হুদার বিরুদ্ধে নিষ্পত্তি হওয়া একটি মামলার রায় বদলে দেওয়া হয়েছে ও উৎকোচ চাওয়া হয়েছে এস কে সিনহার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করে ২০১৮ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর শাহবাগ থানায় মামলা করেন নাজমুল হুদা।

মামলার অভিযোগে সেসময় নাজমুল হুদা দাবি করেন, উচ্চ আদালতে ডিসমিস করার পরও প্ররোচিত হয়ে মামলাটির রায় পরিবর্তন করা হয়।

মামলাটি ডিসমিস করতে দু’কোটি টাকা এবং আরও একটি ব্যাংক গ্যারান্টির অর্ধেক অর্থাৎ এক কোটি ২৫ লাখ টাকা উৎকোচ দাবি করেন সিনহা। তবে দেড় বছরের তদন্তে নাজমুল হুদার এ অভিযোগের কোনো প্রমাণ পায়নি দুদক।

মিথ্যা অভিযোগ করায় গত বছরের ২০ ফেব্রুয়ারি নাজমুল হুদার বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা করেন দুদক পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন। আরেক পরিচালক মো. বেনজীর আহম্মেদকে এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হয়।

মামলার বিষয়ে তৎকালীন দুদকের সচিব মুহাম্মদ দিলোয়ার বখত বলেছিলেন, নাজমুল হুদা যে মামলাটি করেছেন, সেটি একেবারেই ভিত্তিহীন। দুদকের অনুসন্ধানেও আমরা সেটা প্রমাণ পেয়েছি।

দুদক আইনে কেউ যদি মিথ্যা তথ্য দিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন, আর সেটি যদি তদন্তে বেরিয়ে আসে, তাহলে অভিযোগ দায়ের কারীর বিরুদ্ধে মামলা করা যাবে।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

এমপি হিসেবে শপথ নিলেন শেরীফা কাদের

 

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের সদস্য হিসেবে শপথ ‍নিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা শেরীফা কাদের।

সোমবার স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী তাকে শপথ বাক্য পাঠ করান। শপথ গ্রহণ শেষে রীতি অনুযায়ী শপথ বইয়ে স্বাক্ষর করেন শেরীফা কাদের এমপি।

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসন নং-৩৪৫, মহিলা আসন-৪৫-এর শূন্য আসনে জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী শেরীফা কাদের এমপি হিসেবে শপথ নিয়েছেন।

গত ১৩ সেপ্টেম্বর জাতীয় পার্টির নেতা ও সাংসদ অধ্যাপক মাসুদা এম রশিদ চৌধুরী মারা গেলে সংসদে নারীদের জন্য সংরক্ষিত ৪৫ নম্বর আসনটি শূন্য হয়।

ওই আসনে দলীয় মনোনয়ন পেয়েই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হনন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের স্ত্রী শেরীফা।

শেরীফা কাদের জাতীয় পার্টির সাংস্কৃতিক উইং জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টির আহ্বায়ক এবং লালমনিরহাট জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

সুন্দরবন অঞ্চলে আর দস্যুবৃত্তি করতে দেওয়া হবে না, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিক নির্দেশনায় সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত ঘোষণা করতে পেরেছি। সুন্দরবন অঞ্চলে আর দস্যুবৃত্তি করতে দেওয়া হবে না।

এ এলাকায় র‌্যাবের একটি স্থায়ী ক্যাম্প স্থাপন করা হবে। যাতে এই অঞ্চলে নতুন করে আর বনদস্যু তৈরি বা যারা আত্মসমর্পণ করেছে তারা পূর্বের পেশায় ফিরে যেতে না পারে। একই সাথে কোস্টগার্ডকে আধুনিকায়নের মাধ্যমে আরও শক্তিশালী করা হবে।

সোমবার ১ নভেম্বর বাগেরহাটের রামপাল ডিগ্রি কলেজ মাঠে র‌্যাব আয়োজিত সুন্দরবন দস্যুমুক্ত দিবসের তৃতীয় বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত ঘোষণা করেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, এক সময় সুন্দরবনের জেলে বাওয়ালী ও মৌয়ালরা বনদস্যুদের হাতে জিম্মি এবং প্রায়ই বনদস্যুদের হাতে তাদের জীবন হারাতে হতো। দস্যুমুক্ত সুন্দরবনে এখন শান্তির সুবাতাস বইছে।

র‌্যাব মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন, খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি শামসুল হক টুকু, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেখ সালাহউদ্দিন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য পীর ফজলুর রহমান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন, পুলিশের আইজি ড. বেনজীর আহমেদ, খুলান বিভাগীয় কমিশনার মো. ইসমাইল হোসেন এনডিসি প্রমুখ। অনুষ্ঠানে র‍্যাব-৬ ও র‍্যাব-৮ এর অধিনায়কগন, বাগেরহাট জেলাসহ স্থানীয় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং উপকার ভোগী পুনর্বাসন সহায়তাপ্রাপ্ত ৩শ ২৬ জন সাবেক বন ও জলদস্যু উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আত্মসমর্পণ করা দস্যুদের ১০২টি ঘর, ৯০টি মুদি দোকান, ১২টি জাল ও মাছ ধরার নৌকা, ৮টি ইঞ্জিনচালিত নৌকা এবং গবাদিপশু হস্তান্তর করেন।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে র‌্যাব মহাপরিচালককে প্রধান সমন্বয়কারী করে জলদস্যু দমনে টাস্কফোর্স গঠন করা হয়। একের পর এক র‌্যাব এর অভিযানে ফেরারি জীবনের অবসান ঘটিয়ে আত্মসমর্পণের পথ বেছে নেয়।

এ পর্যন্ত সুন্দরবনে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ১৩৮ জন দস্যু নিহত হয়। ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত ঘোষণা করেন

র‌্যাবের অভিযানে ২০১৬ সালের ৩১ মে থেকে ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর পর্যন্ত সুন্দরবনের ৩২টি দস্যুবাহিনীর ৩২৮ জন সদস্য আত্মসমর্পণ করে। তাদের কাছ থেকে ৪৬২টি অস্ত্র ও ২২ হাজার ৫০৪ রাউন্ড গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়।

আত্মসমর্পণের পর তাদের পুনর্বাসনে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে অনুদান দেওয়া হয়। সরকারের পক্ষ থেকে আইনি সহায়তা এবং র‌্যাবের পক্ষ থেকে আর্থিক সহায়তাসহ সামাজিক নিরাপত্তা দেওয়া হয়। এর মাধ্যমে দস্যুরা ফিরে আসে স্বাভাবিক জীবনে।

 

 

Edited By: K F

 

 

 

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির পৃষ্ঠপোষক বিএনপি, ওবায়দুল কাদের

 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের অভিযোগ করেছেন, এদেশের ধর্মীয় উগ্রবাদ ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তির পৃষ্ঠপোষক বিএনপি।

সোমবার নিজ বাসভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

বিএনপি ক্ষমতায় যেতে এবং ক্ষমতা অবৈধভাবে ধরে রাখতে সাম্প্রদায়িক শক্তির ওপর নির্ভর করে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ১৯৯১ সালেও বিএনপি ক্ষমতায় এসেছিল সাম্প্রদায়িক শক্তির সঙ্গে আঁতাত করে।

সাম্প্রদায়িকতাকে অস্ত্র বানায় বিএনপি, আওয়ামী লীগ নয়।  ক্ষমতায় যেতে বিএনপিই ধর্ম ও সাম্প্রদায়িকতাকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করে।

দেশে ধর্মীয় উগ্রবাদ বিএনপির আমলেই সৃষ্টি হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ৬৩টি জেলায় একইসঙ্গে বোমা হামলা হয়েছিল বিএনপির শাসনামলে,  শায়খ আবদুর রহমান, বাংলা ভাইরা যে উগ্রপন্থার জন্ম দিয়েছিল তার প্রশ্রয়দাতা আর আশ্রয়দাতা ছিল বিএনপি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ে তুলতে চায়, অন্যদিকে বিএনপি চায় মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত শক্তিকে সঙ্গে নিয়ে দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়নকে কেন্দ্র করে যারা সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ভঙ্গ করছেন, নিজেদের মধ্যে সংঘাত- সংঘর্ষে লিপ্ত হচ্ছেন তাদেরকে সাংগঠনিক শৃঙ্খলাবিরোধী তৎপরতা থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে।

 

 

Edited By: K F

 

 

 

কোনো অনুষ্ঠান দর্শককে এতটা গুরুত্ব দেয়নি

 

সারাবছরে সবচেয়ে কমসময় টিভি স্ক্রীনে মুখ দেখান হানিফ সংকেত। অথচ দেশে অনলাইন অফলাইন মিডিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় মুখটিই তিনি।

কার্যতভাবে সামাজিক দায়বোধ নিয়ে পরিমিতিবোধের সাথে কিছু করলে যে আত্মপ্রচারের বাড়াবাড়ির কোনো দরকার হয় না তারই প্রমান ইত্যাদি। গত দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে একইভাবে জনপ্রিয়, গ্রহনযোগ্য ও গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠানের নাম ইত্যাদি।

কেন জনপ্রিয়, কোন কৌশলে জনপ্রিয় এসব আকার প্রকার অনেকেই খুঁজেছেন। খুঁজতে গিয়ে একই আদলে অনুষ্ঠানও নির্মান করেছেন। কিন্তু দর্শকেরা সেভাবে গ্রহন করেননি।

অথচ সহজাত ভাবে কোনো বাড়াবাড়ি না রেখে মানুষের কল্যানে কিছু করা, দেশীয় ঐতিহ্য’র কথা প্রতিপর্বে তুলে ধরার যে চেষ্টা তাই যেন ইত্যাদির মূল রশদ।

বরাবরের মতোই অনেকগুলো সেগমেন্টে ভাগ ছিল এবারের ইত্যাদি। কোনটি রেখে কোনটির কথা বলবো। কখনও হাস্যরসে হাসায়, কখনও করুণ জীবনবোধে আবেগাতুর করেছে এবারের পর্ব।

চিঠিপত্রের একটি ছোট্ট সেগমেন্টের কথাই ধরা যাক। অন্যান্য অধিকাংশ অনুষ্ঠানে এসব বিষয়গুলো আত্মপ্রচারের কেন্দ্র হিসেবেই দেখানো হয়।

কিন্তু দর্শকের একটি চিঠিকে কেন্দ্র করে, তাৎক্ষনিকভাবে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের কাছে গিয়ে অনলাইন টিকিটে ইংরেজীর পাশাপাশি বাংলার প্রবর্তনের একটি রীতি চালু করার কাজটিই করলো ইত্যাদি।

ইত্যাদির জনপ্রিয়তার কারন এটিও একটি। অন্যান্য অনুষ্ঠান দর্শকের কথা গুরুত্ব না দিয়ে স্পন্সর বা স্পন্সর পাইয়ে দেয়া এজন্টেকে কিভাবে খুশি রাখবে তার জন্য প্রানান্ত তেলবাজিতে থাকেন।

ফলে দর্শকবান্ধব হয়না অধিকাংশ অনুষ্ঠান। এখানে ইত্যাদির সাথে তার স্পন্সর কেয়া কসমেটিক্স সম্পর্ক যেন পরিপূরক।

প্রতিপর্বে একেকটি পরিবার, একেকটি উদ্যোগ সফল ভাবে দাঁড় করানোর প্রত্যয় পাচ্ছে এই অনুষ্ঠান থেকে তাদের দেয়া আর্কি সহযোগিতায়।
এবারের পর্বে শাহেদ কায়েস নামের এক তরুনের কথা-ই ধরা যাক। এমন পরপোকারী তরুণ আছে বলেই সমাজ সমৃদ্ধ হয়। টিকে থাকে মূল্যবোধ।

করোনায় তার উদ্যোগে গড়া বেদেসম্প্রদায়ের সন্তানদের জন্য ফ্রি স্কুলের ভ্রাম্যমান নৌকাটি নষ্ট হয়ে গেলে তার সুবিধার্থে অর্থ সাহায্য দিলো ইত্যাদি। ইত্যাদির প্রতিটি পর্বে এমন অজস্র দৃষ্টান্ত আজ সারাদেশজুড়ে বিরাজমান।

নিয়মিত পর্ব হিসেবে কাসেম টিভি প্রতিবেদন, নানী-নাতি, মামা -ভাগ্নে পর্বে যেমন হাস্যরসের উদ্রেক করেছে একই ভাবে বাহারবলি এসএসডিবি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় স্কুলের ফলোআপ ছিল অসাধারণ।

কিশোরগঞ্জের এই হাওর এলাকার স্কুলের সবার মুখে হাসি ফোটানোর পাশাপাশি মানবিক বার্তা দিয়ে গেলে ইত্যাদি। স্কুলের প্রধান শিক্ষক নিজেই বললেন স্কুলটি এখন ‘ইত্যাদি স্কুল’ নামেই খ্যাত গ্রামবাসীর কাছে।

তবে বিদেশী প্রতিবেদন মিস করেছি দর্শক হিসেবে। একই সাথে পরিবারের বয়োবৃদ্ধদের সাথে সময় কাটানোর দায়িত্ববোধের মেসেজটি আরো খানিকটা স্পষ্ট করা যেত স্ক্রীপ্টে বা নাটকীয়তায়।

এর বাইরে বরাবরের মতো অসাধারণ অনবদ্য ছিল ইত্যাদি। দীর্ঘদিন পর বরেণ্য শিল্পী কুমার বিশ্বজিতের কন্ঠে গান পেল ইত্যাদির দর্শক। চিশতী বাউলের সাথে তাঁর অনবদ্য পরিবেশনা ছিল মুগ্ধকর।

আর শেষটা ছিল দুর্দান্ত! সাতক্ষীরার প্রত্যন্ত এলাকায় সামান্য সুপেয় জলের অভাবে বৃদ্ধার আকুতি যখন উপস্থাপক শুনছিলেন, বুকের ভেতর এক অজানা হাহাকার তৈরি হয় একজন দর্শক হিসেবে।

কেউ বাঘ বিধবা, কোনো অসহায় কিশোরীর আর্তনাদ! এক ফোঁটা পানির জন্য! ইত্যাদির পক্ষ থেকে ৩২ টি পরিবারকে সহায়তা করা হলো। একই সরকারী ও বেসরকারী ভাবে সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়ে গেলেন একজন হানিফ সংকেত।

সমাজের প্রতি দায়বোধ, রাষ্ট্রের সুনাগরিক হিসেবে এমন বিবেচকের বসবাসই তাই ইত্যাদি ও একজন হানিফ সংকেতকে অনবদ্য ও বিরল বৈশিষ্ট্যের করে তোলে।

আত্মগরিমা, লোক ঠকানো ই-কমার্সসহ দুর্নীতির বিচ্ছিন্ন গল্পের এই সমাজে ইত্যাদি ও একজন হানিফ সংকেত যেন আজ মানবতার বাতিঘর।

 

 

Edited By: K F

 

 

 

স্কটল্যান্ড পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

 

দুই সপ্তাহের বিদেশ সফরে স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৯টার দিকে তিনি গ্লাসগোর প্রেস্টউইক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন।

বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তন শীর্ষ সম্মেলন কপ-২৬ ও অন্য কয়েকটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আজ যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্সের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন তিনি।

তিনি ‘ইউনেস্কো-বাংলাদেশ, সৃজনশীল অর্থনীতির জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আন্তর্জাতিক পুরস্কার’ এবং ইউনেস্কোর ৭৫তম বার্ষিকীর অনুষ্ঠানেও যোগ দেবেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানান, গ্লাসগোতে অবস্থানকালে প্রধানমন্ত্রী সোমবার সকালে প্রধানমন্ত্রী স্কটিশ ইভেন্ট ক্যাম্পাসের কমনওয়েলথ প্যাভিলিয়নে সিএফভি-কমনওয়েলথ হাইলেভেল প্যানেল ডিসকাশন অন ক্লাইমেট প্রসপারিটি পার্টনারশিপ শীর্ষক একটি সাইড ইভেন্টে যোগ দেবেন।

বাংলাদেশের সরকারপ্রধান কমনওয়েলথ মহাসচিব প্যাট্রিসিয়া স্কটল্যান্ড কিউসির সঙ্গে বৈঠক করবেন। পরে তিনি কপ ২৬-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন এবং ভাষণ দেবেন।

শেখ হাসিনা শ্রীলংকার রাষ্ট্রপতি গোটাবায় রাজাপাকসের সঙ্গে বৈঠক করবেন। প্রধানমন্ত্রী ব্রিটিশ প্যাভিলিয়নে অ্যাকশন অ্যান্ড সলিডারিটি-দ্য ক্রিটিক্যাল ডিকেড’ শীর্ষক বৈঠকে অংশ নেবেন।

একই দিন বিকালে বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন।

শেখ হাসিনা কপ-২৬-এর ভিভিআইপি সংবর্ধনায় যোগ দেবেন।

মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্কটিশ প্যাভিলিয়নে ‘ওমেন অ্যান্ড ক্লাইমেট চেঞ্জ’ শীর্ষক উচ্চপর্যায়ের সভায় অংশ নেবেন।

শেখ হাসিনা দুপুরে স্কটল্যান্ডের  ফাস্ট মিনিস্টার নিকোলা স্টার্জনের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন। পরে তিনি কমনওয়েলথ সংবর্ধনায় যোগ দেবেন। বিকালে প্রিন্স চার্লস প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন।

এর পরেই ইউকে সভাকক্ষে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গে বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী।  শেখ হাসিনার এদিন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনের সঙ্গেও দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন।

শেখ হাসিনা ১৩ নভেম্বর ফ্রান্সে বসবাসরত বাংলাদেশি নাগরিকদের দেওয়া সংবর্ধনায় ভার্চুয়ালি যোগ দেবেন।

প্রধানমন্ত্রী ১৩ নভেম্বর ঢাকার উদ্দেশে প্যারিস ত্যাগ করবেন এবং ১৪ নভেম্বর সকালে ঢাকায় পৌঁছাবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

 

 

Edited By: K F

 

 

কপ-২৬ সম্মেলনে যাচ্ছেন না এরদোগান

 

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে পরিবেশবিষয়ক কপ-২৬ সম্মেলনে যাচ্ছেন না। তাকে যথাযথ নিরাপত্তা প্রটোকল না দেওয়ায় তিনি এ সফর বাতিল করেন।

সেখানে সোমবার সম্মেলনের ফাঁকে এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বাইডেনের সঙ্গে বৈঠকে বসার কথা ছিল। খবর মিডলইস্ট আইয়ের।

রোববার থেকে স্কটল্যান্ডে শুরু হয়েছে পরিবেশবিষয়ক কপ-২৬ সম্মেলন। এই সম্মেলনের ফাঁকে সোমবার জো বাইডেন এবং মঙ্গলবার ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সঙ্গে এরদোগানের বৈঠকের কথা ছিল।

আমেরিকার সর্বাধুনিক যুদ্ধবিমান এফ-৩৫ পাওয়ার জন্য তুরস্ক যুক্তরাষ্ট্রকে ১.৪ বিলিয়ন ডলার পরিশোধ করেছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র তুরস্ককে এই বিমান দেয়নি।

এই অর্থ তুরস্ককে যুক্তরাষ্ট্র কীভাবে পরিশোধ করবে, এরদোগান গ্লাসগোতে বাইডেনের সঙ্গে সেটি নিয়ে আলোচনার কথা ছিল।

সম্প্রতি এরদোগান জানান, এফ-৩৫ যুদ্ধবিমানের ক্ষতিপূরণ বাবদ যুক্তরাষ্ট্র তাদের এফ-১৬ যুদ্ধবিমান দিতে চায়।

২০১৯ সালে ওয়াশিংটন হঠাৎ ঘোষণা দেয়, তুরস্ককে তারা এফ-৩৫ স্টেলথ যুদ্ধবিমান দেবে না। কারণ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র রাশিয়ার কাছ থেকে তুরস্কের এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা সিস্টেম ক্রয় করার অজুহাত দেয়।

যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রব্যবস্থা ন্যাটো দেশগুলোর জন্য হুমকিস্বরূপ। যদিও তুরস্ক বলছে, এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্রব্যবস্থা ন্যাটোর সঙ্গে সমন্বয় করা হবে না। সুতরাং এটা কোনো হুমকি তৈরি করবে না।

 

 

 

Edited By: K F

 

নেত্রকোনা সদর উপজেলা আ.লীগ সভাপতিকে বহিষ্কার

 

নেত্রকোনার সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এসএম বজলুল কাদের শাহজাহানকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকেও চলমান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনী দলীয় কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ না করায় তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

সোমবার জেলার আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সোমবার এ বিষয়ে এসএম বজলুল কাদের শাহজাহান জানান, শারীরিক অবস্থা ভালো না। কোমর ও পায়ের ব্যথায় চলাফেরায় সমস্যার কারণে দলীয় নির্বাচনী কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করতে পারব না জানিয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশের জবাব দিয়েছি।

বহিষ্কার বিষয়ে তিনি বলেন, বহিষ্কার করলে তো আমাকে নোটিশ দিয়ে জানাতে হবে।

নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক জেলা আ.লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের একাধিক নেতাকর্মী বলেন, চলমান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বচানে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির ছেলে ও জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম শফিকুল কাদের সুজা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লক্ষীগঞ্জ ইউপি থেকে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন।

এসএম বজলুল কাদের শাহজাহান আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর মো. আজাহারুল হক তুহিনের নির্বাচনী কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ না করে তার ছেলের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা ও নির্বাচনী পরিচালনা করায় দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে জেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের অধিকাংশ নেতাকর্মী অসন্তোষ প্রকাশ করেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আশরাফ আলী খসরু এমপির লিখিত আদেশে জানা যায়, গত ২৯ অক্টোবর জেলা আওয়ামী লীগের জরুরি সভায় আপনার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ ও আপনার প্রেরিত পত্র নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে আপনি গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকেও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনী কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করছেন না। বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোয়ন বোর্ডের সিদ্ধান্ত মোতাবেক মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে কোনো দলীয় কাণ্ডে অংশগ্রহণ করেননি।

আপনি যে বক্তব্য প্রেরণ করেছেন তা জেলা আওয়ামী লীগের কাছে গ্রহণযোগ্য নয়। আপনার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগগুলো সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে।

আপনাকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সদর উপজেলা শাখার সভাপতি ও সদস্য পদ থেকে সাময়িক বহিষ্কার ও স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রীয় আ.লীগ বরাবরে পত্র পাঠানো হয়েছে।

জেলার আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই সদর উপজেলার আওয়ামী লীগের সভাপতিকে সতর্ক করা হচ্ছিল।

সদরের সভাপতির ছেলে এসএম শফিকুল কাদের সুজা দীর্ঘদিন ধরে জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। এসব কারণে বারবার সতর্ক করলেও তিনি সতর্ক হননি।

এ নির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেননি। এসব কারণে দলীয় সিদ্ধান্তমতে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুমার রায় যুগান্তরকে বলেন, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ জেলা কমিটির সভায় প্রমাণিত হওয়ায় তাকে নিয়মানুযায়ী সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

এ ছাড়া কেন্দ্রীয় কমিটিতে চিঠি পাঠানো হয়েছে। কেন্দ্র থেকে সিদ্ধান্ত পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

 

Edited By: K F

 

 

 

আমাদের টিকার কোনো অভাব হবে না, স্বাস্থ্যমন্ত্রী

 

স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, আমাদের টিকার কোনো অভাব হবে না। প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, দেশে যার যার প্রয়োজন সবার জন্য টিকার ব্যবস্থা করা হবে। আমরা সেই অনুপ্রেরণায় এগিয়ে যাচ্ছি।

আমাদের হাতে ফাইজারের অনেক টিকা রয়েছে। আমরা ৯৬ লাখ টিকা পেয়েছি এবং হাতে আছে প্রায় ৮২ লাখ। আমাদের প্রতিশ্রুতির আরও ৯২ লাখ আছে।

তিনি বলেন, ১২-১৭ বছর বয়সি শিক্ষার্থীদের টিকা দিতে প্রয়োজন তিন কোটি টিকা। ইতোমধ্যে দুই কোটি টিকা নিশ্চিত করা আছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আরও বেশি পরিমাণে ফাইজার ও মডার্নার টিকা দেবে আমাদের।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আমরা স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে টিকাদান কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। ইতোমধ্যে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়াদের টিকাদান কার্যক্রম প্রায় সমাপ্ত হয়ে আসছে।

১২-১৭ বছর বয়সি স্কুলশিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার চাহিদা ছিল অভিভাবকদের। শিক্ষার্থীদেরও আগ্রহ ছিল টিকা নেওয়ার।

যুক্তরাষ্ট্র সরকার নিজেদের দেশে শিশুদের যে টিকা দিচ্ছে, সেই টিকা তারা বাংলাদেশকে দিয়েছে। আমরা সেটি শিক্ষার্থীদের দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি।

প্রসঙ্গত মানিকগঞ্জের কয়েকটি স্কুলের ১২০ শিক্ষার্থীকে গত ১৪ অক্টোবর পরীক্ষামূলকভাবে ফাইজারের টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়। আজ থেকে আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হলো।

 

 

Edited By: K F

 

 

গাজীপুরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে গেল বাস

 

গাজীপুর সদর উপজেলায় ওভারটেক করতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস উল্টে শিক্ষার্থীসহ দুজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন ২০ বাসযাত্রী।

সোমবার বেলা ১০টার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের মেম্বারবাড়ী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত কনা গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার তালতলী গ্রামের মোস্তফা কামালের মেয়ে। তিনি ভর্তি পরীক্ষা দেওয়ার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় যাচ্ছিলেন। এ ঘটনায় নিহত আরেকজনের পরিচয় জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শী ও বাসের অন্যান্য যাত্রী জানান, ময়মনসিংহ থেকে ছেড়ে আসা সৌখিন পরিবহণ বাসটি মহাসড়কে বেপরোয়াভাবে ঢাকার দিকে যাচ্ছিল।

মহাসড়কের মেম্বারবাড়ি এলাকায় বাসটি পৌঁছলে সামনের দিকের অপর বাসটিকে বেপরোয়াগতিতে ওভারটেক করতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের ওপর উল্টে যায়।

এতে ঘটনাস্থলেই বাসের যাত্রী কনা ও অজ্ঞাত পথচারী নিহত হন। এ ঘটনায় ২০ যাত্রী আহত হয়েছেন। তাদের স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

মাওনা হাইওয়ে থানার ওসি কামাল হোসেন জানান, দুর্ঘটনাকবলিত বাসটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

শিল্পী তাহেরা চৌধুরী আর নেই

 

প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী কাইয়ুম চৌধুরীর স্ত্রী চিত্রশিল্পী ও সেতারশিল্পী তাহেরা চৌধুরী মারা গেছেন ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

রোববার রাজধানীর বেসরকারি একটি হাসপাতালে তিনি মারা যান তিনি। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।

তাহেরা চৌধুরীর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার ছোট ভাই হাসান উজ জামান মনি।

তিনি বলেন, নানা শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন তাহেরা চৌধুরী। এর মধ্যে গত শুক্রবার নিজ বাসায় পড়ে গিয়ে তিনি আঘাত পান। সেদিনই স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে মারা গেছেন তিনি।

মনি বলেন, সোমবার বাদ আসর আজিমপুর ছাপরা মসজিদে তাহেরা চৌধুরীর জানাজা শেষে আজিমপুর কবরস্থানে দাফন করা হবে।

তাহেরা চৌধুরী ঢাকা আর্ট কলেজ, বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের প্রথম পাঁচ নারী শিক্ষার্থীর একজন ছিলেন। তিনি বেশ কয়েকটি চিত্রপ্রদর্শনী করেছেন। দেশের বাইরেও বিভিন্ন চিত্রকর্মশালায় অংশ নিয়েছেন।

তার স্বামী চিত্রশিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী ২০১৪ সালের ৩০ নভেম্বর মারা যান।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

অবরুদ্ধ কক্সবাজারে আতঙ্কিত পর্যটকরা

 

কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মুনাফ সিকদারকে গুলি করে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় কক্সবাজার পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানকে আসামি করার প্রতিবাদে কক্সবাজার শহর অবরুদ্ধ করে রেখেছেন দলীয় কর্মী-সমর্থকরা।

রোববার সন্ধ্যা থেকে কক্সবাজার শহরের সব দোকান-পাট বাস-কাউন্টার বন্ধ করে দিয়েছেন মেয়র মুজিবুরের অনুসারীরা।

পাশাপাশি বিভিন্ন সড়কের মাঝখানে পৌরসভার ময়লার গাড়ি রেখে যাতায়াত বন্ধ করে দিয়েছেন তারা।

ভাংচুর চালানো হয়েছে বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানে। এ নিয়ে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে শহরবাসী ও পর্যটকদের মাঝে।

 

তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে দাবি করেছেন কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মনিরুল গিয়াস।

সূত্র জানায়, বুধবার রাতে শহরের কলাতলীর সুগন্ধা পয়েন্টে একটি মার্কেটের সামনে আড্ডারত মুনাফ সিকদারকে গুলি করা হয়।

তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিলে জরুরি বিভাগে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় আহত মুনাফ সিকদার এক ভিডিও বার্তায় বলেছেন, আমাকে মুজিবুর রহমান মেয়রের নির্দেশে গুলি করা হয়েছে।

ওরা গুলি করার সময় বলছিল তুই মুজিব চেয়ারম্যানের সঙ্গে লাগছিস? মুজিব চেয়ারম্যানের সাথে আরও লাগবি? এই বলে পেছন থেকে গুলি করে পালিয়ে যায়।

ওই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হলে মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে।

এ ঘটনায় বক্তব্য নিতে সাংবাদিকদের ফোন না ধরলেও তার বাড়ির এলাকায় প্রতিবাদ সভায় মেয়র মুজিবুর রহমান ছাত্রলীগের সাবেক নেতা মুনাফ সিকদারকে গুলি করার নির্দেশ দেওয়ার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেন।

সমাবেশে মেয়র মুজিব বলেন, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। যে ছেলেটা গুলিবিদ্ধ হয়েছে, তাকে একজন শিখিয়ে দিয়ে বলতেছে, বল- মেয়র মুজিবের নির্দেশে তোমাকে গুলি করা হয়েছে। সে শেখানো কথা বলেছে।

তিনি বলেন, আমি এ সমাবেশে বলতেছি, কারও যদি জায়গা বা একটা হোটেলও দখল করে থাকি প্রমাণ দেন, রাজনীতি ছেড়ে দেব, এ শহর থেকে চলে যাব।

শুক্রবার এ প্রতিবাদ সভার দুই দিন পর রোববার, বিকালে মুনাফ সিকদারকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে ১৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

মামলায় হুকুমদাতা হিসেবে প্রধান আসামি হয়েছেন মুজিবুর রহমান। এছাড়াও মামলায় জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সাম্পাদক নাজনীন সরওয়ার কাবেরীকে আসামি করা হয়েছে।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, হত্যাচেষ্টা ধারায় মেয়র মুজিবকে প্রধান আসামি করে একটি মামলা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে মেয়র মুজিবুরের বিরুদ্ধে মামলা হওয়ার খবর প্রচার পাওয়ার পরপরই পুরো শহরে মেয়রের অনুসারী একদিকে বিক্ষোভ মিছিল করছে অন্যদিকে দোকানপাট বন্ধ করে দিচ্ছে।

হোটেল-মোটেল জোনের কলাতলীর প্রধান সড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করছে। এসব ঘটনাস্থলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি দেখা না মেলায় শহরজুড়ে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে দেখা যায়, কক্সবাজার শহরের বাজারঘাটা থেকে শুরু করে ফিশারিঘাট পর্যন্ত ও বিমানবন্দর সড়ক থেকে কলাতলী পর্যন্ত সব দোকানপাট জোর করে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

যারা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করতে চাননি তাদের হামলা করতে উদ্যত হন বিক্ষোভকারীরা। রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে এবং পাথর রেখে রাস্তার ব্লক করে রাখায় কলাতলী হতে বাস টার্মিনাল ও কলাতলী হতে বিমানবন্দর সড়ক পর্যন্ত উভয়পাশে শত শত যানবাহন আটকে যায়।

সেখানে রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ফেরা জিও-এনজিও কর্মকর্তাদের গাড়ির পাশাপাশি অনেক অ্যাম্বুলেন্স এবং পর্যটকদের গাড়িও ছিল।

অনেক পর্যটক আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে হোটেলে ফিরেছেন। রাস্তার পাশের অনেক হোটেলের ফটক বন্ধ করে দেয় আতঙ্কিত কর্তৃপক্ষ।

ঘটনার বিষয়ে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন, আমাকে মিথ্যাভাবে ফাঁসানো হচ্ছে। আমি মুনাফকে গুলি করার নির্দেশ দিইনি।

জেলা আওয়ামী লীগ থেকে আমরা একটি বিবৃতি দিয়ে বলেছি, এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনতে প্রশাসনকে সহযোগিতা করব।

কিন্তু সরকারদলীয় একজন শীর্ষ নেতাকে প্রধান আসামি করে পুলিশ হত্যা প্রচেষ্টা মামলা নথিভুক্ত করল।

এতে প্রতীয়মান হয়, আমার বিরুদ্ধে পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন হচ্ছে। মিথ্যা মামলার খবর পেয়ে নেতাকর্মীরা হয়তো মাঠে নেমে বিক্ষোভ করছেন।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি শেখ মুনীর উল গিয়াস বলেন, মেয়র মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলার খবরে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকরা  শহরের বিভিন্ন রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করছেন।

এ কারণে হয়তো দোকানপাট বন্ধ করে ফেলেছেন ব্যবসায়ীরা। জেলার একজন শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে তাই তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এটা হতে পারে।

তবে শহরের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এবং এখন পর্যন্ত কোথাও ভাঙচুরের খবর পাওয়া যায়নি বলে জানান ওসি।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

চিকেন স্যান্ডউইচ

 

স্যান্ডউইচ অনেক মজাদার একটি খাবার। আর সেটা যদি হয় চিকেন, তাহলে তো কোনো কথাই নেই। সব সময় ফাষ্টফুডের দোকানে না গিয়ে বাসায় বানিয়েও খেতে পারেন।

তাহলে দেখে নিন বসায় কিভাবে বানাবেন চিকেন স্যান্ডউইচ।

 

বানানোর রেসিপি

 

উপাদানগুলিঃ

 

  • ২০০ গ্রাম চিকেন ব্রেষ্ট
  • ১২ স্লাইস পাউরুটি
  • কাপ পেঁয়াজ কুচি
  • কাপ ক্যাপসিকাম কুচি
  • চা চামচ রসুন কুচি
  • টি গোটা রসুন
  • টেবিল চামচ গোলমরিচ গুঁড়ো।
  • টেবিল চামচ ওরিগ্যানো।
  • টেবিল চামচ মেয়োনিজ
  • টেবিল চামচ রেডচিলি সস
  •  পরিমাণ মতো লবন
  •  পরিমাণ মতো বাটার।

 

প্রস্তুত প্রনালীঃ

 

প্রথমে করাইতে চিকেন, গোটা রসুন হাফ টেবিলচামচ গোলমরিচ গুঁড়া অরিগ্যানো পরিমাণমতো লবণ দিয়ে সেটাকে ভালোকরে সেদ্ধ করে নিতে হবে।

এরপর চিকেন গুলো সেদ্ধ হয়ে গেলে একটা কাটা চামচ চামচ দিয়ে এগুলো কি টুকরো টুকরো করে নেব। এবং জলটা রেখে দেবপরে ব্যবহার করার জন্য।

এরপর কড়াইতে ১ টেবিল চামচ বাটার দিয়ে তার মধ্যে দিয়ে দেবো রসুন বাটা, পেঁয়াজ কুচি ক্যাপসিকাম কুচি এবার এগুলোকেএকটু ভেজে নেব।

সমস্ত সবজিগুলো ভাজা হয়ে গেলে এখন দিয়ে দেবো টুকরো করে রাখা চিকেন আর দিয়ে দেব চিকেন সিদ্ধকরার জল। দিয়ে দিতে হবে হাফ টেবিল চামচ গোলমরিচ গুঁড়ো অরিগ্যানো এবং একটু সময় নিয়ে ভেজে নেব।

চিকেনটা ভাজা হয়ে গেলে এখন একটা পাত্রে ঢেলে তার মধ্যে তিন টেবিলচামচ মেয়োনিজ এক টেবিল চামচ রেড চিলি সসদিয়ে ভাল করে মিক্স করে নেব।

এবারে একটা পাউরুটি নিয়ে তার ওপরে দিয়ে দেবো চিকেন এর মিশ্রণ আরো পরে আরেকটাপাউরুটি দিয়ে ঢেকে দেব। সমস্ত স্যান্ডউইচ গুলো রেডি করে নেব।

এবারে একটা প্যানে ভালো করে বাটার গ্রিস করে নিয়ে তার মধ্যে পাউরুটির স্যান্ডউইচ গুলো সেঁকে নেব।

তাহলে রেডি হয়ে যাবে মজাদার চিকেন স্যান্ডউইচ।

টমেটো কেচাপ এর সাথে পরিবেশন করতে পারেন এই মজাদার চিকেন স্যান্ডউইচ।

 

 

Edited By: K F

 

 

 

কক্সবাজারে রাস্তা অবরোধ, মেয়রের বিরুদ্ধে মামলা

কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মুনাফ সিকদারকে গুলি করে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানকে প্রধান আসামি করে ১৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

এ মামলার প্রতিবাদে কক্সবাজারের শহরের প্রধান প্রধান সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে কর্মী-সমর্থকরা। এতে কার্যত অচল হয়ে পড়েছে কক্সবাজার।

মামলায় ২নং আসামি করা হয়েছে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সরওয়ার কাবেরীকে।

রোববার সন্ধ্যায় মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি তদন্ত বিপুল চন্দ্র দে।

তিনি জানান, মুনাফ সিকদারকে গুলি করে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় মেয়র মুজিবুর রহমানকে প্রধান আসামি করে ৯ জনকে এজাহারনামীয় এবং আরও ৫-৬ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন গুলিবিদ্ধ মুনাফ সিকদারের বড় ভাই মো. শাহজাহান সিকদার।

বুধবার ২৭ অক্টোবর রাত সাড়ে ৯টার দিকে কক্সবাজার শহরের সুগন্ধা এলাকায় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মুনাফ সিকদারসহ দুইজনকে গুলি করে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা।

মুনাফ সিকদারের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তিনি এখন সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহত মুনাফ সিকদার  শহরের পেশকারপাড়া এলাকার শাহাব উদ্দিন সিকদারের ছেলে। তিনি জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি এবং শহর যুবলীগের সভাপতি প্রার্থী।

আহত অপরজন হলেন কক্সবাজার সদর উপজেলার পিএমখালীর ছনখোলা এলাকার গিয়াস উদ্দিনের ছেলে মো. তারেক।

গুলিবিদ্ধ মোনাফ সিকদার একটি ভিডিও বার্তায় দাবি করেছেন- কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানের নির্দেশে তাকে গুলি করা হয়েছে।

দুর্বৃত্তরা গুলি করার সময় আমাকে বলছে- মুজিব চেয়ারম্যানের সঙ্গে লাগছো? এ বলে পেছন থেকে গুলি করে তারা পালিয়ে যায়।

এদিকে মেয়র মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে রোববার মাগরিবের পর থেকে কক্সবাজারের শহরের প্রধান প্রধান সড়কগুলোতে টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে কর্মী-সমর্থকরা।

এ সময় কক্সবাজার পৌরসভার ময়লা বহনকারী মিনি ট্রাক দিয়ে শহরের কয়েকটি সড়ক ব্লক করে দিতে দেখা গেছে। এতে কক্সবাজারে শহরে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। একইভাবে জেলা বিভিন্ন এলাকায়ও বিক্ষোভ মিছিলের খবর পাওয়া গেছে।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

সুন্দরী নারীদের টার্গেট করে বিয়ে

 

দরিদ্র ও সুন্দরী নারীদের টার্গেট করতেন সুজন সিকদার নামে এক মানব পাচারকারী। এরপর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তাদের বিয়ে করতেন সুজন। বিয়ের পর তাদের পাচার করতেন বিভিন্ন দেশে।

রবিবার বিকালে রাজধানীর কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন।

এর আগে শনিবার রাজধানীর কড়াইল বস্তি এলাকা থেকে আন্তর্জাতিক মানব পাচারকারী চক্রের অন্যতম হোতা সুজন সিকদারকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এ সময় তার সহযোগী রমজান মোল্লাকেও গ্রেফতার করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন জানান, মানব পাচারকারী চক্রের সদস্যরা প্রথমে দরিদ্র পরিবারের নারীদের টার্গেট করতেন।

এরপর চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে ফাঁদে ফেলে বিদেশে পাচার করতেন। বেশিরভাগ সময় পাচারের শিকার নারীদের ডিজে পার্টিসহ বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়ানো হতো।

পাচারকারী চক্রের অন্যতম হোতা সুজন সিকদার ও রমজান মোল্লাকে গ্রেফতারের পর তাদের কাছ থেকে একজন ভিকটিমকে উদ্ধার করা হয়।

অপর এক নারীকে বিয়ের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন সুজন। পরবর্তীতে তাকে ঘটনাটি জানিয়ে সতর্ক করা হয়।

র‌্যাবের এ কর্মকর্তা বলেন, নারীদের বিশ্বাস অর্জনের জন্য মৌখিকভাবে তাদের বিয়ে করতেন চক্রের সদস্যরা। বিয়ের পর ভিকটিমদের সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি মোবাইলে ধারণ করতেন।

পরে বিভিন্ন দেশে লোভনীয় ও আকর্ষণীয় চাকরির কথা বলে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে পাচার করে দিতেন।

তিনি আরও বলেন, কোনো নারী পার্শ্ববর্তী দেশে যেতে রাজি না হলে তাদের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিত চক্রটি।

আর পাচার করা নারীদের পতিতালয়ে বিক্রি ও জোরপূর্বক ডিজে পার্টিসহ বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়ানো হতো।

র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে পাচারকারী চক্রের সদস্যরা জানান, যশোর সীমান্ত এলাকা দিয়ে নারী পাচার করতেন তারা। নারী পাচারের ক্ষেত্রে যশোর সীমান্ত পারাপারে সহায়তা করতেন পলাতক আসামি হোসেন।

র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক বলেন, সুজন সিকদার তিনটি বিয়ে করেছেন, যার মধ্যে একজনকে পার্শ্ববর্তী দেশে পাচার করে দেওয়া হয়েছে।

বর্তমানে পার্শ্ববর্তী দেশে পাচারের উদ্দেশ্যে সুজন এক নারীকে বিয়ে করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এছাড়া গ্রেফতার রমজানের স্ত্রী মারা গেছেন- এমন মিথ্যা বলে অপর এক নারীকে বিয়ে করেন।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

নদীর ব্লক সরে, হুমকির মুখে আমতলী 

 

পায়রা নদী ভাঙনের তীব্রতা বৃদ্ধিতে শহর রক্ষা বাঁধের সিসি ব্লক সরে যাওয়ায় ভয়াবহ হুমকির মুখে পড়েছে বরগুনার আমতলী পৌর শহর। গত ২৩ বছরেও সংস্কার হয়নি শহর রক্ষা বাঁধের সিসি ব্লক। এতে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে অনেক স্থাপনা।

দ্রুত সংস্কার করা না হলে বিলীন হয়ে যেতে পারে পাউবো অফিস, খাদ্যগুদাম, মুক্তিযোদ্ধা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, লঞ্চঘাট ও ফেরিঘাটসহ সহস্রাধিক বাড়িঘর।

জানা গেছে, ১৯৯৮ সালে আমতলী পৌর শহরকে পায়রা নদীর ভাঙনের হাত থেকে রক্ষায় ফেরিঘাট এলাকা থেকে পাউবোর অফিস পর্যন্ত ১২০০ মিটার শহর রক্ষা বাঁধ প্রকল্পের অধীনে সিসি ব্লক স্থাপন করা হয়।

ওই সময় নিম্নমানের কাজ করায় অল্পদিনের মধ্যেই ব্লক সরে যেতে থাকে।

ঘূর্ণিঝড় সিডর, আইলা, মহাসেন ও রোয়ানু, বুলবুল ও আম্পানের প্রভাবে আমতলী পৌর শহর সংলগ্ন পায়রা নদীর সিসি ব্লক সরে ও ভেঙে যাচ্ছে।

এতে ফেরিঘাট, লঞ্চঘাট, কাঠপট্টি, পুরাতন  লঞ্চঘাট, শ্মশানঘাট ও পানি উন্নয়ন বোর্ড এলাকাসহ সহস্রাধিক বাড়িঘর নদী বক্ষে বিলীন হওয়ার উপক্রম হয়েছে।

বরগুনা পানি উন্নয়ন বোর্ড ২০১৪ সালে সিডর প্রকল্পের আওতায় আমতলী পৌর শহরকে পায়রা নদীর ভাঙনের হাত থেকে রক্ষায় ১২০০ মিটার ব্লক মেরামতের কাজ অন্তর্ভুক্ত করে।

বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এমবিইএল ১১৫ মিটার পায়রা নদীর তীর সংরক্ষণে সিসি ব্লক সংস্কার করে অবশিষ্ট কাজ ফেলে রেখে চলে যায়। এতে আরও হুমকির মুখে পড়ে পৌর শহর।

গত ২৩ বছরে সংস্কার না করায় পায়রার ভাঙনে অধিকাংশ ব্লক নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এতে বিলীন হয়ে গেছে অনেক স্থাপনা। পায়রা নদীর ভাঙন থেকে আমতলী পৌরশহরকে রক্ষায় দ্রুত শহর রক্ষা বাঁধের সিসি ব্লক সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

রোববার পায়রা নদী সংলগ্ন শহর রক্ষা বাঁধ এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, পায়রা নদীর অস্বাভাবিক জোয়ারের তোড়ে ঢেউ তীরে আছড়ে পড়ছে।

এতে ব্লকগুলো সরে যাচ্ছে এবং দুর্বল অনেক ব্লক ভেঙ্গে নদীতে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। আমতলী স্লুইসগেট এলাকায় দুই পাশের ব্লক সরে গেছে।

ব্লক সরে যাওয়ায় পায়রা নদী এলাকায় বেড়াতে আসা পর্যটকরা মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। সৌন্দর্য হারিয়ে যাওয়ায় আগের মত তেমন পর্যটকরা বেড়াতে আসেন না।

নারী পর্যটক মোসা. শাফিয়া বেগম বলেন, বিকালে বিনোদনের জন্য পায়রা নদীর ব্লকে বেড়াতে যেতাম। কিন্তু সেই অবস্থা এখন আর নেই। ব্লক সরে নদীতে বিলীন হয়ে গেছে।

দ্রুত ব্লক নির্মাণ করা হলে ফের পদচারণায় মুখরিত হবে পায়রা নদী সংলগ্ন আমতলীর পানি উন্নয়ন বোর্ড এলাকা।

শহর রক্ষা বাঁধ এলাকায় ফার্নিচার ব্যবসায়ী শিপন মিস্ত্রি বলেন, পূর্ব থেকেই নদী ভেঙে ব্লক সরে যেত। সিডরের প্রভাবে ব্লক সরে গিয়ে নদী ভাঙনের তীব্রতা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। খাদ্যগুদাম ঘাটসহ এলাকার অনেক ঘরবাড়ি ভেঙে নদীতে বিলীন হয়ে গেছে।

লঞ্চঘাট এলাকার শহীদুল ইসলাম হাওলাদার বলেন, ব্লক সরে পায়রা নদীতে বিলীন হওয়ায় লঞ্চঘাট, পানি উন্নয়ন বোর্ড এলাকাসহ পৌর শহর হুমকির মুখে পরেছে।

অতিদ্রুত ব্লক সংস্কার করা না হলে তীর ভেঙে বাড়িঘর নদীতে বিলীন হয়ে যাবে। দ্রুত পায়রা নদীতে ব্লক দিয়ে সংস্কারের দাবি জানাই।

আমতলী পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান বলেন, পায়রা নদীর ভাঙনে প্রতিদিনই পৌরশহরের আয়তন ছোট হচ্ছে। ভাঙনে বহু স্থাপনা হুমকির মুখে পড়েছে।

পুরাতন সিসি ব্লক সরে নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। দ্রুত শহর রক্ষা বাঁধ সংস্কার করা না হলে ভাঙনের ভয়াবহতা আরও বৃদ্ধি পাবে।

তিনি আরও বলেন, এ শহরকে রক্ষায় তিন কিলোমিটার পায়রা নদীর তীরে সিসি ব্লক নির্মাণ করা প্রয়োজন। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের কাছে দ্রুত সিসি ব্লক নির্মাণের দাবি জানান তিনি।

বরগুনা পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আজিজুর রহমান সুজন বলেন, শহর রক্ষা বাঁধের প্রজেক্টে আমতলী পৌর শহর রক্ষায় পায়রা নদীর ব্লক সংস্কারের প্রস্তাবনা দিয়েছি।

পাউবোর বরগুনার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. কায়সার আলম বলেন, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে আমতলী পৌর শহরের শহর রক্ষা বাঁধসহ নদী ভাঙন রোধে প্রস্তাবনা দেয়া হয়েছে। বাজেট পাওয়া গেলে কার্যক্রম শুরু করা হবে।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

পুলিশের চাকরি নিতে এসে কারাগারে তারা

 

পুলিশের ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল নিয়োগ পরীক্ষার প্রথম দিনে আবেদনে জালিয়াতির ঘটনায় দুজনকে আটক করেছে নেত্রকোনা জেলা পুলিশ।

পরে আটকদের বিরুদ্ধে কাগজপত্র জালিয়াতির ঘটনায় মামলা দায়ের করে আদালতের মাধ্যমে শনিবার কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

নিয়োগ প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে প্রাথমিকভাবে কাগজপত্র যাচাইয়ে রাতুলের ফিজিক্যাল অ্যানডিউরেন্স টেস্টের প্রবেশপত্রে গরমিল পায় কর্তব্যরত পুলিশ কর্মকর্তারা।

প্রবেশপত্রে তার নাম, বাবার নাম, জন্ম তারিখ, এসএসসির ফল, উচ্চতা ও ওজনের সঙ্গে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স থেকে পাঠানো তথ্যের গরমিল পাওয়া যায়।

পরে রাতুলের মোবাইলের মেসেজ যাচাইয়ে দেখা যায়, ভিন্ন একটি মোবাইল নম্বর থেকে তার পরীক্ষা-সংক্রান্ত মেসেজ এসেছে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে জুবায়েদ ইসলাম রাতুল জানান, তিনি পূর্বধলা স্টেশন রোডের চঞ্চলের দোকান থেকে আবেদন করেছেন। পরে তাকে ও চঞ্চলকে আটক করা হয়।

ভুয়া আবেদনকারী রাতুলের প্রবেশপত্র ও ব্যবহৃত মোবাইল ফোন ও ভুয়া পিইটি প্রবেশপত্র প্রস্তুতকারী চঞ্চলের কম্পিউটার ও মোবাইল জব্দ করা হয়েছে।

নেত্রকোনার পুলিশ সুপার মো. আকবর আলী মুন্সি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তাদের কাগজপত্রে গরমিল পাওয়া গেছে।

কাগজপত্র জালিয়াতির অভিযোগে আটক ২ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। পরে আটককৃতদের শনিবার বিকালে আদালতে পাঠানো হলে আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

রওশনের কাছে ক্ষমা চাইলেন বিদিশা

 

ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির চিফ প্যাট্রন রওশন এরশাদের কাছে ক্ষমা চাইলেন প্রয়াত এইচএম এরশাদের সাবেক স্ত্রী বিদিশা।

হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে প্রায় নিস্তেজ অবস্থায় থাকা ৭৮ বছর বয়সী রওশনকে রবিবার দেখতে গিয়ে তাকে ছুঁয়ে বিদিশা ক্ষমা চান।

পুত্র এরিক ও হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ট্রাস্ট এর চেয়ারম্যান কাজী মামুনুর রশিদ এ সময় বিদিশার সঙ্গে ছিলেন।

প্রাপ্ত ছবিতে দেখা যায়, রওশনের শয্যার সামনে কিছুক্ষণ নিরবে দাঁড়িয়ে থাকেন বিদিশা, চোখ গড়িয়ে অশ্রু ঝরছে।

বার্ধক্যসহ নানা জটিলতায় জীবন সংকটে থাকা রওশনের শয্যার সামনে দাঁড়িয়ে তার সুস্থতা কামনায় এরিক ও কাজী মামুনকে নিয়ে দোয়া পড়ে মোনাজাত করেন বিদিশা।

অশ্রুসজল বিদিশা বলেন, প্রথমে এরিক ওনাকে স্পর্শ করে বলেন- মা, আমি এসেছি। রওশন এরশাদ চোখ মেললেন, কিন্তু কথা বলার মতো শক্তি নেই, শুধু ক্ষীণ কণ্ঠে একটি শব্দ উচ্চারণের চেষ্টা করলেন, কিন্তু শব্দটি অত্যন্ত অস্পষ্ট।

বিদিশা বলেন, পরে আমি ওনাকে ছুঁয়ে বললাম- আমি ক্ষমা চাই, আপনি আমাকে ক্ষমা করে দেবেন। আপনি চিন্তা করবেন না, সাদ আমারও সন্তান, আমি ওকে দেখে রাখবো। উনি ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে থাকলেন আর কাঁদলেন।

সিএমএইচ থেকে বেরিয়ে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ট্রাস্ট’-এর চেয়ারম্যান কাজী মামুনুর রশিদ বলেন, রওশন ম্যাডামকে দেখে মনটা খুব খারাপ হয়ে গেল। উনি খুব কষ্ট পাচ্ছেন, আল্লাহ ওনাকে ক্ষমা করুন।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ আগস্ট থেকে সিএমএইচে চিকিৎসাধীন রওশন এরশাদ।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

কাভার্ডভ্যান ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষ

 

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌরসভায় নবনির্মিত বাইপাস সড়কে কাভার্ডভ্যান ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই নারীসহ দুইজন নিহত হয়েছেন।

এ সময় সিএনজিচালক ও শিশুসহ আহত হয়েছেন ৪ জন।

রোববার দুপুর বসুরহাট বাইপাস সড়কের রামদী এলাকায় এ সড়ক দুঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কাভার্ডভ্যানসহ চালককে পুলিশ আটক করেছে। কাভার্ডভ্যান চালক মো. মাছুম ভুইয়া কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মো. ইউছুপের ছেলে।

নিহতরা হলেন- উপজেলার শাহজাদপুর গ্রামের বগালা মিস্ত্রিবাড়ীর মৃত মতিলাল সূত্রধরের ছেলে নয়ন সূত্রধর, একই বাড়ির কান্তি কুমার সূত্রধরের মেয়ে চন্দনা রানী সূত্রধর।

আহতরা হলেন- নিহত চন্দনার ১৮ মাস বয়সের শিশুকন্যা অর্পণা সূত্রধর, তার ভাই বিধান সূত্রধর, একটি বাড়ির পরিমল সূত্রধরের ছেলে শিমুল সূত্রধর ও ফেনী সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অজ্ঞাত সিএনজিচালক।

গুরুতর আহত বিধানকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে এবং শিমুলকে মুমুর্ষূ অবস্থায় ঢাকায় নেওয়া হয়েছে।

দুর্ঘটনায় নিহত নয়ন সূত্রধরের ভাই জয়ন্ত সূত্রধর জানান, তারা সবাই সিএনজিযোগে তার চাচাতো বোন নিহত চন্দনা রানী সূত্রধরের স্বামীর বাড়ি চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ থেকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় শাহজাদপুর গ্রামে নিজ বাড়ি আসছিল।

বসুরহাট বাইপাস সড়ক অতিক্রম করার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ জানান, দুর্ঘটনাস্থল থেকে লাশ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

ছাত্রলীগের হামলায় আহত মাহাদি আকিব লাইফ সাপোর্টে

 

ছাত্রলীগের হামলায় গুরুতর আহত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী মাহাদি আকিবকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়েছে।

জীবন মরণ সন্ধিক্ষণে থাকা আকিবের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

আইসিইউতে থাকা আকিবের পুরো মাথা এখন সাদা ব্যান্ডেজ মোড়ানো। এক পাশে গোলাকার দাগ টানা হয়েছে, সেখানে লেখা হাড় নেই, চাপ দেবেন না।

মাথায় যাতে কেউ স্পর্শ না করে, তাই যথারীতি আঁকা হয়েছে বিপদ চিহ্নও। এই শিক্ষার্থী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ৬২তম ব্যাচের ছাত্র মো. মাহাদি আকিব।

তিনি চমেকের আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে আছেন। তাঁর মাথার খুলি থেঁতলে গেছে। মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়েছে।

শনিবার সকাল ৯টায় চমেকের মেইন গেটের অদূরে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সামনে অতর্কিত হামলা করে ছাত্রলীগের একটি পক্ষ।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের শেষ বর্ষের ছাত্র ও ছাত্রলীগের নেতা মো. ইমন সিকদার  ন, ওইদিন সকাল ৯টায় সিনিয়ররা তখন চমেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. সাহেনা আক্তারের সঙ্গে কথা বলছিলেন। নিচে ছিল মাহাদি আকিবসহ জুনিয়ররা।

হঠাৎ ধাওয়া দিয়ে চমেকের মেইন গেটের বাইরে নিয়ে যাওয়া হয় তাদের। পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সামনে মাহাদি আকিবকে পেয়ে ঘিরে ধরেন ছাত্রলীগের একটি গ্রুপ। গলায় রিকশার চেইন দিয়ে বাধা হয়।

কাচের বোতল দিয়ে মাথায় আঘাত করা হয়। রামদা দিয়ে কোপানো হয় মাথায়। পরে হকিস্টিক দিয়ে মাথা থেঁতলে দেওয়া হয়েছে। এ সময় তাকে উদ্ধার করে চমেকে নিয়ে যাওয়া হয়।

এ বিষয়ে চমেকের অধ্যাপক ও ক্লিনিক্যাল নিউরো সার্জন এবং নিউরো সার্জারি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এস এম নোমান খালেদ চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, `মাহাদি আকিবকে যখন আমরা পাই, তখন তাঁর মাথা থেঁতলানো ছিল।

হাড় ভেঙে গেছে। মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়েছে। ব্রেইন ডেমেজও হয়েছে। এই অবস্থায় অপারেশন করে মাথার কিছু অংশ তার শরীরের মধ্যে সংরক্ষণ করে রাখি।

তিনি আরও বলেন, `আমরা সফল অপারেশন করেছি। আমি আশাবাদী, মাহাদি আকিব ভালো হয়ে যাবেন।

উল্লেখ্য, মাহাদি আকিব নটর ডেম কলেজ থেকে পাস করে চমেকে চান্স পান। গত শুক্রবার রাত ১২টায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়।

পরে গতকাল চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের ওই দিন সন্ধ্যার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ দেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। গঠন করা হয় পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

সেট টপ বক্স না বসালে আর স্যাটেলাইট চ্যানেল দেখা যাবে না

 

ডিশ ক্যাবল ব্যবহারকারীদের সেট টপ বক্স না বসালে আর স্যাটেলাইট চ্যানেল দেখতে পারবেন না। আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে ঢাকা ও চট্টগ্রাম শহরের কেবল নেটওয়ার্ক ডিজিটাল করা হবে।

এই সময়ের মধ্যে গ্রাহকেরা সেট টপ বক্স না বসালে আর টেলিভিশন দেখতে পারবেন না। ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে সব বিভাগীয় ও মেট্রোপলিটন শহরের সঙ্গে পুরোনো ১১টি জেলা শহরের কেবল নেটওয়ার্ক ডিজিটাল করা হবে।

সচিবালয়ে আজ রোববার কেবল অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন, অ্যাসোসিয়েশন অব টিভি চ্যানেল ওনার্স এবং ড্রিস্ট্রিবিউটরদের নিয়ে সভার পর তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী হাছান মাহমুদ এ তথ্য জানান।

৩০ নভেম্বরের মধ্যে ঢাকা ও চট্টগ্রাম শহরের সব কেবল নেটওয়ার্কিং সিস্টেম ডিজিটালাইজড করার সিদ্ধান্ত গত ২ সেপ্টেম্বর নেওয়া হয়।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বৈঠকে সর্বসম্মতভাবে নির্ধারিত সময়েই ঢাকা ও চট্টগ্রাম শহরের কেবল নেটওয়ার্ক ডিজিটাল করা করা হবে। কেবল অপারটেররা জানিয়েছেন, তাঁরা ডিজিটাল ডিভাইস বসিয়েছেন।

এখন গ্রাহকদের সেট টপ বক্স সরবরাহ করা হবে। গ্রাহকেরা এই সেট টপ বক্স না বসালে ৩০ নভেম্বরের পর টেলিভিশন দেখার ক্ষেত্রে ব্যত্যয় হবে।

আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে বিভাগীয় ও মেট্রোপলিটন শহর ছাড়াও কুমিল্লা, বগুড়া, দিনাজপুর, কুষ্টিয়া, রাঙ্গামাটি ও কক্সবাজার জেলা শহরে কেবল নেটওয়ার্ক ডিজিটালাইজ করার সিদ্ধান্ত হয়েছিল।

এসব অঞ্চলের সঙ্গে যশোর, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইল, পাবনাসহ সব পুরোনো জেলা শহরের কেবল নেটওয়ার্কও ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে ডিজিটাল করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এ বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, দেশ ডিজিটাল হলেও এখনো কেবল নেটওয়ার্কিং সিস্টেম ডিজিটাল হয়নি। ভারতে হয়ে গেছে, নেপালে ব্যাপক আকারে হয়ে গেছে। আমাদের দেশে এটি করলে সবার জন্যই সুবিধা।

গ্রাহকরা ভালোভাবে টেলিভিশন দেখতে পাবেন। কেবল নেটওয়ার্ক ডিজিটাল না হওয়ায় সরকার প্রতিমাসে ১২৫ থেকে ১৫০ কোটি টাকা ট্যাক্স পাচ্ছে না।

কেবল অপারেটিংয়ের সঙ্গে যারা যুক্ত তারাও কিন্তু গ্রাহকদের কাছ থেকে যেটুকু পাওয়ার কথা তা পায় না। কারণ কেবল অপারেটরেরা ফিড অপারেটরের মাধ্যমে পরিচালনা করে।

দেখা যায় ফিড অপারেটরের গ্রাহক আছে ১০ বা ৫ হাজার কিন্তু তাঁরা হিসাব দেয় ১ হাজারের। এভাবে তাঁরাও বঞ্চিত হচ্ছেন। আমাদের টিভি কর্তৃপক্ষও নানাভাবে বঞ্চিত হচ্ছে।

তারাও জানছে না, কত দর্শক তাদের টেলিভিশন দেখছে। যখন নেটওয়ার্কিং সিস্টেম ডিজিটালাইজড হয়ে যাবে তখন কোনো চ্যানেল যদি পে-চ্যানেল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে চায় তাঁদের পক্ষে সেটা সম্ভব হবে।

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, সেট টপ বক্সের দাম কেবল অপারেটরেরা একসঙ্গে নেবে না, সেটি ১২ থেকে ৩০ কিস্তিতে নেবেন বলে জানিয়েছেন।

এটা গ্রাহকদের সঙ্গে তাঁদের বিষয়, এটা সরকার ঠিক করে দেবে না। সরকার থেকে মনিটরিংয়েরও প্রয়োজন নেই। চাহিদা বাড়লে দাম বাড়ার কোনো সুযোগ নেই।

চাহিদা বাড়লে দাম কমার সম্ভবনা রয়েছে। গ্রাহক যদি চান, কেবল অপারেটরের কাছ থেকে না নিয়ে নিজেই বাজার থেকে কিনে নিতে পারবেন। সেপ টপ বক্স নিয়ে কাউকে মনোপলি করতে দেব না।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

উপসচিব বদরুন নাহারের মৃত্যুতে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ও সচিবের শোক

 

সরকারের বিদ্যুৎ বিভাগের উপসচিব বদরুন নাহারের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

রোববার এক শোকবার্তায় প্রতিমন্ত্রী বলেন, বদরুন নাহার ছিলেন একজন সৎ ও নিষ্ঠাবান কর্মকর্তা। তার মৃত্যুতে দেশ একজন দেশপ্রেমিক কর্মকর্তাকে হারাল।

প্রতিমন্ত্রী মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

উপসচিব বদরুন নাহারের মৃত্যুতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কেএম আলী আজমও গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

বদরুন নাহার ক্যানসার আক্রান্ত হয়ে ভারতের চেন্নাইয়ে অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গত ২৯ অক্টোবর ভোরে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৪৬ বছর।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের হল সম্মেলন ঘোষণা

 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্ভুক্ত ১৮টি হল ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ২৮ নভেম্বর থেকে এই সম্মেলন শুরু হবে।

শনিবার ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সনজিত চন্দ্র ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্বাধীনতা ও মুক্তিসংগ্রামের আঁতুড়ঘর, বাংলার ছাত্র সমাজের আশা-আকাঙ্ক্ষার স্থায়ী ঠিকানা বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্ভুক্ত ১৮টি হল ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন আগামী ২৮ নভেম্বর থেকে অনুষ্ঠিত হবে।

এতে আরও বলা হয়, সম্মেলন উৎসবমুখর, নান্দনিক ও সুপরিকল্পিত করতে প্রতিটি হলের কর্মীদের সাংগঠনিক প্রস্তুতি গ্রহণের নির্দেশনা পূর্বক আগামীর নেতৃত্বকে শহিদের রক্তস্নাত, সত্য-সুন্দর-ন্যায়ের প্রতি দায়বদ্ধ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা ও বাংলাদেশের সাহসী অভিযাত্রার অবিকল্প সারথি বঙ্গবন্ধুতনয়া দেশরত্ন শেখ হাসিনার রূপকল্প উপযোগী হয়ে গড়ে ওঠার আহ্বান জানানো হচ্ছে।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

ছাত্রদলের ১১টি সাংগঠনিক টিম বিলুপ্ত ঘোষণা

 

ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, বরিশাল, সিলেটসহ বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ১১টি সাংগঠনিক টিম বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল এক সাংগঠনিক কার্যনির্বাহী সভায় এই সিদ্ধান্ত অনুমোদন করেন।

রোববার ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহ দপ্তর সম্পাদক আজিজুল হক সোহেল স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

 

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ও সাংগঠনিক অভিভাবক দেশনায়ক জনাব তারেক রহমানের নির্দেশনাক্রমে তৃণমূলে ছাত্রদলের নেতৃত্বকে শক্তিশালী ও সুসংগঠিত করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে টিম পুনর্গঠনের অংশ হিসেবে দেশব্যাপী সাংগঠনিক বিভাগ ভিত্তিক গঠিত বিদ্যমান ১১টি সাংগঠনিক টিম বিলুপ্ত ঘোষণা করা হলো।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

ফেসবুকের বিরুদ্ধে প্রতিমন্ত্রী পলকের ক্ষোভ

 

সোশ্যাল মিডিয়ার জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুকের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

তিনি বলেন, ব্যবহারকারীর অজান্তেই ৭০ হাজার তথ্য সংগ্রহ করে নিচ্ছে। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রযুক্তি ব্যবহার করে ফেসবুক এই তথ্যগুলোর মধ্যে দুর্বল দিক ব্যবহারের মাধ্যমে ব্যবসা করছে।

আয় করছে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার। পক্ষান্তরে এই দুর্বল ও মিথ্যা তথ্যগুলোর মাধ্যমে ২০১২ সালে রামুতে, ২০১৬ সালে নাসিরনগরে, ২০১৭ ঠাকুরপারা এবং ২০১৯ সালে ভোলায় সবশেষ ২০২১ সালে কুমিল্লা, নোয়াখালী, চাঁদপুর ও রংপুরে প্রাণহানি ও সম্পদ বিনষ্ট করা হয়েছে।

রোববার ৩১ অক্টোবর আগারগাঁওয়ে আইসিটি টাওয়ারে বিসিসি মিলনায়তনে বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে তিনি এ সব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে উন্মোচন করা হয়, গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পরিকাঠামো গাইডলাইনস ও সাইবার সিকিউরিটি স্ট্র্যাটেজি ২০২১-২০২৫।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারে আবেগ-অভিব্যক্তি প্রকাশে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, কোনো মহল যেন দেশের সুনাম ও মর্যাদা নষ্ট এবং বিশৃঙ্খলা তৈরি করতে না পারে সে ব্যাপারে সবাইকে সচেতন হতে হবে।

এজন্য আইসিটি বিভাগের অধীন ডিজিটাল লিটারেসি সেন্টার প্রতিষ্ঠা করে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলমান রাখা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

চার বছরে দেশে হার্ডওয়্যার শিল্পখাতে সক্ষমতা অর্জন হয়েছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, করোনাকালীন গত ২০ মাসে সাইবার সিকিউরিটির জন্য প্রযুক্তি উদ্যোক্তা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো এখন বর্তমান বিশ্বে নেতৃত্ব দিচ্ছে।

সাইবার নিরাপত্তায় জনশক্তির বৈশ্বিক চাহিদার তথ্যচিত্র উপস্থাপন করে তিনি বলেন, বিশ্বে এখন সাইবার সিকিউরিটি এক্সপার্টের চাহিদা প্রতিনিয়ত বাড়ছে, যা পূরণ করা সম্ভব হচ্ছে না। বর্তমানে বিশ্বে ৩৫ লাখ সাইবার সিকিউরিটি এক্সপার্টের প্রয়োজন।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী গ্লোবাল সাইবার সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞের চাহিদা মেটাতে দেশের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ডিপ্লোমা কোর্স, সার্টিফিকেট কোর্স ও ব্যাচেলর ডিগ্রি চালু করার জন্য ইউনিভার্সিটি গ্র্যান্ড কমিশনের প্রতি আহবান জানান।

তিনি চতুর্থ শিল্পবিপ্লবেও নিজেদের সক্ষমতা গড়ে তুলতে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পরিকল্পনার কথাও তুলে ধরেন।

আইসিটি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকর্ণ কুমার ঘোষ, ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সির মহাপরিচালক খায়রুল আমীন।

সাইবার সিকিউরিটি স্ট্রাটেজির ওপর মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ডিজিটাল সিকিউরিটি এজেন্সির পরিচালক এবং বিজিডি ই-গভসার্টের প্রকল্প পরিচালক তারেক এম বরকত উল্লাহ।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

প্রথমবার জনসম্মুখে এসে যা বললেন আখুন্দজাদা

 

আড়ালে থাকা তালেবানের শীর্ষ নেতা হিবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা প্রথমবারের মতো জনসম্মুখে এসে নিজের জন্য দোয়া চেয়েছেন। এ সময় তিনি যুদ্ধে হতাহত তালেবান যোদ্ধাদের জন্য দোয়া করেন।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শনিবার কান্দাহারে দারুল উলুম হাকিমা মাদ্রাসা পরিদর্শন করেন তালেবানের শীর্ষ নেতা হিবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা।

সেখানে প্রায় ১০ মিনিট সমর্থকদের সামনে কথা বলেন তিনি। আখুন্দজাদার ওই বক্তব্যের অডিও রেকর্ডিং তালেবান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করেছে বলে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

তবে ওই অনুষ্ঠানে তালেবানের শীর্ষনেতার কোনো ছবি বা ভিডিও প্রকাশ করা হয়নি। সেখানে কঠোর নিরাপত্তা ছিল বলে গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে।

অডিও রেকর্ডিংয়ে আখুন্দজাদাকে বলতে শোনা গেছে, গত ২০ বছর ধরে যারা কাফের এবং অত্যাচারীদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন সেইসব নির্যাতিত আফগান জনগণকে সৃষ্টিকর্তা পুরস্কৃত করবেন।

আমার এখানে আসার উদ্দেশ হলো আপনাদের জন্য দোয়া করা,আপনারাও আমার জন্য দোয়া করবেন।

১০ মিনিটের ওই অডিও রেকর্ডিংয়ে আখুন্দজাদা যুদ্ধে নিহত ও আহত তালেবান যোদ্ধাদের জন্য দোয়া করেন। ইসলামী আমিরাত পুনর্গঠনের ‘বৃহৎ পরীক্ষায়’ জড়িত কর্মকর্তাদের সফলতার জন্যও দোয়া করেন তিনি।

তিনি বলেন, এই বৃহৎ পরীক্ষায় যেন আমরা সহজে উতরে যাই সেই দোয়াই করি। আল্লাহ আমাদের শক্ত থাকার তৌফিক দিন।

চলতি বছরের ১৫ আগস্ট তালেবান দ্বিতীয় দফায় আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর সংগঠনটির সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের দেখা মিললেও সর্বোচ্চ নেতা হিবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা এতদিন পর্দার আড়ালেই ছিলেন।

তালেবানের এই সুপ্রিম লিডার কোথায় আছেন তা নিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো একের পর এক রিপোর্ট প্রকাশ করছে।

তালেবান নেতারা শুরু থেকেই জানিয়েছেন, আখুন্দজাদা আফগানিস্তানেই আছেন। শিগগিরই তিনি জনসম্মুখে আসবেন।

আখুন্দজাদা পাকিস্তানের সেনা হেফাজতে রয়েছে বলে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা তাদের অভ্যন্তরীণ তদন্তে জানিয়েছিল।

তালেবান নেতা আখতার মানসুর মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত হওয়ার পর ২০১৬ সালের ২৫ মে থেকে তিনি তালেবানের সুপ্রিম কমান্ডারের দায়িত্বে রয়েছেন হিবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা।

আশির দশকে তিনি সোভিয়েত ইউনিয়নের বিরুদ্ধে যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। তবে সামরিক নেতার তুলনায় একজন ধর্মীয় নেতা হিসাবে তার পরিচিতি বেশি।

আখুন্দজাদা ১৯৯০ এর দশকে আফগানিস্তানের শরিয়া আদালতের প্রধান ছিলেন। আখুন্দজাদার বয়স ৬০ বছর বলে ধারণা করা হয় এবং জীবনের বেশিরভাগ সময় তিনি আফগানিস্তানে কাটিয়েছেন।

বিশেষজ্ঞরা মনে করেন তিনি কোয়েটা শুরার সঙ্গে সম্পর্ক রক্ষা করে চলেন। এরা মূলত পাকিস্তানের কোয়েটাভিত্তিক আফগান তালেবান নেতা।

দলের সুপ্রিম লিডার হিসেবে রাজনৈতিক, সামরিক ও ধর্মীয় বিষয়ের প্রধান আখুন্দজাদা। উচ্চশিক্ষিত আখুন্দজাদা সেই অর্থে তালেবানের হয়ে কার্যকলাপে অংশ নেন না। বরং ইসলামের নানা ব্যাখ্যার কাজ করে থাকেন তিনি।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

পিবিআইয়ের প্রতিবেদনে সালমান শাহর মায়ের আপত্তি

 

ঢাকাই সিনেমার অমর নায়ক সালমান শাহর মৃত্যু নিয়ে মামলায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের- পিবিআই তদন্ত প্রতিবেদন নিয়েও আপত্তি জানিয়েছেন তার মা নীলা চৌধুরী।

রোববার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম মামুনুর রশিদের আদালতে তার আইনজীবী ফারুক আহাম্মদ এই আবেদন জমা দেন।

তিন দফা তদন্তের পর এ চিত্রনায়কের মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলা হলেও তা মানতে রাজি নন তার পরিবার। তার মায়ের দাবি এটি হত্যাকাণ্ড।

পিবিআইয়ের তদন্তে সালমান শাহকে হত্যার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। পারিবারিক কলহ ও মানসিক যন্ত্রণায় তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

রোববার পিবিআইয়ের প্রতিবেদনের গ্রহণযোগ্যতার শুনানির দিন ধার্য ছিল। মামলার বাদী সালমান শাহের মা লন্ডনে থাকায় তার পক্ষে আইনজীবী নারাজির আবেদন করেন।

পাশাপাশি নীলা চৌধুরীর রেকর্ড করা জবানবন্দি উপস্থাপনের জন্য আদালতের অনুমতি চান তিনি। এছাড়া মামলায় এক আসামির ভিডিও রেকর্ডের কপি চেয়ে আরেকটি আবেদন করেন।

আদালতকে আইনজীবী ফারুক আহাম্মদ বলেন, নীলা চৌধুরী লন্ডনে অসুস্থ। তাই তিনি নিজে আসতে পারেননি। তিনি এ মামলায় পুনঃতদন্ত চান।

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর সালমানের মৃত্যু হয়। সেই থেকে তার মৃত্যু নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল। হত্যা নাকি আত্মহত্যা? অবশেষে পিবিআই জানিয়েছে, আত্মহত্যা করেছিলেন সালমান।

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর সালমানের রহস্যজনক মৃত্যুর পর এ বিষয়ে অপমৃত্যুর মামলা করেন তার বাবা কমরউদ্দিন আহমদ চৌধুরী। ১৯৯৭ সালের ৩ নভেম্বর আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয় সিআইডি।

চূড়ান্ত প্রতিবেদনে সালমান শাহর মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলে উল্লেখ করা হয়। সিআইডির প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে কমরউদ্দিন আহমদ চৌধুরী মহানগর দায়রা জজ আদালতে রিভিশন আবেদন করেন।

২০০৩ সালের ১৯ মে মামলাটি বিচার বিভাগীয় তদন্তে পাঠানো হয়। প্রায় ১২ বছর পর ২০১৪ সালের ৩ আগস্ট বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। তাতেও সালমান শাহর মৃত্যুকে অপমৃত্যু হিসেবে উল্লেখ করা হয়।

২০১৫ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি নীলা চৌধুরী ঢাকা মহানগর হাকিম জাহাঙ্গীর হোসেনের আদালতে বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়ে নারাজির আবেদন দাখিল করেন।

নারাজি আবেদনে উল্লেখ করা হয়, আজিজ মোহাম্মদ ভাইসহ ১১ জন তার ছেলে সালমান শাহের হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকতে পারেন।

মামলাটি এর পর র্যা ব তদন্ত করে। তবে র‌্যাবের দ্বারা তদন্তের আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ গত বছরের ১৯ এপ্রিল মহানগর দায়রা জজ আদালতে একটি রিভিশন মামলা করে।

২০১৬ সালের ২১ আগস্ট ঢাকার বিশেষ জজ ৬-এর বিচারক ইমরুল কায়েস রাষ্ট্রপক্ষের রিভিশনটি মঞ্জুর করেন এবং র‌্যাবকে মামলাটি আর না তদন্ত করার আদেশ দেন। তার পর মামলাটির তদন্তভার যায় পিবিআইয়ের হাতে।

উল্লেখ্য, ১৯৯৩ সালে কেয়ামত থেকে কেয়ামত ছবি দিয়ে দেশীয় চলচ্চিত্রে আগমন ঘটে সালমান শাহর। স্মার্টনেস-গ্লামার ও পারসোনালিটির কারণে রাতারাতি তরুণ প্রজন্মের আইকনে পরিণত হয়ে ওঠেন এ নায়ক। মাত্র সাড়ে তিন বছরের ক্যারিয়ারে ২৭টি ছবি করেন। যার অধিকাংশই সুপারহিট।

মৌসুমীর সঙ্গে জুটি বেঁধে চলচ্চিত্র অঙ্গনে পা রাখলেও সালমানের বেশিরভাগ ছবির নায়িকা শাবনূর। এই জুটি তখন এমন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল যে, যে কোনো ছবি মুক্তি পেলেই দর্শক প্রেক্ষাগৃহে হুমড়ি খেয়ে পড়তেন।

একপর্যায়ে শাবনূরের সঙ্গে বিবাহিত সালমানের সম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জন ওঠে। এর পর কলহ দেখা দেয় সালমানের পরিবারে।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

ঢাকায় বাকপ্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণচেষ্টা  

 

রাজধানীর ভাটারায় বাকপ্রতিবন্ধী এক কিশোরীকে ধর্ষণচেষ্টা করা হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার রাতে শেওড়া রেলগেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ভাটারা থানার এএসআই পারভেজ জানান, ওই প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে।

এ বিষয়ে মামলা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

কারওয়ানবাজারে ২২ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার

 

রাজধানীর কারওয়ানবাজার এলাকা থেকে ২২ কেজি গাঁজাসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

শনিবার বিকালে তাদের গ্রেফতার করে ডিএমপির গোয়েন্দা তেজগাঁও বিভাগ। খবর ডিএমপি  নিউজের।

গ্রেফতাররা হলেন- মো. সাদ্দাম হোসেন, মো. আনোয়ার হোসেন, মো. সজীব ও আবু ইউসুফ কাজল।

গোয়েন্দা তেজগাঁও বিভাগের সহকারী পুলিশ কমিশনার হাসান মুহাম্মদ মুহতারিম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী কারওয়ানবাজারের বিটিএমসি অফিসের সামনে গাঁজা নিয়ে অবস্থান করছে বলে তথ্য পাই। পরে সেখানে অভিযান চালিয়ে একটি প্রাইভেটকারসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তল্লাশি করে গাড়ির ভেতর থেকে ২২ কেজি গাঁজা জব্দ করা হয়।

হাসান মুহাম্মদ আরও বলেন, গ্রেফতাররা কুমিল্লা জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে গাঁজা এনে করে ঢাকা শহর ও আশপাশ এলাকায় বিক্রি করতো।

তাদের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় মামলা হয়েছে বলে জানান গোয়েন্দা পুলিশের এ কর্মকর্তা।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

৩১৭টি ওয়াকিটকি সেটসহ পাঁচজনকে আটক

 

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩১৭টি ওয়াকিটকি সেটসহ পাঁচজনকে আটক করেছে র‌্যাব-১০।

শনিবার রাতে একাধিক অভিযানে তাদের আটক করা হয়। তবে প্রাথমিকভাবে আটকদের পরিচয় জানায়নি র‌্যাব।

র‌্যাব ১০-এর সহকারী পরিচালক এএসপি এনায়েত কবির সোয়েব জানান, সায়েদাবাদ, মনিপুরীপাড়া, রাজারবাগ ও শেওড়াপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩১৭টি অবৈধ ওয়াকিটকি ওয়্যারলেস সেটসহ পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে।

রোববার কারওয়ানবাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে বলে তিনি জানান।

 

 

Edited By: K F

 

 

ফ্লাইওভারে বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেল তরুণীর

 

রাজধানীর হানিফ ফ্লাইওভারে বাসের ধাক্কায় এক তরুণী নিহত হয়েছেন। শনিবার মধ্যরাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ওই তরুণীর নাম মুমতাহিনা পিয়া। বয়স ২০ বছর।

পিয়া এক স্বজনের মোটরসাইকেলের পেছনের সিটে বসা ছিলেন। চাকায় বোরকার প্রান্ত আটকে যাওয়ায় নেমে ঠিক করছিলেন।

এ সময় বেপরোয়া গতির বাস তাকে চাপ দেয়। তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

যাত্রাবাড়ী থানার ওসি মো. মাজহারুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, ওই তরুণীর বাড়ি মুন্সীগঞ্জ সদরে। শনিবার তিনি ঢাকায় এসেছিলেন কেনাকাটা করতে। রাতে অনিক নামে এক স্বজনের সঙ্গে মোটরসাইকেলে মুন্সীগঞ্জে ফেরার পথে দুর্ঘটনায় পড়েন।

পরিবারের আবেদনে পিয়ার লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান মাজহারুল ইসলাম।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

আমন ধান, চাল ও গমের দাম নির্ধারণ

 

এ বছর আমন ধান, চাল ও গমের সরকারি সংগ্রহ মূল্য নির্ধারণ করেছে সরকার। খাদ্য পরিকল্পনা ও পরিধারণ কমিটির সভায় আমন ধানের সরকারি ক্রয়মূল্য প্রতি কেজি ২৭ টাকা, চালের মূল্য প্রতি কেজি ৪০ টাকা এবং গমের মূল্য প্রতি কেজি ২৮ টাকা নির্ধারণ করা হয়।

চলতি অর্থবছরে ২০২১-২২ উল্লিখিত মূল্যে আগামী ৭ নভেম্বর থেকে আমন ধান ও চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু হবে।

এ সময়ে ৩ লাখ টন আমন ধান, ৫ লাখ টন সিদ্ধ চাল ক্রয় করা হবে। এ ছাড়া আগামী বছরের ১ এপ্রিল থেকে দেড় লাখ টন গম ক্রয়ের সিদ্ধান্ত হয়েছে। উল্লেখ্য, গত বছর আমন ধান ও চালের দাম ছিল যথাক্রমে ২৬ ও ৩৬ টাকা।

রোববার খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার সভাপতিত্বে খাদ্য পরিকল্পনা ও পরিধারণ কমিটির এক ভার্চুয়াল সভায় এ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সভায় কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

সভাপতির বক্তব্যে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, কৃষকের জন্য ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে চায় সরকার। পাশাপাশি খাদ্যের নিরাপত্তা মজুতও বৃদ্ধি করতে চায়।

বোরো ধান সংগ্রহে সফল হয়েছে সরকার।  সে ধারাবাহিকতায় আমন সংগ্রহেও সফলতা অর্জন সম্ভব হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

সভায় অর্থ মন্ত্রণালয়, কৃষি মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সিনিয়র সচিব ও সচিবগণ এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মতামত তুলে ধরেন।

 

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

জলবায়ুর ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোর জন্য চাই আরও তহবিল

 

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিকূল প্রভাব থেকে অধিক ঝুঁকির মুখে থাকা দেশগুলোকে রক্ষার জন্য আরও তহবিলের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের সভাপতি শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের হিসাব অনুযায়ী, আমাদের অর্থনীতিকে পরিবেশবান্ধব করে গড়ে তুলতে আগামী দশকে ছয় ট্রিলিয়ন থেকে ১০ ট্রিলিয়ন বিনিয়োগ করতে হবে।

এখন পর্যন্ত সিভিএফের অধিকাংশ দেশ হচ্ছে স্বল্পোন্নত, নিম্ন বা অগ্রগণ্য মধ্যম-আয়ের উন্নয়নশীল দেশ।

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় বিভিন্ন কৌশল উদ্ভাবনে সহায়তায় তাদের তহবিল ও বিশেষজ্ঞের সহযোগিতা প্রয়োজন। আর এটি শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে ইতোমধ্যে স্থবির হয়ে পড়েছে বলে বিজ্ঞানীরা সতর্ক করেছেন।

শেখ হাসিনা ও গ্লোবাল সেন্টার অন অ্যাডাপ্টেশনের সিইও প্যাট্রিক ভারকইজেনের যৌথভাবে লেখা একটি প্রবন্ধ আমেরিকান সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন নিউজউইক প্রকাশ করেছে।

‘জলবায়ুর পরিবর্তন থেকে বাঁচতে অধিক ঝুঁকির মুখে থাকা দেশগুলোর জন্য আরও অর্থের জোগান দেওয়া গুরুত্বপূর্ণ শীর্ষক তাদের এ যৌথ প্রবন্ধে উন্নয়শীল দেশগুলোকে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিকূল প্রভাব থেকে বাঁচাতে বার্ষিক তহবিলে উন্নত দেশগুলোর ১০০ বিলিয়ন ডলার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নেরও আহ্বান জানানো হয়েছে।

তারা লিখেছেন, ‘আমাদের জলবায়ু সংকট হচ্ছে বৈশ্বিক। এখন পর্যন্ত বিশ্বের প্রতিটি দেশে সমভাবে এর প্রভাব পড়তে দেখা যায়নি। চারটি মহাদেশের ৪৮ দেশের একটি গ্রুপ ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের জন্য জলবায়ুর পরিবর্তন হচ্ছে একেবারে অস্তিত্বের হুমকি। আর এটি অতিশয়োক্তি না।’

এ প্রবন্ধে তারা জলবায়ু সংকট থেকে নিজেদের বাঁচাতে বিশ্বের বড় ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, জলবায়ুর উন্নতি ঘটাতে সিভিএফ দেশগুলোর জন্য বিপুল অর্থের জোগান দেওয়া হলে জলবায়ুর ঝুঁকি থেকে বের হয়ে আসতে তারা পদক্ষেপ গ্রহণে সমর্থ হবে। আর তা বর্তমানে মহাবিপদের মুখে থাকা ৪৮ দেশের জন্য ভালো হবে।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

স্ট্রোকে আক্রান্ত গরিব রোগীদের ফ্রি চিকিৎসা সেবা

 

স্ট্রোক একটি ঘাতক ব্যাধি। প্রতি বছর প্রায় দেড় কোটি মানুষ এ রোগের আক্রান্ত হন। এর মধ্যে মারা যান অর্ধ কোটি মানুষ আর অর্ধ কোটি পঙ্গুত্ব বরণ করেন। বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর দ্বিতীয় কারণ এটি। মারা যাওয়াদের দুই-তৃতীয়াংশ আমাদের মত দেশে ঘটে।

গবেষণায় দেখা গেছে, দেশে প্রতি ১ হাজার জনে প্রায় ১২ জন স্ট্রোকে আক্রান্ত হন। ঘাতক এ ব্যাধি থেকে বেঁচে থাকতে সচেতনতার বিকল্প নেই।

স্ট্রোক নিয়ে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য দেশে নিউরোলজির চিকিৎসায় নেতৃত্বদানকারী ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সস (নিনন্স)-এ  আজ সকালে বিশ্ব স্ট্রোক দিবস পালিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সোসাইটি অব নিউরোলজিস্ট অব বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ সোসাইটি অব স্ট্রোক ও নিউরোইন্টারভেনশন।

সকাল ৮ টায় বর্ণাঢ্য র‍্যালির মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সুচনা হয়। র‍্যালিতে চিকিৎসকদের পাশাপাশি রোগীর আত্মীয়-স্বজন যোগদান করেন।

সকাল ১১ টায় আয়োজন করা হয় সেমিনার। সেমিনারে চেয়ারপার্সন হিসেবে ছিলেন প্রখ্যাত নিউরোলজিস্ট অধ্যাপক ডা. কাজী দীন মোহাম্মদ। প্রধান অতিথি ছিলেন অধ্যাপক ফিরোজ আহম্মেদ কোরাইশি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডা. মো. বদরুল আলম ও আবু নাসার রিজভী।

প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন ডা. খাইরুল কবির পাটোয়ারি, ডা. শিরাজী শফিকুল ইসলাম ও ডা. এটিএম হাছিবুল হাসান। অনুষ্ঠান উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক মালিহা হাকিম, অধ্যাপক জাহেদ হোসেন, অধ্যাপক খুরশীদ মাহমুদ, অধ্যাপক রাজিব নারায়ন চৌধুরী, অধ্যাপক জহিরুল হক চৌধুরী, ডা. সুভাষ কান্তি দে।

প্রবন্ধ উপস্থাপনায় বক্তারা বলেন, স্ট্রোকের চিকিৎসা যত দ্রুত করা সম্ভব তত ফলাফল ভালো হয়। স্ট্রোকের চিকিৎসায় দেরি করলে উন্নতি হওয়ার সম্ভবনা কমে যায়। তাই দেরি না করে দ্রুত হাসপাতালে নিতে হবে।

 

স্ট্রোকের লক্ষণ কী কী?

যদি মুখ বেঁকে যায়, এক হাত অবশ হয়ে যায়, কথা জড়িয়ে যায় তাহলে দেরি না করে দ্রুত হাসপাতালে নিতে হবে। সাড়ে চার ঘন্টার মধ্যে নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে নিলে অত্যাধুনিক আইভি থ্রোম্বলাইসিস করা সম্ভব। স্ট্রোক প্রতিরোধে ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করা, ধুমপান না করা ও নিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপন করা জরুরি।

 

গরিব রোগীদের জন্য বিশেষ সেবা

বাংলাদেশ সোসাইটি অব স্ট্রোক ও নিউরোইন্টারভেনশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক কাজী মহিবুর রহমান বলেন, আমাদের দেশে স্ট্রোক রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে।

স্ট্রোকের আধুনিক সব চিকিৎসা ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে হচ্ছে। স্ট্রোকের অত্যাধুনিক চিকিৎসা যেটাকে মেকানিক্যাল থোম্বেক্টমি বলে আগামী বছর থেকে দেশে প্রথমবারের মত নিনন্সেই শুরু হবে বলে আশা করছি।

নিনন্সেই নিয়মিতভাবে স্ট্রোকের আধুনিক চিকিৎসা আইভি থ্রোম্বলাইসিস, রক্তনালীর ফোস্কা বা এনিউরিজম, এভিএম বা অস্বাভাবিক রক্তনালীর চিকিৎসা হচ্ছে।

বাংলাদেশ সোসাইটি অব স্ট্রোক ও নিউরোইন্টারভেনশনের সভাপতি অধ্যাপক শরীফ উদ্দিন খান বলেন, বাংলাদেশে সরকারিভাবে একমাত্র নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে নিয়মিতভাবে আইভি থ্রোম্বলাইসিস করা হচ্ছে। শুধু তাই নয় এ হাসপাতালের ইন্টারভেনশনাল নিউরোলজি বিভাগ স্ট্রোকের অত্যাধুনিক চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছে।

সোসাইটি অব নিউরোলজিস্ট অব বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ফিরোজ আহম্মেদ কোরাইশি স্ট্রোকের আধুনিক চিকিৎসা আইভি থ্রোম্বলাইসিস জেলা পর্যায়ে ছড়িয়ে দিতে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের আহবান জানান।

 

নিউরোসায়েন্সস হাসপাতালের যুগ্ম- পরিচালক অধ্যাপক বদরুল আলম মন্ডল বলেন, নিউরোসায়েন্স হাসপাতাল স্ট্রোক চিকিৎসায় দিকপালের কাজ করছে।

স্ট্রোকের অত্যাধুনিক চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছে এটি। এ পর্যন্ত একশোর বেশি আইভি থ্রোম্বলাইসিস করেছে। রোগীরাও সুস্থ আছে। শুধু তাই নয় গরীব রোগীদের এ অত্যাধুনিক চিকিৎসা ফ্রি করছে নিনন্স।

উপজেলার চিকিৎসক ও নার্সদের স্ট্রোকের চিকিৎসার প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। তরুণদের মধ্যে স্ট্রোকের হার বাড়ছে। এটা প্রতিরোধ করার এখনই চেষ্টা করতে হবে।

 

 

 

Edited By: K F

 

জামিন পেলেন নাসির-তামিমা 

 

তালাক না দিয়ে অন্যের স্ত্রীকে বিয়ে করার অভিযোগে করা মামলায় ক্রিকেটার নাসির হোসেন, তামিমা সুলতানা তাম্মি ও তার মা সুমি আক্তার জামিন পেয়েছেন।

রোববার ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসীমের আদালতে তারা জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।

নাসিরের আইনজীবী মোরশেদুল ইসলাম বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর নাসির, তামিমা ও তার মা সুমি আক্তারকে ৩১ অক্টোবর আদালতে হাজিরের নির্দেশ দিয়ে সমন জারি করা হয়।

এ সংক্রান্ত মামলায় তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসীমের আদালত এ সমন জারি করেন।

এর আগে ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তামিমা সুলতানা তাম্মিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেন তামিমার প্রথম স্বামী ব্যবসায়ী মো. রাকিব হাসান।

তামিমা ও রাকিব হাসানের বিবাহবিচ্ছেদ সংক্রান্ত নথি জালিয়াতির মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছে। রাকিব হাসানকে ডিভোর্স না দিয়েই তামিমা নাসির হোসেনকে বিয়ে করেন।

বৃহস্পতিবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসীমের আদালতে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের দাখিল করা এমন প্রতিবেদনের পরই তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার আবেদন করেন তামিমার প্রথম স্বামী ব্যবসায়ী মো. রাকিব হাসান।

সংশ্লিষ্ট মামলার তদন্তে ক্রিকেটার নাসির হোসেন, সৌদিয়া এয়ারলাইন্সের বিমানবালা তামিমা সুলতানা তাম্মি ও তামিমার মা সুমি আক্তারকে দোষী উল্লেখ করে প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়েছে।

তালাক বৈধ না হওয়ায় সৌদিয়া এয়ারলাইন্সের কেবিন ক্রু তামিমা সুলতানা তাম্মি এখনও ব্যবসায়ী রাকিব হাসানের স্ত্রী।

তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে- তালাক যথাযথ হয়নি জেনেও নাসির বিয়ে করেছেন তামিমাকে। তামিমা রাকিবকে তালাক দেননি।  আইনগতভাবে রাকিব তালাকের কোনো নোটিশও পাননি।

তামিমা উল্টো জালিয়াতি করে তালাকের নোটিশ তৈরি করে তা বিভিন্ন মাধ্যমে প্রকাশ করেছেন। যথাযথ প্রক্রিয়ায় তালাক না দেওয়ার ফলে তামিমা তাম্মি এখনও রাকিবের স্ত্রী হিসেবে বহাল রয়েছেন।

দেশের ধর্মীয় বিধিবিধান ও আইন অনুযায়ী এক স্বামীকে তালাক না দিয়ে অন্য কাউকে বিয়ে করা অবৈধ এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এমন পরিস্থিতিতে ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তামিমা তাম্মির বিয়ে অবৈধ বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে ডিভোর্স পেপার ছাড়াই অন্যের স্ত্রীকে বিয়ে করার অভিযোগে ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তার স্ত্রী তামিমার বিরুদ্ধে করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ৩০ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছিলেন আদালত।

গত ৩১ আগস্ট ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসীমের আদালতে মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। এদিন মামলার তদন্ত সংস্থা পিবিআই প্রতিবেদন দাখিল করেনি। এ জন্য বিচারক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ৩০ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেন।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি তামিমার প্রথম স্বামী মো. রাকিব হাসান বাদী হয়ে এ মামলা করেন।  ওই দিনই আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করেন। এর পর শুনানি শেষে বিকালে আদালত মামলার অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে পিবিআইকে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি তামিমা ও রাকিবের বিয়ে হয়।  তাদের আট বছরের একটি মেয়েও রয়েছে। তামিমা পেশায় একজন কেবিন ক্রু।

চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি তামিমা ও ক্রিকেটার নাসির হোসেনের বিয়ের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা রাকিবের নজরে আসে। পরে পত্রপত্রিকায় তিনি ঘটনার বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারেন।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

বুজতলা ও লটাদিঘা এলাকায় চেয়ারম্যান প্রার্থী মফিজের পথসভা

 

ইয়ানূর রহমান, যশোর :  উন্নয়নের বার্তা নিয়ে বাহাদুরপুর ইউনিয়নের ডুবপাড়া-বুজতলা ও লটাদিঘা এলাকায় পথসভা করেছেন উক্ত ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও চেয়ারম্যান প্রার্থী মফিজুর রহমানের সমর্থকরা।

 

শনিবার বেনাপোল পোর্ট থানার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের ডুবপাড়া-বুজতলা ও লটাদিঘা প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত পথসভা কয়েক গ্রামের নারী পুরুষের উপস্থিতিতে বিশাল জনসভায় রুপ নেয়।

বাহাদুরপুর ইউনিয়নের ডুবপাড়া-বুজতলা ও লটাদিঘা ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতা আলতাফ হোসেনের সভাপতিত্বে ও মফিজুর মেম্বরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত পথসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদাণ করেন বাহাদুরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও চেয়ারম্যান প্রার্থী মফিজুর রহমান।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মফিজুর রহমান বলেন, দীর্ঘকাল যাবত তিনি আওয়ামীলীগের কান্ডারী হয়ে স্থানীয় এমপি আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিনের পরামর্শ ও দোয়া নিয়ে নিজ এলাকার তৃর্ণমূল আওয়ামীলীগকে সেবা যত্ন দিয়ে সুসংগঠিত করেছেন।

জনগণের পাশে থেকে আওয়ামীলীগ সরকারের উন্নয়নে সহযোগিতা করে এলাকার চিটেল কাদাযুক্ত রাস্তাঘাট করেছেন পিঁচঢালা পাকা আর ভূতুঢ়ে অন্ধকারাচ্ছন্ন পল্লীকে বিদ্যুতের আলো ঢেলে দিয়ে করেছেন আলোকময়।

সর্বখানে স্থানীয় এমপি শেখ আফিল উদ্দিনের অবদানে এলাকায় গড়ে দিয়েছেন স্বপ্নের অনেক ৪ তলা বিশিষ্ঠ শিক্ষা ভবনসহ বহু শিক্ষালয়, মসজিদ-মাদ্রাসা।

তাই, দেশের উন্নয়নে সাথে একযোগে বাহাদুর ইউনিয়নবাসীর সেবার মান অক্ষুন্ন রাখতে আগামী ২৮ নভেম্বর-২০২১ অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে তাকে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত করার পাশাপাশি দোয়া কামনা করেছেন তিনি।

উক্ত কর্মী সভায় উপস্থিত ছিলেন বাহাদুরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ইউনুছ আলী মেম্বর, বকতিয়ার মেম্বর, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মান্নান মেম্বর, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও মেম্বর শাহাজান আলী মিয়া, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ফারুখ হোসেন, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক মেম্বর লিয়াকত আলী ভান্ডারী, আওয়ামীলীগ নেতা বাদশা মল্লিক, মোশারফ হোসেন, যুবলীগ নেতা আসাদুজ্জামান আশা ও বাহার আলী।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বাহাদুরপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সহ সভাপতি আক্কাচ আলী, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান তিতাস, সাংগঠনিক সম্পাদক ইব্রাহিম, জুলহাস হোসেন, প্রচার সম্পাদক তরিকুল ইসলাম, সাগর আহমেদ সাকের আলী মেম্বর, ৮নং শাখারীপোতা ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি রকিব সরদার, সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন, যুবলীগের সভাপতি কামাল মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক শামীমুর রহমান, ধান্যখোলা ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আদম আলী, সাধারণ সম্পাদক হাসান আলী মেম্বর, যুবলীগের সভাপতি শফিয়ার রহমান, সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুখ ভোটার, ডুবপাড়া-বুজতলা ও লটাদিঘা ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতা মুকুল হোসেন, নাজির হোসেন, মিন্টু, জমাত আলী, শুকচাঁন, জসীমউদ্দিন, যুবলীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাক, যুবলীগ নেত্রী তন্নীসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগের সকল সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

এক ঘণ্টার মেয়র রূপা

 

এক ঘণ্টার জন্য বরগুনা পৌরসভার মেয়র মো. কামরুল আহসান মহারাজের কাছ থেকে দায়িত্ব গ্রহণ করে প্রতীকী মেয়রের দায়িত্ব পালন করেন উম্মে হাবিবা রূপা নামে এক স্কুলছাত্রী।

শনিবার কন্যাশিশু দিবস উপলক্ষে নারীর ক্ষমতায়নের জন্য বেসরকারি সংস্থা প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ ও সিবিডিপির উদ্যোগে বাংলাদেশ গার্লস টেকওভার’ কর্মসূচির আয়োজন করে ন্যাশনাল চিলড্রেনস টাস্ক ফোর্স বরগুনা জেলা শাখা।

বরগুনা পৌরসভার অফিসিয়াল কভার ফাইলের মাধ্যমে দায়িত্ব হস্তান্তর করেন বর্তমান মেয়র মো. কামরুল আহসান মহারাজ ও দায়িত্ব গ্রহণ করেন ন্যাশনাল চিলড্রেনস টাস্ক ফোর্স বরগুনা জেলা শাখার চাইল্ড পার্লামেন্টের সদস্য ও বরগুনা সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থী উম্মে হাবিবা রূপা।

এ সময় শিশু উম্মে হাবিবা রূপা বলেন, বরগুনা পৌরসভাকে সব শিশুর জন্য সুরক্ষিত রাখব। বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে শিশু, যুব, স্থানীয় প্রশাসন, সাংবাদিক এবং এলাকার সর্বস্তরের নাগরিকের সহযোগিতায় প্রতিরোধ গড়ে তুলব।

শিশুদের বিকাশে বরগুনা পৌরসভায় একটি শিশুপার্ক ও বিনোদন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করব।

এছাড়াও বরগুনা পৌরসভাকে নারী ও শিশুর জন্য নিরাপদ ও যৌন হয়রানি বা নির্যাতন এবং বৈষম্যহীন একটি শহর হিসেবে গড়ে তুলতে তিনি কয়েকটি প্রস্তাব উপস্থাপন করেন।

পৌর মেয়র মো. কামরুল আহসান মহারাজ বলেন, নারীদের বা আমাদের কন্যাদের একটু বেশি সুযোগ দিলে তারা অনেক কিছু করতে পারে। তাদের সুযোগ দেওয়া প্রয়োজন।

এ বিষযে উন্নয়ন সংগঠন সিবিডিপির নির্বাহী পরিচালক জাকির হোসেন মিরাজ বলেন, প্রতীকী এ অনুষ্ঠানের পাশাপাশি শিশুদের জীবনবোধ, মূল্যবোধ এবং দেশাত্মবোধের উন্নয়নে নানামুখী কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে আসছে এনসিটিএফ।

আর এসব কর্মসূচি বাস্তবায়নে প্লান ইন্টারন্যাশনালের সহযোগিতায় এনসিটিএফকে সার্বিক সহযোগিতা দিয়ে আসছে স্থানীয় উন্নয়ন সংগঠন সিবিডিপি।

 

 

Edited By: K F

 

কোহলির রেকর্ড ভাঙলেন বাবর আজম

 

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পর থেকেই একের পর এক রেকর্ড গড়ে যাচ্ছেন রিবাট কোহলি।

ধারাবাহিক রান করে যাওয়া বিশ্বের অন্যতম এই ব্যাটসম্যান ইতোমধ্যে ৭০টি সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকারের শততম সেঞ্চুরি ছাড়িয়ে যাওয়ার পথেই আছেন কোহলি।

ভারতীয় এই তারকা ক্রিকেটারের একটি রেকর্ড ভেঙে দিলেন  পাকিস্তানের বর্তমান অধিনায়ক বাবর আজম।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অধিনায়ক হিসেবে হাজার রান করতে ৩০টি ইনিংস লেগেছিল কোহলির। শুক্রবার ২৬তম ইনিংসেই হাজার রানের মাইলফলক টপকে গেলেন বাবর।

বাবর আজমের নেতৃত্বাধীন দলটি চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হারায় চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতকে। দ্বিতীয় ম্যাচে হারায় নিউজিল্যান্ডকে। আর তৃতীয় ম্যাচে শুক্রবার হারায় আফগানিস্তানকে।

অধিনায়ক হিসেবে হাজার রানের তালিকায় রয়েছেন ফাফ ডু প্লেসি, অ্যারন ফিঞ্চ, কেন উইলিয়ামসনরা। দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক হিসেবে ৩১ ম্যাচে হাজার রান করেন ডু প্লেসি।

৩২ ম্যাচে করেন অ্যারন ফিঞ্চ। নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক উইলিয়ামসন ৩৬ ইনিংস খেলে হাজার রান করেন।

 

 

Edited By: K F

 

 

 

 

যুক্তরাজ্যে রোড শো উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

 

বাংলাদেশে আরও বেশি প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্যে একটি রোড শো উদ্বোধন করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন লন্ডনে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ এবং বাংলাদেশ হাইকমিশনের অংশীদারিত্বে বাংলাদেশ ইনভেস্টমেন্ট সামিট ২০২১, বিল্ডিং সাস্টেইনেবল গ্রোথ পার্টনারশিপ’ শীর্ষক রোড শো আয়োজন করতে যাচ্ছে।

যুক্তরাজ্যের লন্ডন এসডব্লিউ১পি ৩ইই-তে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ সেন্টার ব্রড স্যাংচুয়ারির চার্চিল অডিটোরিয়ামে এই শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

শীর্ষ সম্মেলনে বাংলাদেশের একটি উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধি দলে যুক্তরাজ্যের বেসরকারি উদ্যোক্তা বিনিয়োগকারী, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী, অনাবাসী বাংলাদেশি ও প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে।

পরে ৮ নভেম্বর যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টারে দ্য রাইজ অব বেঙ্গল টাইগার, ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট পোটেনশিয়ালস ইন বাংলাদেশ’ নিয়ে আরেকটি বিনিয়োগ শীর্ষ সম্মেলনও অনুষ্ঠিত হবে।

যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টার সেন্ট্রাল কনভেনশন কমপ্লেক্স উইন্ডমিল সেন্ট অব ম্যানচেস্টার এম২ ৩জিএক্স-এ এই শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

বাংলাদেশে বিনিয়োগের সুযোগ বৃদ্ধি এবং যুক্তরাজ্যের প্রাতিষ্ঠানিক ও বেসরকারি উদ্যোক্তা বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করতে বাংলাদেশের একটি উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধি দলও এই শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেবে।

বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলি রুবায়াত-উল-ইসলাম বলেন, যুক্তরাজ্যে আরও বিনিয়োগের জন্য রোড শো’র আয়োজন করা হচ্ছে এবং এতে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ এবং পুঁজিবাজারকে কেন্দ্রীভূত করা হবে।

তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোড শো উদ্বোধন করবেন এবং এতে বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের ব্যবসায়ীরা অংশ নেবেন। যুক্তরাজ্যে বসবাসকারী অনাবাসী বাংলাদেশিদের সর্বোচ্চ রিটার্নের জন্য পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের আহ্বান জানান তিনি।

বিএসইসির চেয়ারম্যান বলেন, প্রধান প্রধান খাতের উন্নয়নে বাংলাদেশের আরও আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ প্রয়োজন। এ ক্ষেত্রে আমরা যুক্তরাজ্যের উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, বড় ব্যবসায়িক অংশীদার হিসেবে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে আমাদের দীর্ঘদিনের বন্ধুত্ব রয়েছে। বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশি সে দেশে বাস করেন।

 

 

Edited By: K F

 

 

 

আরিয়ানের জন্য যা করলেন শাহরুখ ভক্তরা

 

হাজার হাজার মানুষ অপেক্ষা করছেন প্রিন্স আরিয়ানের ঘরে ফেরার। কারো হাতে ওয়েলকাম হোম লেখা ব্যানার। কারো ব্যানারে লেখা শক্ত থেকো প্রিন্স আরিয়ান।

সব শিগশিরিই ঠিক হয়ে যাবে। কেউ আবার ড্রাম বাজাচ্ছেন,  কেউ নেচে-গেয়ে আনন্দ প্রকাশ করছেন। বলিউডের মুকুটহীন বাদশার ছেলে বলে কথা। তাকে স্বাগত জানাতে ভক্তকুল তো এই রাজসিক আয়োজন করতেই পারেন।

এ সময় শাহরুখ খান ফ্যান লেখা টি-শার্ট পরা এক ভক্ত জানান, তিনি নির্দোষ। তিনি তাড়াতাড়ি ফিরে আসায় খুব ভালো লাগছে।

বলিউড বাদশার আরেক ভক্ত জানান, আমরা প্রার্থণা করেছিলাম যেন আরিয়ান তাড়াতাড়ি ছাড়া পায়। আমরা খুব খুশি।
গত সাতদিন ধরে মান্নাতের সামনে আসছেন বলে দাবি করেছেন শাহরুখ খানের আরেক ভক্ত।

স্থানীয় সময় শনিবার সকাল জেল থেকে মান্নতের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলেন আরিয়ান। এক বিশাল কনভয় নিয়ে জেলে তাকে আনতে গিয়েছিলেন শাহরুখের দেহরক্ষী রবি।

গত ২ অক্টোবর এক প্রমোদতরীর পার্টি থেকে আরিয়ানকে মাদকসহ গ্রেফতার করে ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো-এনসিবি।

এরপর হেফাজতে কয়েকদিন জিজ্ঞাসাবাদের পর ৮ অক্টোবর তাকে পাঠানো হয় কারাগারে। মাদকের সেই মামলায় বৃহস্পতিবার উচ্চ আদালত থেকে জামিন পাওয়ার পর শনিবার ছাড়া পেলেন আরিয়ান।

তবে আইনি বন্দিদশা ঘুচলেও আপাতত চার দেওয়ালের ঘেরাটোপেই দিন কাটবে শাহরুখ তনয়ের। কারণ তাকে ঘিরে রয়েছে নিয়মকানুনের বেড়াজাল।

তাই এখন বেশ কিছু দিন আরিয়ান মান্নাতের বাইরে পা রাখবেন না বলে জানিয়েছেন শাহরুখের সহকারী পূজা দাদলানি।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

করোনায় ঝরেপড়া শিক্ষার্থীদের হার এখনো নির্ণয় হয়নি

 

করোনা মহামারিতে ঠিক কত ভাগ শিক্ষার্থী ঝরে পড়েছে তা এখনো নির্ণয় করা যায়নি বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

শনিবার দুপুরে চাঁদপুর শিল্পকলা একাডেমি মিলানায়তনে কমিউনিটি পুলিশিং ডে উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এ তথ্য জানান।

এখনো অনেক বাবা-মা তাদের সন্তানদের স্কুলে পাঠানো নিয়ে ভয়ে আছেন। যার ফলে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতির হার এখনো শতভাগ নয়। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে গেলে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি আরও বৃদ্ধি পাবে।

দীপু মনি বলেন, আমরা এখনো ঠিক বলতে পারছি না কতসংখ্যক শিশু ঝরে পড়েছে। তবে কিছু হয়তো ঝরে পড়েছে। যাদের একটু আর্থিক সমস্যা রয়েছে, তারা ছেলেমেয়েদের কাজে লাগিয়ে দিয়েছে।

বিশেষ করে মেয়েদের ক্ষেত্রে হয়তো কারও বাল্যবিয়ে হয়ে গেছে। যদিও বাল্যবিয়ে হওয়া উচিত ছিল না এবং এজন্য আইনত যে ব্যবস্থা নেওয়ার সেটা নেওয়া উচিত।

মন্ত্রী এ সময় বলেন, সেই মেয়েরা যেখানেই থাকুক তারা যেন স্কুলে ফিরে আসে। তাদের পড়াশুনার সুযোগ তৈরি করে দিতে শিক্ষকদের বিশেষভাবে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

চাঁদপুর পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক দাউদ হোসেন চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল, জেলা কমিউনি পুলিশের সভাপতি ডা. এসএম সহিদ উল্লাহ, চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডা. সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী।

ডা. পীযূষ কান্তি বড়ুয়ার পরিচালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার  আসিফ মহীউদ্দীন, চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা শাহনাজ, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায়, জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি বিনয় ভূষণ মজুমদার, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন পাটওয়ারী প্রমুখ।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

পাকিস্তানের করাচিতে বিস্ফোরণ

 

পাকিস্তানের করাচি শহরে এক বিস্ফোরণে অন্তত চারজন নিহত হয়েছেন।

একই ঘটনায় দুই নারীসহ ছয়জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার ২৯ অক্টোবর রাতে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএনআই।

প্রতিবেদনে বলা হয়, শহরটির আবদুল্লাহ কলেজের পাশে একটি পেট্রল পাম্পে এ বিস্ফোরণ ঘটে বলে জানিয়েছেন ডিআইজি নাসির আফতাব।

তিনি জানান, পাম্পটির ইলেক্ট্রিক রুমে এ বিস্ফোরণ ঘটেছে। অবস্থাদৃষ্টে ঘটনাটিকে একটি দুর্ঘটনা বলেই মনে হচ্ছে।

আরেক পুলিশ কর্মকর্তা আইজুদ্দিন জানান, হতাহতদের মধ্যে এখন পর্যন্ত তিনজনকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে। পুলিশ ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সকল উপজেলা-ইউনিয়ন কমিটি বিলুপ্ত

 

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলার সকল উপজেলা ও ইউনিয়ন ছাত্রদলের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

শনিবার ৩০ অক্টোবর বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা কমিটির পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এদিকে একই সময়ে এসব কমিটি বিলুপ্তির ঘোষণায় জেলা-উপজেলা ও ইউনিয়ন ছাত্রদলের কেউ কেউ মিশ্রপ্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মো. নাদিমুর রহমান শিশির ও সাধারণ সম্পাদক মো. তোফায়েল আহম্মেদ স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, বেগম খালেদা জিয়া ও গণতন্ত্রকে মুক্ত করা এবং আন্দোলন সংগ্রামে কার্যকরী ভূমিকা রাখার লক্ষ্যে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলার অধিভুক্ত সকল উপজেলা ও ইউনিয়ন ছাত্রদলকে নতুন আঙ্গিকে সাজানোর উদ্দেশ্যে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এদিকে এমন সিদ্ধান্তের খবরে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ছাত্রদলের অনেকের মাঝে মিশ্রপ্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। আবার অনেকে বলছেন, অধিকাংশ এলাকায় দীর্ঘ বছর ধরে কমিটি সক্রিয় না থাকায় সাংগঠনিক কার্যক্রমে স্থবিরতা চলছে, তাই দলে গতি আনতে বেছে বেছে ত্যাগী ও ভালো নেতাকর্মী সমন্বয়ে কমিটি গঠন করা হবে। এতে দল আরও চাঙ্গা হয়ে ওঠবে।

শনিবার কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মো. তোফায়েল আহম্মেদ বলেন, কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশনা মোতাবেক দলের জেলা কমিটির এক জরুরী সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

শিগগিরই দক্ষিণ জেলার সকল উপজেলা ও ইউনিয়নে নতুন কমিটি গঠন করা হবে।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

নথি গায়েবের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন

 

স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগ থেকে ১৭টি নথি গায়েব হয়ে গেছে।

ফাইল চুরির এই ঘটনায় মন্ত্রণালয়টির অতিরিক্ত সচিব মো. শাহ্‌ আলমকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন- মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মো. আহসান কবীর এবং উপসচিব মোহাম্মদ আবদুল কাদের। পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে এই কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শনিবার ৩০ অক্টোবর মন্ত্রণাল‌য়ের সি‌নিয়র স‌চিব আলী নূর গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব নাদিরা হায়দার বাদী হয়ে মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগ থেকে ১৭টি নথি খোয়া যাওয়ার ঘটনায় শাহবাগ থানায় একটি সাধারণ জিডি করেন।

শনিবার শাহবাগ থানার ওসি মওদুত হাওলাদার জানান, ফাইল হারিয়ে যাওয়া নিয়ে গত বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় একটি জিডি করেছে। শুক্র ও শনিবার সরকারি ছুটি থাকায় সচিবালয় বন্ধ ছিল। আগামীকাল রোববার থেকে তদন্ত শুরু হবে।

জিডি বলা হয়েছে, গত ২৭ অক্টোবর বুধবার অফিস করে নথিগুলো ফাইল কেবিনেটে রাখা হয়। পরদিন দুপুর ১২টায় কাজ করতে গিয়ে দেখা যায় ফাইলগুলো কেবিনেটের মধ্যে নেই।

যে নথিগুলো খোয়া গেছে সেগুলোর সিংহভাগই স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের অধীন বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ ও বিভাগের কেনাকাটা সম্পর্কিত।

জিডিতে ১৭টি নথির নম্বর ও বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ, রাজশাহী মেডিকেল কলেজসহ অন্যান্য মেডিকেল কলেজের কেনাকাটা সংক্রান্ত একাধিক নথি, ইলেকট্রনিক ডেটা ট্র্যাকিংসহ জনসংখ্যাভিত্তিক জরায়ু মুখ ও স্তন ক্যানসার স্ক্রিনিং কর্মসূচি, রিপোর্ট অধিদপ্তরের কেনাকাটা, ট্রেনিং স্কুলের যানবাহন বরাদ্দ ও ক্রয় সংক্রান্ত নথি।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

চৌদ্দগ্রামে বঙ্গবন্ধুর মুরাল উদ্বোধন

 

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মুরাল উদ্বোধন করেছেন সাবেক রেলপথ মন্ত্রী মো: মুজিবুল হক এমপি।

 

শনিবার ৩০ অক্টোবর বিকালে স্থানীয় সাংসদ কার্যালয়ের সামনে নবনির্মিত এই মুরাল উদ্বোধন করেন তিনি।

 

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চৌদ্দগ্রাম উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুস সোবহান ভূঁইয়া হাসান, সিনিয়র সহ-সভাপতি ও পৌর মেয়র জিএম মীর হোসেন মীরু, সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ রহমত উল্যাহ্ বাবুল, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল হাসান মুরাদ, সহ-দপ্তর সম্পাদক আলমগীর হোসেন বিপ্লব, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এবিএম এ বাহার, ইউপি চেয়ারম্যান শাহজালালসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও এর অংগ সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা কর্মীরা।

 

 

Edited By: K F

 

 

 

নওগাঁয় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

 

নওগাঁয় শহরের আরজি- নওগাঁ মহল্লার একটি পুকুরের পানিতে ডুবে ভাই-বোনসহ একই সঙ্গে চার শিশুর মৃত্যু খবর পাওয়া গেছে।

শনিবার ৩০ অক্টোবর দুপূরে আরজি নওগাঁর নামা শেরপুর এলাকায় এই ঘটনাটি ঘটেছে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন নওগাঁ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জুয়েল।

মৃত চার শিশু হলো, ওই এলাকার টুকু মন্ডলের মেয়ে সুরাইয়া এবং ছেলে ফরহাদ, সালাম মন্ডলের মেয়ে খাদিজা, আনোয়ার হোসেনের মেয়ে আশা ।

স্থানীয়রা জানান, দুপুরে তাদের বাড়ির পাশে ৬ শিশু কাদা-মাটি নিয়ে খেলছিল। কাদা মাটি তাদের শরীরে মেখে গেলে সবার অজান্তেই ওই ৬ শিশু পাশের একটি পুকুরে পরিষ্কার হতে যায়।

এ সময় ৪ শিশু পুকুরের পানিতে নামে। তার কিছুক্ষণ পরেই একে একে ৪ জনই ডুবে যায় । অপর দুই শিশু পুকুরের পারে থেকে ঘটনাটি দেখতে পেয়ে দ্রুত তাদের পরিবারের সদস্য ও স্থানীয়দের খবর দেয়।

স্থানীয় ও পরিবারের লোকজন দ্রুত পুকুরে অনেক খোঁজাখুঁজির তাদেরকে না পাওয়ায় এক পর্যায়ে ওই পুকুরে জাল দিয়ে খোঁজ করা শুরু করে। পরে ওই চার শিশুর মরদেহ উদ্ধার হয়।

তাদেরকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে চার শিশুর মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। পরিবারের অ-জানতে তারা পুকুরে গোসল করতে নামলে এই ঘটনাটি ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

শান্তি রক্ষার জন্য তো ঘরে ঘরে পুলিশ দিতে পারি না, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, শান্তি রক্ষার জন্য তো ঘরে ঘরে পুলিশ দিতে পারি না।

ঘরে ঘরে যে জনগণ আছেন তারা যদি রিয়েল টাইম ইনফরমেশন দিতে পারেন তাহলে অনেক ঘটনা থেকেই আমরা বাঁচতে পারি। অনেক ঘটনা ঘটবে না।

পুলিশ বাহিনীতে সাইবার ইউনিট আমরা করেছি কিন্তু সেটা ছোট আকারে আছে। দেশে সাইবার ক্রাইম যেভাবে উন্মোচিত হচ্ছে তা ধারণার বাইরে বেড়ে যাচ্ছে।

শনিবার ৩০ অক্টোবর রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে শহীদ এসআই শিরুমিয়া মিলনায়তনে কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২১ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, সাইবার অপরাধ দমনে আমরা সেভাবেই আমাদের পুলিশকে তৈরি করছি। সাইবার ইউনিট বড় আকারে করতে হবে, আমরা সেই লক্ষ্যে কাজ করছি। আমাদের অনেক দূর হেঁটে যেতে হবে।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, সম্প্রতি দেখেছি, যে ধরনের উসকানি আসছিল, যেভাবে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করেছিল একটা ভায়োলেন্সের দিকে নিয়ে যাচ্ছিল সেটাও কিন্তু আমাদের জনগণ ও পুলিশ এক হয়ে প্রতিরোধ করেছে।

আমরা সেই জায়গা থেকে নিস্তার পেয়েছি। এক কথায় বড় ধরনের ঘটনা ঘটে যেতে পারতো। কারণ যে যার ধর্ম আমরা হৃদয় দিয়ে পালন করি।

মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, পুলিশ বাহিনী তোমরা জনতার পুলিশ হও। আজ ধীরে ধীরে পুলিশ জনতার পুলিশ হতে চলছে। দেশে যখন জঙ্গিরবাদের উত্থান হয়েছে, আগুন সন্ত্রাসের উত্থান হয়েছে, সম্প্রতি যে অতিমারির দৃশ্যটি দেখলাম- ছেলে তার বাবা-মাকে হাসপাতালে ফেলে রেখে এসেছে।

এই পুলিশ বাহিনীর সদস্যরাই তাদের দাফন-কাফনের ব্যবস্থা করেছেন। তাদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তারা কাজ করছেন। সেজন্যই আমরা অনেক কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে পেরেছি।

ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদ, মুখ্য আলোচক ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও কথা সাহিত্যিক ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল। এছাড়া পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

 

 

 

Edited By: K F

 

মা হয়েছেন চিত্রনায়িকা পপি

 

মা হয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা সাদিকা পারভিন পপি।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হাসপাতালে সিজারের মাধ্যমে পুত্র সন্তান জন্ম দেন তিনি। বর্তমানে মা-ছেলে দুজনই সুস্থ আছেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাত থেকেই চলচ্চিত্রপাড়ায় এমন খবর ছড়িয়ে পড়লেও বিষয়টি নিয়ে এই অভিনেত্রীর পক্ষ থেকে কিছুই জানানো হয়নি।

এ ব্যাপারে জানতে পপির মোবাইল নাম্বারে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তার ব্যবহৃত নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

পপির নির্মাণাধীন এক সিনেমার পরিচালক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, আমিও জেনেছি তিনি মা হয়েছেন। বর্তমানে মা-ছেলে দুজনই ভালো আছেন।

যতদূর জানি ডাক্তারের দেয়া তারিখ অনুযায়ী আগামী ৫ নভেম্বর তার সন্তান জন্ম দেয়ার দিন ছিল। নির্ধারিত তারিখের আগেই সন্তান জন্ম দিয়েছেন তিনি।

ঢালিউডের নন্দিত এই নায়িকা অসংখ্য সিনেমার মাধ্যমে দর্শক হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন। একাধিকবার জয় করেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও। দীর্ঘদিন ধরেই আড়ালে রয়েছেন পপি।

আড়ালে থাকার কারণ হিসেবে জানা যায়, তিনি বিয়ে করে সংসার নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

 

 

Edited By: K F

 

 

 

 

পুনিতের মৃত্যুর খবরে শুনে ভক্তের মৃত্যু

 

ভারতের কন্নড় সিনেমার সুপারস্টার পুনিত রাজকুমার শুক্রবার ২৯ অক্টোবর মারা গেছেন।

তার মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ ভারতের দক্ষিণাঞ্চল। পুনিতের মৃত্যুর খবর সহ্য করতে না পেরে হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছেন ২ জন। এছাড়া তার মৃত্যুর খবর শুনে এক ভক্ত আত্মহত্যা পর্যন্ত করে ফেলেছে।

ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো থেকে জানা গেছে, হার্ট অ্যাটাকে মারা যাওয়া প্রথম ভক্তের নাম মুনিয়াপ্পা। তিনি কর্ণাটকের মারুরু গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন। পুনিতের মৃত্যুর খবর শুনেই বুকের ব্যথায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি।

এরপর তাকে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। একইভাবে মারা গেছেন বেলগাঁও এলাকার আরেক ভক্ত। যার নাম পরশুরাম। টেলিভিশনে পুনিতের মৃত্যুর খবর পেয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি।

আত্মহত্যাকারী ভক্তের নাম রাহুল। পুনিতের মারা যাওয়ার খবর শুনে তিনি নিজের ঘরে অভিনেতার ছবি ফুল দিয়ে সাজিয়ে সম্মান জানান। এরপর গলায় ফাঁস দেন।

এসব ভক্ত ছাড়া আরও অনেকে পুনিতের জন্য নিজেকে আঘাত করে জখম করেছেন বলে ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর দাবি। পুনিত সাধারণ দর্শকদের মাঝে অত্যধিক জনপ্রিয় ছিলেন। এ কারণে তার মৃত্যু কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছে না ভক্তরা।

কন্নড় সিনেমার কিংবদন্তী অভিনেতা রাজকুমারের ছেলে পুনিত রাজকুমার। মাত্র ৬ মাস বয়সেই তিনি শিশুশিল্পী হিসেবে সিনেমায় কাজ শুরু করেন। অন্তত এক ডজন সিনেমায় শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয় করেছেন।

নায়ক হিসেবে তিনি ২৯টি সিনেমা উপহার দিয়েছেন। সাফল্যময় ক্যারিয়ারে তার অর্জনের পাল্লা অনেক ভারি। একবার ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, ৪ বার কর্নাটক রাজ্য চলচ্চিত্র পুরস্কার, ৫ বার ফিল্মফেয়ার সাউথ পুরস্কারসহ বহু সম্মাননা পেয়েছেন।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে গুরুত্বপূর্ণ নথি গায়েব

 

স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের ফাইল ক্যাবিনেটে রাখা নথি খোয়া গেছে। এ ঘটনায় রাজধানীর শাহবাগ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব নাদিরা হায়দার সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মওদুত হাওলাদার জানান, ফাইল হারিয়ে যাওয়ার বিষয়ে গত বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় একটি জিডি করেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখবে পুলিশ।

জিডিতে বলা হয়েছে, বুধবার ২৭ অক্টোবর অফিস করে নথিগুলো ফাইল কেবিনেটে রাখা হয়। পরদিন দুপুর ১২টায় কাজ করতে গিয়ে দেখা যায় ফাইলগুলো কেবিনেটের মধ্যে নেই। জিডিতে ১৭টি নথির নম্বর ও বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে।

জানা গেছে, যে নথিগুলো খোয়া গেছে সেগুলোর সিংহভাগই স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের অধীন বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজ ও বিভাগের কেনাকাটা সম্পর্কিত।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

কংগ্রেসের কারণেই আরও শক্তিশালী হচ্ছেন মোদি

 

ভারতের প্রাচীনতম রাজনৈতিক দল কংগ্রেসের সমালোচনায় মুখর হয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। দলটি বিজেপি তথা মোদির হাতকেই শক্তিশালী করছে বলে অভিযোগ তুলেছেন তিনি।

 

প্রতিবেদনে বলা হয়, মমতা বলেছেন, কংগ্রেসের কারণেই আরও শক্তিশালী হচ্ছেন মোদি। কারণ বিজেপির টিআরপি হচ্ছে কংগ্রেস। যদি তারা (কংগ্রেস) সিদ্ধান্ত নিতে না পারে দেশ ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

 

তিনি আরও বলেন, বিজেপির বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করে তারা বাংলায় আমার বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছে। সকালের সূর্য দেখেই পুরো দিনের পূর্বাভাস পাওয়া যায়।

তারা আমার বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে আমার দলের বিরুদ্ধে। আপনি কি মনে করেন আমরা তাদের ফুল দেব?

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

রাজধানীর সব খালকে হাতিরঝিলের আদলে গড়ে তোলা হবে

 

রাজধানীর সবগুলো খালকে হাতিরঝিলের আদলে গড়ে তোলা হবে বলেছেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

এটা বাস্তবায়ন করা হলে ঢাকা বিশ্বের মধ্যে একটি আধুনিক দৃষ্টিনন্দন, বাসযোগ্য নগর হবে।

শনিবার ৩০ অক্টোবর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্লানার্স আয়োজিত ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন আরবান অ্যান্ড রিজিওনাল প্ল্যানিং-২০২- এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ তথ্য জানান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, ওয়াসার কাছ থেকে খালের দায়িত্ব দুই সিটি করপোরেশনকে দেওয়ার পর তারা দখলকারীদের কাছ থেকে উদ্ধার করে সংস্কার করছে।

মন্ত্রী জানান, পরিকল্পিত উন্নয়নের জন্য পরিকল্পিত দেশ প্রয়োজন। এক্ষেত্রে পরিকল্পনাবিদের অংশগ্রহণ অনস্বীকার্য। টেকসই উন্নয়নের জন্য সবকিছু পরিকল্পিতভাবে করতে হবে। শহর-নগর-গ্রাম পরিকল্পনা অনুযায়ী না করলে ভবিষ্যৎ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা কঠিন হবে।

তিনি বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নতির পাশাপাশি মানুষের জীবনযাত্রার মান বৃদ্ধি পেয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই এখন নতুন নতুন চ্যালেঞ্জ আসবে। স্বল্প জমি ব্যবহার করে অধিক নাগরিক সেবা নিশ্চিত করার জন্য পরিকল্পনার বিকল্প নেই।

এ লক্ষ্যে পৌরসভা ছাড়াও যেখানে যেখানে প্রয়োজন সেখানে পরিকল্পনাবিদ নিয়োগের ব্যবস্থা নেবে সরকার।

বিআইপির প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ডক্টর আখতার মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম এবং হেড অব জার্মান ডেভেলপমেন্ট করপোরেশন জোহানেস স্নেইডার।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

 

যশোরে সতন্ত্র প্রার্থীকে মারধর করায় মুক্তিযোদ্ধাদের ক্ষোভ

 

ইয়ানূর রহমান, যশোর :  যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলাার শিমুলিয়া ইউনিয়নের সতন্ত্রচেয়ারম্যান পদপ্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা জহুরুল হককে মারধর করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডাররা।

শনিবার প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সম্মেলন করে নৌকার প্রার্থী মতিয়ার রহমানের পেটুয়া বাহিনীর হাতে বীর মুক্তিযোদ্ধা আহত হওয়ার ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ জানান তারা।

লিখিত বক্তব্যে জহরুল হক বলেন, নৌকা প্রতিকের প্রার্থী মতিয়ার রহমান জনবিচ্ছিন্ন নেতা। একারণে আগেও তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে জয় পাননি।

অতীতেও তিনি ও তার পরিবারের সদস্যরা নানা নাশকতামূলক কর্মকান্ড চালিয়েছে। আসন্ন নির্বাচনেও তারা সাধারণ মানুষের মাঝে আতংক সৃষ্টি করে চলেছে।

তারই ধারাবাহিকতায় ২৮ অক্টোবর মতিয়ারের সন্ত্রাসীরা তার এবং সমর্থকদের উপর হামলা চালায়।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ঝিকরগাছা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার এবিএম কামরুজ্জামান, সাবেক ইউপি কমান্ডার আব্দুর রব ও অলিয়ার রহমান, যুদ্ধকালীন কমান্ডার আব্দুস সাত্তার, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল বাশার, শাহজালাল, আবু সাঈদ প্রমুখ।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

যশোর শিক্ষা বোর্ড থেকে অংশ নেবে ১ লাখ ৮১ হাজার এসএসসি পরীক্ষার্থী

 

 

 

ইয়ানূর রহমান, যশোর :  আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হবে এসএসসি পরীক্ষা। যশোর শিক্ষা বোর্ডের ২৯১টি কেন্দ্রে অংশ নেবে ১ লাখ ৮১ হাজার ৪৩০ শিক্ষার্থী।

এর মধ্যে ছেলে ৯২ হাজার ৪৪২ জন ও মেয়ে ৮৮ হাজার ৯৮৮জন মেয়ে। এবারের পরীক্ষায় মেয়ের চেয়ে পরীক্ষায় ৩ হাজার ৪৫৪ জন ছেলে বেশি অংশ নেবে। এর মধ্যে নিয়মিত পরীক্ষার্থী ১ লাখ ৫৭ হাজার ১৬৫জন ও অনিয়মিত ২৩ হাজার ৯৭১জন।

পরীক্ষার খাতা কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেয়াসহ সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে জানান বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র।

বোর্ডের দেয়া তথ্যানুযায়ী ১ লাখ ৮১ হাজার ৪৩০ শিক্ষার্থীর মধ্যে যশোর জেলার ৫২ কেন্দ্রে অংশ নেবে ৩০ হাজার ৯৭ জন পরীক্ষার্থী। ছেলে ১৫ হাজার ৪১৯ জন ,মেয়ে ১৪ হাজার ৬৭৮ জন। খুলনা জেলায় ৫৮টি কেন্দ্রে অংশ নেবে ২৭ হাজার ২১৮ জন পরীক্ষার্থী।

এর মধ্যে ছেলে ১৫ হাজার ৬০৭ জন,মেয়ে ১৩ হাজার ৬৮৫জন। বাগেরহাটের ২৭ কেন্দ্রে অংশ নেবে ১৯ হাজার ৫৩১ জন পরীক্ষার্থী।

এরমধ্যে ছেলে ৭ হাজার ৪৪৬ জন, মেয়ে ৮ হাজার ১৬১জন। সাতক্ষীরার ২৭ কেন্দ্রে অংশ নেবে ১৯ হাজার ৫৩১ পরীক্ষার্থী। ছেলে ছেলে ১০ হাজার ২৮৮জন,মেয়ে ৯ হাজার ২৪৩ জন। কুষ্টিয়ার ৩০ কেন্দ্রে অংশ নেবে ২৫ হাজার ২৫১ জন পরীক্ষার্থী।

ছেলে ১২ হাজার ৭৬২ জন, মেয়ে ১২ হাজার ৪৮৯ জন। চুয়াডাঙ্গার ১৭টি কেন্দ্রে অংশ নেবে ১১ হাজার ৬৭০ জন পরীক্ষার্থী। ছেলে ৫ হাজার ৯১৩ জন , মেয়ে ৫ হাজার ৭৫৭ জন।

মেহেরপুরের ১৩টি কেন্দ্রে অংশ নেবে ৮ হাজার ৭৭৮ জন পরীক্ষার্থী। ছেলে ৪ হাজার ৪১৬ জন ও মেয়ে ৪ হাজার ৩৬২ জন।
নড়াইলের ১৪টি কেন্দ্রে অংশ নেবে ৯ হাজার ৭৯৭ জন পরীক্ষার্থী।

ছেলে ৫ হাজার ৩০ জন , মেয়ে ৪ হাজার ৭৬৭ জন। ঝিনাইদহের ৩৬ কেন্দ্রে অংশ নেবে ২১ হাজার ৫২১ জন পরীক্ষার্থী। ছেলে ১১ সহাজার ৩৭৫ জন, মেয়ে ১০ হাজার ১৪৬ জন।

মাগুরার ১৭টি কেন্দ্রে অংশ নেবে ১১ হাজার ৯৬০ জন পরীক্ষার্থী। ছেলে ৬ হাজার ২৬০ জন,মেয়ে ৫ হাজার ৭শ জন। করোনা ভাইরাস থেকে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা কথা ভেবে অনলাইনে ফরম পুরণ কার্যক্রম চালু করে যশোর
শিক্ষা বোর্ড।

শিক্ষার্থীরা ঘরে বসে স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে পরীক্ষার ফরম পুরন করে। বিকাশ, রকেটের মাধ্যমে পরীক্ষার ফিসের টাকা জমা দেয়। ১৪ নভেম্বর প্রথম দিন সকাল ১০ টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে পদার্থ বিজ্ঞান (তত্ত্বীয়)।

১৫ নভেম্বর সকাল ১০ টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্ব সভ্যতা। দুপুর ২ টাকা থেকে সাড়ে ৩টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে হিসাব বিজ্ঞান। ১৬ নভেম্বর রসায়ন (তত্ত্বীয়), ১৮ নভেম্বর শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া (তত্ত্বীয়), ২১ নভেম্বরসকালে ভুগোল ও পরিবেশ, বিকেলে অনুষ্ঠিত হবে ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং।

২২ নভেম্বর উচ্চতর গণিত (তত্ত্বীয়), জীব বিজ্ঞান(তত্ত্বীয়)। ২৩ নভেম্বর সকালে পৌরনীতি ও নাগরিকতা, অর্থনীতি বিকেলে ব্যবসায় উদ্যোগ।

এ ব্যাপারে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র বলেছেন,পরীক্ষার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পরীক্ষা নেয়া হবে।

পরীক্ষার ক্ষেত্রে কেন্দ্র সচিবদের দায়িত্ব অবহেলা কোন ভাবে মেনে নেয়া হবে না। কেউ যদি দায়িত্ব অবহেলা করে,
তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

ভারতের আসামে চার বাংলাদেশি যুবক আটক

 

ভারতের আসামে চার বাংলাদেশি যুবক আটক হয়েছেন।

শুক্রবার রাজ্যের করিমগঞ্জ জেলার বাজারিছড়া থানা পুলিশ তাদের আটক করে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে আটক যুবকরা জানিয়েছেন, অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম করে কাজের সন্ধানে ভারতের আসাম হয়ে তারা চেন্নাই যাচ্ছিলেন।

শনিবার তাদেরকে করিমগঞ্জ জেলা আদালতে সোপর্দ করেছে বাজারিছড়া পুলিশ। আসামের করিমগঞ্জ প্রেসক্লাব সম্পাদক সুদীপ দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আটক ব্যক্তিরা হলেন- রাজশাহী জেলার গদাবাড়ি উপজেলার রাজেশ শেখ, সানাউল্লাহ আঁখি, কাওসার হোসেন  ও আমতলি উপজেলার আসাদুল শেখ ওরফে সাইদুল ।

ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম করে চার বাংলাদেশি যুবক ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলায় অনুপ্রবেশ করেন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় একটি নৈশকোচে আসাম হয়ে চেন্নাই যাওয়ার পথে করিমগঞ্জ জেলার বাজারিছড়া থানার ত্রিপুরা সীমান্তের আসাম চুরাইবাড়ি ওয়াচ পোস্ট পুলিশের হাতে তারা আটক হন।

চুরাইবাড়ি ওয়াচ পোস্টের ইনচার্জ মিন্টু শীল জানান, শুক্রবার রাতে আগরতলা থেকে গুয়াহাটিগামি নৈশকোচে ত্রিপুরা-আসাম প্রবেশ মুখে পুলিশ তল্লাশি চালায়। এ সময় চার বাংলাদেশি যুবককে আটক করে পুলিশ।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানিয়েছে, ত্রিপুরার আগরতলা সীমান্ত হয়ে অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করে কাজের সন্ধানে তারা চেন্নাই যাচ্ছিল। তাদের কাছে ভারত প্রবেশের বৈধ কোনো কাগজপত্র নেই।

কিছু ভারতীয় মুদ্রা ও চারটি মোবাইল ফোনসেট উদ্ধার করা হলেও অন্য কিছু পাওয়া যায়নি। শনিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে ডিটেনশন সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।

 

 

 

 

 

 

প্রতি গালির জন্য ১১ টাকা করে পাই, নুসরাত ফারিয়া

 

 

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ সক্রিয় বাংলাদেশের আলোচিত নায়িকা নুসরাত ফারিয়া।

নিজের সিনেমা, অভিনয় ও গানের খবর নিয়ে ভক্ত-অনুরাগীদের নিয়মিত আপডেট দেন তিনি।

তার সেসব পোস্টে অনেক নেতিবাচক মন্তব্যও জমা পড়ে। এমনকি গালাগাল করতে দেখা যায় নুসরাতের ছবির মন্তব্যের তলায়।

এসব মন্তব্যকারীদের হেটার্স উল্লেখ করে নুসরাত জানান, প্রতি গালির জন্য ১১ টাকা করে পান তিনি।

শুক্রবার বনানীতে বড় বোন মারিয়ার একটি ফ্যাশন হাউজ উদ্বোধনের সময় গণমাধ্যমকর্মীদের এ তথ্য জানান ফারিয়া।

অনুষ্ঠানে সাংবাদিকরা তাকে ঘিরে ধরে নানারকম প্রশ্ন করেন। আসন্ন সিনেমাসহ চুক্তিবদ্ধ কাজগুলো নিয়েও কথা হয় সেখানে। বলিডউ-ঢালিউড প্রসঙ্গও উঠে আসে।

সবশেষে সাংবাদিকরা ফারিয়ার কাছে জানতে চান- সোশ্যাল মিডিয়ায় গালগাল বা নেতিবাচক সব মন্তব্য নিয়ে কোনো বক্তব্য আছে কি না।

জবাবে একগাল হেসে এ নায়িকা বলেন, যারা আমাকে ভালোভাসেন তাদের জন্য ভালোভাসা, আর যারা আমার হেটার্স, আমাকে গালি দেন তারা আমাকে গালি দিতে থাকুন। তাদের প্রতি গালির পেছনে আমি ১১ টাকা করে পাই।

এছাড়া বিয়ের প্রসঙ্গেও কথা বলেন ফারিয়া। আপাতত তিনি বিয়ে করছেন না বলে জানান এ নায়িকা।

তিনি বলেন, বিয়ে নিয়ে কোনো পরিকল্পনা নেই। আপাতত বিয়ে করছি না। এটা পরিস্কার।

এমন সিদ্ধান্তের কারণও ব্যাখ্যা করেন ফারিয়া। বলেন, বিয়ে করতে সবকিছু গুছিয়ে নিতে ৬-৭ মাস সময় লাগে। সেই সময়টা আমার কাছে নেই।  তাই আপাতত বিয়ে করছি না।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

 

সৌদি ও বাহরাইন থেকে লেবাননের রাষ্ট্রদূত বহিষ্কার

 

সৌদি আরব ও বাহরাইন থেকে লেবাননের রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার করা হয়েছে। সৌদি আরব থেকে লেবাননের রাষ্ট্রদূতকে দেশ ছেড়ে যেতে ৪৮ ঘণ্টা সময় দেওয়া হয়েছে।

 

একই সঙ্গে লেবানন থেকে সব ধরনের পণ্য আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। ইয়েমেনে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের হামলা সম্পর্কে লেবাননের তথ্যমন্ত্রীর সমালোচনার জেরেই এ পদক্ষেপ নেয় রিয়াদ।

এদিকে বাহরাইনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিজ্ঞপ্তিতে একই কারণে লেবাননের রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার করে। এছাড়া দেশটি ত্যাগ করতে লেবাননের রাষ্ট্রদূতকে দুইদিন সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে সৌদি সরকার জানায়, লেবানন কর্তৃপক্ষের ভুল পদক্ষেপের কারণে রিয়াদ ও বৈরুতের মধ্যে সম্পর্কের যে অবনতি হয়েছে তার জন্য সৌদি সরকার দুঃখিত।

বিবৃতিতে দাবি করা হয়, দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরব লেবাননের সঙ্গে সুসম্পর্ক চাইলেও লেবানন কর্তৃপক্ষ বিষয়টিকে উপেক্ষা করার কারণে এই অবস্থা তৈরি হয়েছে।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

ছাত্রলীগের সংঘর্ষ, অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ চমেক

 

 

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ছাত্রলীগের দুপক্ষে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে তিনজন আহত হয়েছেন।

শনিবার এ ঘটনায় কলেজ কর্তৃপক্ষ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে। সন্ধ্যার মধ্যেই শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সংঘর্ষের ঘটনায় একটি কমিটি গঠন করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

আহতরা হলেন- মাহফুজুল হক, নাইমুল ইসলাম  এবং আকিব হোসেন। তারা চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক সাদিকুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, রাতে ছাত্রাবাসে সমস্যা হয়। ওই ঘটনার জের ধরে আজ কলেজের সামনে ফুটপাতে অন্য পক্ষের একজনকে মারধর করা হয়।

এখন দুপক্ষ ক্যাম্পাসে অবস্থান করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য ক্যাম্পাসে পুলিশের অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন রয়েছে।

এ ঘটনায় চমেক একাডেমিক কাউন্সিল সভা করে অনির্দিষ্টকালের জন্য কলেজ বন্ধ ঘোষণা করে। সন্ধ্যার মধ্যেই শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি এ ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

বঙ্গবন্ধুর নামে ইউনেস্কোর পুরস্কার ঘোষণা

 

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীতে তার নামে আন্তর্জাতিক পুরস্কার ঘোষণা করেছে ইউনেস্কো নির্বাহী সংসদ।

আগামী ১১ নভেম্বর প্যারিসে ইউনেস্কোর সদর দপ্তরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দিতে পারেন বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন।

শনিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ইউরোপ সফরের বিস্তারিত তুলে ধরতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলমসহ মন্ত্রণালয়ের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ইউনেস্কো সদর দপ্তরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ ফর দ্য ক্রিয়েটিভ ইকোনোমিকস নামের এ পুরস্কার প্রদান করা হবে।

এই প্রথম বঙ্গবন্ধুর নামে কোনো আন্তর্জাতিক পুরস্কার ঘোষণা করা হলো। এটি বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত গর্বের।’

তিনি বলেন, ১২ নভেম্বর ইউনেস্কোর ৭৫ তম বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে একটি উচ্চ পর্যায়ের সভা অনুষ্ঠিত হবে। যেখানে অংশগ্রহণের জন্য ইউনেস্কোর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

এই উচ্চ পর্যায়ের সভায় অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের বিশ্বজনীন আদর্শ তুলে ধরার পাশাপাশি জাতিসংঘ কর্তৃক গৃহীত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সর্বজনীন, মানসম্মত ও বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষা এবং সুস্থ ও অন্তর্ভুক্তিমূলক সংস্কৃতি চর্চার গুরুত্বের বিষয়ে তার নিজস্ব চিন্তা ও এ বিষয়ে বাংলাদেশের অর্জনসমূহ বিশ্বের সামনে তুলে ধরবেন।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

ফ্রান্সের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক উন্নয়ন হবে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী

 

 

ফ্রান্সের সঙ্গে বাংলদেশের সম্পর্ক উন্নয়নের আশা প্রকাশ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন।

তিনি বলেন, নভেম্বরের ৯ থেকে ১৩ তারিখ পর্যন্ত ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শেখ হাসিনার দ্বিপক্ষীয় বৈঠক আয়োজন করা হচ্ছে।

সফরকালে বাংলাদেশ ও ফ্রান্সের মধ্যকার দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরও উচ্চতর পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

শনিবার তার দপ্তরে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

লন্ডনের গ্লাসগোতে অনুষ্ঠেয় জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলন ও প্যারিসে অনুষ্ঠেয় সরকারি সফরে অংশ নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল রোববার ঢাকা ছাড়ছেন।

আব্দুল মোমেন বলেন, ফ্রান্সের অন্যান্য মন্ত্রী ও ফ্রান্সের দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট সংসদের সদস্যদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক সাক্ষাতের প্রস্তাব রয়েছে।

এছাড়া ফ্রান্সের বেশ কিছু কোম্পানির প্রধানরা শীর্ষস্থানীয় ফরাসি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রতিনিধিত্বকারী সংস্থার একটি প্রতিনিধিদল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের অনুরোধ জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ফরাসি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠকের সময় বিভিন্ন বিষয়ে কয়েকটি সমঝোতা স্মারক ও লেটার অব ইনটেন্ট স্বাক্ষরিত হতে পারে বলে ধারণা করা যাচ্ছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও জানান, প্রধানমন্ত্রী ১ ও ২ নভেম্বর যুক্তরাজ্যের গ্লাসগো এবং ৩ থেকে ৮ তারিখ লন্ডন সফর করবেন।

তিনি যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন। এরপর নভেম্বরের ৯ থেকে ১৩ তারিখ প্যারিস সফর করবেন।

লন্ডন সফরের সময় ওয়েস্ট মিনিস্টার প্যালেসে যুক্তরাজ্যের সংসদের সদস্যদের উদ্দেশে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে একটি বক্তৃতা দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশ সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ কমিশন ও বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ আয়োজিত একটি ভার্চুয়াল বিনিয়োগ সম্মেলনে অংশ নেবেন তিনি।

এছাড়া তিনি লন্ডনের বাংলাদেশ হাইকমিশন আয়োজিত বঙ্গবন্ধুর বিষয়ে গোপন দলিলপত্রের নতুন প্রকাশিত সংস্করণের মোড়ক উন্মোচন করবেন।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

 

সরকারকে বিব্রত করতে মৃত্যু ও ধর্ষণের গুজব ছড়াচ্ছে

 

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ শেখ হাসিনা সরকারকে বিব্রত করতে মূলত ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের মৃত্যু ও ধর্ষণের গল্প ছড়ানো হচ্ছে বলে দাবি করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, সাম্প্রতিক ধর্মীয় সহিংসতায় এখন পর্যন্ত মাত্র ৬ জন মারা গেছে। নিহতদের মধ্যে ৪ জন মুসলমান এবং তারা হিন্দুদের বাড়িতে আগুন দেওয়ার চেষ্টার সময় পুলিশের গুলিতে নিহত হয়। দুজন হিন্দু মারা যায়, এদের একজনের সাধারণ মৃত্যু এবং অন্যজন ডুবে মারা যায়।

তারা এখন পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। পুড়িয়ে দেওয়া ঘর পুনঃনির্মাণ করা হয়েছে। এমনকি ক্ষতিগ্রস্ত সবাই ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন।

কিন্ত দুর্ভাগ্য কিছু উৎসাহী মিডিয়া এবং ব্যক্তি ধর্মীয় সম্প্রীতির প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ শেখ হাসিনা সরকারকে বিব্রত করতে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের হত্যা ও ধর্ষণের গল্প ছড়াচ্ছে।

তিনি বলেন, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে প্রতিটি পুজামণ্ডেপের জন্য সরকার অর্থ প্রদান করে এবং পুলিশ বাহিনীর ঘাটতি থাকায় সবাইকে পর্যবেক্ষণে রাখতে বলা হয়েছে।

এই ধরনের অপব্যবহারের ঘটনা এড়াতে পুজামণ্ডপ আয়োজকদের উচিত মণ্ডপগুলোকে অযত্নে না রাখা।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী উল্লেখ করেন, পুজামণ্ডপে কোনো উপাসক বা আয়োজক না থাকা অবস্থায় একজন মাদকাসক্ত ব্যক্তি পবিত্র কুরআনের একটি কপি মণ্ডপে রেখে যায়।

অন্য একজন তার একটি ছবি তুলে তা ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়। যা ক্ষোভের জন্ম দেয় এবং ভাঙচুর ও লুটপাটের দিকে নিয়ে যায়।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

ছয়টি স্বর্ণের বারসহ নারী চোরাকারবারিকে আটক

 

চুয়াডাঙ্গায় ভারতে পাচারকালে ৪০ লাখ টাকা মূল্যের ছয়টি স্বর্ণের বারসহ শারমিন আক্তার ওরফে চায়না খাতুন নামে এক নারী চোরাকারবারিকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার রাতে জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউনিয়নের হরিহরনগর গ্রামের জেলেপাড়া থেকে থানা পুলিশ তাকে আটক করে।

রাতেই এ ঘটনায় ওই নারী, তার স্বামী ও তার মেয়েসহ অজ্ঞাত আরও ২-৩ জনের নামে পুলিশ একটি মামলা দায়ের করে। পরে ওই মামলায় শারমিন আক্তার ওরফে চায়না খাতুনকে গ্রেফতার দেখায় পুলিশ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জীবননগর থানার এসআই কেরামত আলী বলেন, স্বর্ণের বার ভারতে পাচার হচ্ছে- এমন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার হরিহরনগর গ্রামের আবদুল হান্নানের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়।

এ সময় টেলিভিশনের নিচে বিশেষ কায়দায় লুকানো অবস্থায় স্বর্ণের ছয়টি বারসহ আবদুল হান্নানের স্ত্রী শারমিন আক্তার ওরফে চায়না খাতুনকে আটক করা হয়।

জীবননগর থানার ওসি আবদুল খালেক বলেন, বুধবার রাতেই ওই নারী, তার স্বামী ও মেয়েসহ অজ্ঞাত ২-৩ জনের নামে একটি মামলা করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত স্বর্ণের বাজারমূল্য ৪০ লাখ টাকা।

 

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

পেট্রল ডিজেলের চেয়ে বিমানের জ্বালানির দাম কম

 

পেট্রল ও ডিজেলের দাম ছাড়িয়ে গেছে বিমানের জ্বালানির দামকেও। ভারতে বৃহস্পতিবার প্রতি লিটার পেট্রলের দাম ১০৮ রুপি ৭৮ পয়সায়। ডিজেলের দরও ১০০ রুপির উপরে।

প্রতি লিটার ডিজেল বিক্রি হয়েছে ১০০ রুপি ১৪ পয়সায়। অথচ বৃহস্পতিবার বিমানের জ্বালানি এয়ার টারবাইন ফুয়েল- এর দর লিটার প্রতি ৭৬ রুপি ৫৯ পয়সা।

ফলে লিটার প্রতি জ্বালানির দর অনুযায়ী এমনটা মনে হতেই পারে, মোটরসাইকেল চালানোর চেয়ে উড়োজাহাজে ওড়া সস্তার।

বর্তমানে ভারতের কেন্দ্রীয় যে পরিমাণে কর চাপায় তাতে প্রতি লিটার পেট্রলে কেন্দ্র বিক্রি হয় ৩২.৮০ রুপি আর ডিজেলের ক্ষেত্রে ৩১.৮০ রুপি। এর উপরে বিভিন্ন রাজ্য সরকার বিভিন্ন হারে কর, সেস, ভ্যাট বসায়।

যার ফলে পেট্রল, ডিজেল কেনার সময় জ্বালানির মূল দামের থেকে কর দিতে হয় বেশি। মোটামুটি এই দুই জ্বালানিতে কেন্দ্র ৬৩ শতাংশ এবং রাজ্য ৩৭ শতাংশ কর চাপায়। আর এই করের হারটাই বিমানের জ্বালানির ক্ষেত্রে অনেকটা কম।

তবে অনেক দেশের তুলনায় ভারতে বিমান-জ্বালানির দাম বেশি। এর পিছনেও কারণ করের হার। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের ১১ শতাংশ কর তো রয়েছেই তার উপরে বিভিন্ন রাজ্য সরকার মোটামুটি শূন্য থেকে ৩০ শতাংশ হারে ভ্যাট বসায়।

এছাড়া করোনাকালে বিমান সংস্থাগুলো লোকসানে চলায় সম্প্রতি ভারতের কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রণালয় সব রাজ্যকে ভ্যাট কমানোর আর্জি জানিয়েছে।

আর্জিতে বলা হয়, সর্বত্র ১ থেকে ৪ শতাংশ করা হোক ভ্যাটের পরিমাণ। কেরালা সরকার ভ্যাটের হার কমিয়ে ১ শতাংশ করেছে। এর ফলে সেই রাজ্যে এখন বিমানের জ্বালানি অন্য রাজ্যের তুলনায় সস্তা।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

গুগল-ফেসবুকের বকেয়াসহ রাজস্ব আদায়ের নির্দেশ

 

সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগল, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, ইউটিউব, ইয়াহু, অ্যামাজনসহ অন্যান্য ইন্টারনেটভিত্তিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বকেয়াসহ সব ধরনের রাজস্ব আদায়ের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

পাশাপাশি এসব প্রতিষ্ঠানের নিবন্ধন বাধ্যতামূলক করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি মো. আশরাফুল কামাল এবং বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দিয়েছিলেন।

আদালতে রিট আবেদনকারীদের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হুমায়ন কবির পল্লব। তার সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার মোহাম্মদ কাওছার, ব্যারিস্টার মো. মাজেদুল কাদের, ব্যারিস্টার মোজাম্মেল হক ও ব্যারিস্টার সাজ্জাদুল ইসলাম।

২০১৮ সালে একটি পত্রিকার প্রতিবেদন সংযুক্ত করে ট্যাক্স ফাঁকি দেওয়ার বিভিন্ন ঘটনা তুলে ধরেন ব্যারিস্টার মো. হুমায়ন কবির পল্লব, ব্যারিস্টার মোহাম্মদ কাওছার, ব্যারিস্টার মোহাম্মদ মাজেদুল কাদের, ব্যারিস্টার মো. সাজ্জাদুল ইসলামসহ ছয় জন আইনজীবী। তারা জনস্বার্থে রিট পিটিশন দাখিল করেছিলেন।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

পদোন্নতি পেয়ে সচিব হলেন ছয়জন কর্মকর্তা

 

প্রশাসনের অতিরিক্ত সচিব পদমর্যাদার ছয়জন কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দিয়ে সচিব করেছে সরকার। আর বদলি করা হয়েছে তিন সচিবকে।

বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের চেয়ারম্যান ড. অমিতাভ সরকারকে পদোন্নতি দিয়ে ভূমি আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান  করা হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. শাহনাজ আরেফিনকে পদোন্নতি দিয়ে পরিসখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব করা হয়।

কেন্দ্রীয় ওষুধাগারের পরিচালক আবু হেনা মোরশেদ জামান পদোন্নতি পেয়ে বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের সচিব হয়েছেন।

ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার মো. খলিলুর রহমানকে পদোন্নতি দিয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব করা হয়েছে। অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব কাজী এনামুল হাসানকে পদোন্নতি দিয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব করা হয়।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সোলেমান খানকে পদোন্নতি দিয়ে ভূমি সংষ্কার বোর্ডের চেয়ারম্যান করা হয়েছে।

বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের সচিব প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তীকে পরিকল্পনা বিভাগের সচিব, পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব মুহম্মদ ইয়ামিন চৌধুরীকে মস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. আফজাল হোসেনকে বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশনের সচিব হিসেবে বদলি করা হয়।

সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মো. খলিলুর রহমানকে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেনকে সিলেট বিভাগীয় কমিশনার হিসেবে বদলি করা হয়েছে।

এছাড়া, স্থানীয় সরকার বিভাগের যুগ্মসচিব মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান সরকারকে কেন্দ্রীয় ওষুধাগারের পরিচালক করা হয়েছে।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

শীতকালে করোনাভাইরাস আবার দেখা দিতে পারে, প্রধানমন্ত্রী

 

আসন্ন শীতকালে দেশে আবারও করোনাভাইরাস যাতে মাথাচারা দিয়ে উঠতে না পারে, সেজন্য সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার এবং মাস্ক ব্যবহারের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার বিকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে তার ত্রাণ গুদামের জন্য কম্বল গ্রহণ অনুষ্ঠানে তিনি এ আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, দেখা যাচ্ছে, যখনই শীতকাল আসছে পৃথিবীর সব দেশেই কিন্তু আবার করোনাভাইরাস দেখা দিচ্ছে। ইউএসএ, ইংল্যান্ড বা ইউরোপের দেশগুলোতে এর প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধি পাচ্ছে।

কাজেই বাংলাদেশের সবাইকে সতর্ক থাকার জন্য আমি অনুরোধ করছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, শীতকাল আসলেই একটু ঠাণ্ডা লাগে, সর্দি, কাশি হয়। আর এটা হলেই এই করোনাভাইরাসটা আমাদের সাইনাসে গিয়ে বাসা বানাতে পারে। কাজেই, সেইদিকে সবাইকে একটু সতর্ক থাকতে হবে।

সবাইকে মাস্ক পড়তে হবে এবং খাদ্য তালিকায় ভিটামিন সি যাতে একটু বেশি থাকে এবং যাতে ঠাণ্ডা না লাগে সেদিকে নজর দিতে হবে।

তিনি এ সময় মৌসুমি ফলমূল, শাকসবজি এবং তরিতরকারি বেশি করে খাওয়ার পরামর্শ দেন।

শীত মৌসুমের আগে তার ত্রাণ গুদামের জন্য বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকের দুঃস্থদের জন্য ২৬ লাখ ৪৫ হাজার কম্বল গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে তার মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউস ৩৭টি বেসরকারি ব্যাংকের কাছ থেকে এই কম্বল গ্রহণ করেন।

মুখ্যসচিব প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলের জন্য ১০ লাখ টাকার চেকও গ্রহণ করেন।

বিএবি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মজুমদার বিভিন্ন ব্যাংক চেয়ারম্যানদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, টিকা দেওয়ার পরে কারও করোনা হলে তার হয়তো ক্ষতির পরিমাণটা বেশি হবে না। তবে তার থেকে ছড়াতে পারে, তাই মাস্কটা ব্যবহার করতেই হবে।

তিনি এ ব্যাপারে প্রচার-প্রচারণার ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, সবাইকে সতর্ক করার বিষয়ে প্রচার-প্রচারণাটা দরকার। একটু সতর্ক হলে এই করোনাভাইরাস আর বাংলাদেশের মানুষের কোনো ক্ষতি করতে পারবে না।

তিনি এ সময় ব্যাংক কর্মকর্তাদের মাধ্যমে সমগ্র দেশের জনগণের উদ্দেশ্যে বলেন, করোনাভাইরাসকে আমরা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছি। টিকা সংগ্রহ করে সারা দেশে টিকদান অব্যাহত রয়েছে এবং আজকেও সারা দেশে ৮০ লাখ টিকাদানের কার্যক্রম চলছে।

ছাত্রসমাজ এবং স্কুলের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার প্রস্তুতি তার সরকারের রয়েছে। কেউ বাদ যাবে না, নীতিমালা অনুযায়ী যারা টিকা পাওয়ার যোগ্য বাংলাদেশের সেই সব মানুষই টিকা পাবে এবং আগামী বছরের মাঝামাঝি সময় নাগাদ আমরা সব মানুষকেই টিকা দিতে সক্ষম হব।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনাকালে বিশ্বব্যাপী ব্যবসা-বাণিজ্যে স্থবিরতা নেমে আসলেও তার সরকার চেষ্টা করেছে বাংলাদেশে কোনোকিছু যাতে স্থবির না হয় এবং সচল থাকে। সেদিক থেকে আমি মনে করি, বাংলাদেশ যথেষ্ট সাফল্য অর্জন করেছে।

মানুষের দুঃসময়ে সবসময় বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ব্যাংক এগিয়ে আসে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী তাদেরকে এবারও শীতার্ত জনগণের সহায়তায় এগিয়ে আসায় ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, দুঃসময়ে মানুষের পাশে দাঁড়ানোটাই বড় কথা।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদেরকে স্বাধীনতা দিয়ে গেছেন। কাজেই এই দেশ উন্নত সমৃদ্ধ হোক, দারিদ্র মুক্ত হোক এবং তৃণমূলের মানুষটির পর্যন্ত যাতে ক্রয় ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

তিনি বলেন, যত বেশি মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে তত বেশি ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ঘটবে। নতুন বাজার সৃষ্টি হবে এবং আমরা নিজের পায়ে দাঁড়াব এবং বিশ্ব দরবারে আমাদের একটা অবস্থান আমরা করে নেব। কারণ আমরা মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ী জাতি, কাজেই সবসময় মাথা উঁচু করেই আমরা চলব।

সরকারপ্রধান বলেন, তার সরকার রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসার পরেই বিভিন্ন ব্যাংক, বীমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে বেসরকারি খাতে উন্মুক্ত করে দেন, যাতে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি খাতও আরও শক্তিশালী হয় এবং তারা দেশের মানুষের সেবা করতে পারে এবং দেশের মানুষের আরও কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়।

তার এই পদক্ষেপ দেশের মানুষের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে যথেষ্ট ভূমিকা রেখে যাচ্ছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

গুলশান থানার মামলায় গ্রেফতার আরজে নীরব

 

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান কিউকমের হেড অব সেলস অফিসার হুমায়ুন কবির ওরফে আরজে নীরবকে এবার গুলশান থানার একটি মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধুরী তাকে গ্রেফতার দেখানোর আবেদন মঞ্জুর করেন।

এদিন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গুলশান থানার এসআই আজিজুল হক আসামি আরজে নীরবকে গ্রাহকের ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের মামলায় গ্রেফতার দেখানোর আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত তা মঞ্জুর করেন।

এরআগে গত ৮ অক্টোবর নীরবকে রাজধানীর আদাবর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। ওইদিনই তেজগাঁও থানার মামলায় নীরবের একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

রিমান্ড শেষে ১০ অক্টোবর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। এরপর ১৮ অক্টোবর লালবাগ থানার একটি মামলায় তার আরও একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

ওই মামলায় রিমান্ড শেষে ২৫ অক্টোবর তাকে আবার কারাগারে পাঠানো হয়। এরপর গুলশান থানার মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানোর আবেদন করা হয়।

 

 

 

Edited By: K F

 

 

 

পদ ছাড়লেন সৌরভ গাঙ্গুলী

 

ইন্ডিয়ান সুপার লিগের দল মোহনবাগানের পরিচালক পদ থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন সৌরভ গাঙ্গুলী।

মোহনবাগান দলের মালিক আরপিএসজি গ্রুপ আইপিএলের নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজি লক্ষ্ণৌকে কিনে নেওয়ার দুই দিন পর এ সিদ্ধান্ত জানালেন সৌরভ।

সম্ভাব্য স্বার্থের সংঘাত এড়াতেই মোহনবাগানের ডিরেক্টর পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন সৌরভ।

ইন্ডিয়ান সুপার লিগে মোহনবাগানের ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিক হিসেবে আছে আরপিএসজি গ্রুপ। এ দলটির ডিরেক্টর ছিলেন বিসিসিআইয়ের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী।

সম্প্রতি আরপিএসজি গ্রুপ আইপিএলের নতুন দল লক্ষ্ণৌয়ের ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিকানা পাওয়ার পর থেকেই সৌরভের বিরুদ্ধে স্বার্থের সংঘাতের প্রশ্ন উঠে।  সেই প্রশ্নের মুখে পদত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সৌরভ।

আরপিএসজি গ্রুপের কর্ণধার সঞ্জীব গোয়েনকা বলেন, আমি মনে করি তিনি মোহনবাগান থেকে পুরোপুরি সরে যাচ্ছেন। তবে এটা সৌরভের জন্য ঘোষণা করা ঠিক হবে। আমি দুঃখিত। আগেই বলে দেওয়ার জন্য।

এর আগে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলের সভাপতি থাকা অবস্থায় আইপিএলের দল দিল্লি ক্যাপিটালসের মেন্টর হওয়ায় সৌরভের বিরুদ্ধে স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ উঠেছিল।

 

 

 

 

Edited By: K F

 

 

গাইবান্ধায় মা হত্যার দায়ে ছেলের মৃত্যুদণ্ড

 

গাইবান্ধায় মাকে হত্যার দায়ে ছেলে জিয়াউল হককে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার গাইবান্ধা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক দিলীপ কুমার ভৌমিক এই রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি গাইবান্ধা সদর উপজেলার শিবপুর গ্রামের নুরুল ইসলাম খন্দকারের ছেলে মো. জিয়াউল হক। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবি ফারুক আহম্মেদ বলেন, মামলার দীর্ঘ শুনানি শেষে বিচারক এ রায় দেন।

তিনি আরও জানান, আসামিকে মৃত্যু পর্যন্ত ফাঁসিতে ঝুলিয়ে কার্যকর করার আদেশ দেওয়া হয়েছে।

মামলার বিবরণে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালের ১২ জুন জিয়াউল হক তার ছোট ভাই জোবায়ের খন্দকারের কাছে টাকা চান।

ছোটভাই টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় জিয়াউল হক ক্রিকেট খেলার ব্যাট দিয়ে জোবায়েরকে হত্যার উদ্দেশ্যে মারতে যান। এ সময় তার মা জহুরা বেগম বাধা দিতে গেলে তাকে আসামি মারধর করেন।

এতে জহুরা বেগম গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা জহুরা বেগমকে গাইবান্ধা জেনারেল হাসপালে ভর্তি করান। সেখানে তার অবস্থা অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওইদিন রাতেই জহুরা বেগম মারা যান। এই ঘটনায় নিহতের স্বামী নুরুল ইসলাম খন্দকার বাদী হয়ে গাইবান্ধা সদর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

 

ক্ষমা চেয়ে বিতর্কের অবসান ঘটালেন ডি কক

 

চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলেছিলেন কুইন্টন ডি কক। কিন্তু পরের ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিনি একাদশে ছিলেন না।

পরে জানা গেলো ব্যক্তিগত কারণেই নিজেকে সরিয়ে নেন দক্ষিণ আফ্রিকান এ ক্রিকেটার। যা নিয়ে পরবর্তীতে বিতর্কের সৃষ্টি হয়।

বর্ণবাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হিসেবে বিভিন্ন খেলাতেই খেলোয়াড়দের হাটু গেড়ে বসার দৃশ্যটি এখন বেশ নিয়মিতই হয়ে আসছে।

গত ২৩ অক্টোবর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংস শুরুর আগে হাটু গেড়ে বসে ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার আন্দোলনের সমর্থন জানায় দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে ব্যতিক্রম ছিলেন ডি কক।

সমর্থন না জানিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন তো বটেই, দুই হাত কোমড়ে রেখে তার দাঁড়ানোর ভঙ্গিমাও দৃষ্টিকটু লেগেছে নেটিজেনদের। এক্ষেত্রে ডি ককের বক্তব্য ছিল, জোর করে কোনো নিয়ম চাপিতে দিতে পারে না বোর্ড।

 

অবশেষে নিজেই সেই বিতর্কের অবসান ঘটালেন এই ক্রিকেটার। ক্ষমা চেয়েছেন তিনি এবং বলেছেন, বোর্ডের আরোপিত নিয়ম মেনে চলবেন।

দুঃখ প্রকাশ করে ডি কক বলেন, প্রথমেই আমি সতীর্থ এবং সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। আমি কখনোই এটিকে ইস্যু তৈরি করতে চাইনি।

বর্ণবাদের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর গুরুত্ব আমি বুঝি। পাশাপাশি একজন ক্রীড়াবিদ হিসেবে উদাহরণ সৃষ্টি করার দায়িত্ব সম্পর্কে বুঝি।

যদি আমি হাঁটু গেঁড়ে বসলে অন্যদের জন্য তা শেখার বিষয় হয় এবং জীবনকে আরও ভালো করতে সহায়তা করে, আমি খুশি মনেই তা করবো।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে না খেলার মাধ্যমে আমি কাউকে অসম্মান করতে চাইনি। আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত এবং সবকিছুর জন্য মন থেকে ক্ষমা চাচ্ছি।

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

জামিন পেলেন শাহরুখপুত্র আরিয়ান

 

তিন সপ্তাহ জেলে থাকার পর মাদক মামলায় জামিন পেলেন বলিউড সুপারস্টার শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খান।

বম্বে হাইকোর্ট বৃহস্পতিবার শুনানি শেষে তার জামিন মঞ্জুর করেন।

গত মঙ্গলবার এবং বুধবার আরিয়ানের জামিনের শুনানি অসমাপ্ত ছিল। তৃতীয় দিন বৃহস্পতিবার শুনানি শেষ হয়।

গত ২ অক্টোবর মুম্বাই থেকে গোয়াগামী প্রমোদতরী থেকে আটক করা হয়েছিল আরিয়ানকে। তার পর ৩ তারিখ তাকে গ্রেফতার করে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো।

গ্রেফতারের পর বেশ কয়েকবার তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর হয়। তিন সপ্তাহ ধরে মুম্বাইয়ের আর্থার রোড জেলে বন্ধী ছিলেন ২৩ বছর বয়সী শাহরুখের ছেলে।

 

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

বাঁধনের জন্মদিন উদযাপন বলিউডে

 

 

ছোট পর্দার অভিনেত্রী হিসেবেই পরিচিত ছিলেন আজমেরী হক বাঁধন। এখন তিনি আলোচিত সিনেমার জন্য। চলতি বছর তার অভিনীত সিনেমা কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্রশংসিত হয়েছে।

এরপর বলিউডের সিনেমাতেও নাম লিখিয়েছেন। সেই সুবাদে দুই সপ্তাহ ধরে তিনি সেখানেই অবস্থান করছেন। আজ ২৮ অক্টোবর বাঁধনের জন্মদিন। বলিউডে আনন্দ-উল্লাসে জন্মদিন উদযাপন করছেন এই অভিনেত্রী।

বলিউডের খ্যাতিমান নির্মাতা বিশাল ভরদ্বাজের নতুন সিনেমা ‘খুফিয়া’। এই সিনেমাতেই একজন বাংলাদেশি নারীর ভূমিকায় অভিনয় করছেন বাঁধন।

বাঁধনের জন্মদিন আনন্দ-উল্লাসে উদযাপন করেছে খুফিয়া টিম। সবাইকে নিয়ে কেক কেটেছেন তিনি। সেই ছবি শেয়ার করেছেন ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে।

অবশ্য ছবিগুলোতে খুফিয়া সিনেমার মূল চরিত্রে থাকা আলী ফজল কিংবা টাবুকে দেখা যায়নি।

জানা গেছে, সত্য ঘটনার অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে খুফিয়া। নেটফ্লিক্সের প্রযোজনায় নির্মাণাধীন এই সিনেমার সঙ্গে বাংলাদেশের বিষয়ও জড়িত রয়েছে।

বাঁধনের আগে সিনেমাটিতে অভিনয়ের জন্য প্রস্তাব পেয়েছিলেন মেহজাবীন ও মিম। তারা দু’জনেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন।

উল্লেখ্য, বাঁধনের জন্ম ১৯৮৩ সালের ২৮ অক্টোবর মুন্সীগঞ্জে। বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ থেকে দন্ত বিষয়ে পড়াশোনা করেছেন।

২০০৬ সালে সুন্দরী প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শোবিজে নাম লেখান। একই বছর থেকেই তিনি নাটকে কাজ শুরু করেন।

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

সুদানে অভ্যুত্থান, সাহায্য বন্ধ বিশ্ব ব্যাংকের

 

সামরিক অভ্যুত্থানের জেরে সুদানে সাহায্য স্থগিত করার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে বিশ্ব ব্যাংক।

গত সোমবারের অভ্যুত্থানে সুদানের বেসামরিক সরকার উৎখাত এবং রাজনৈতিক নেতারা বন্দি হওয়ার ঘটনায় দেশজুড়ে বিক্ষোভ উস্কে দিয়েছে।

এ ঘটনায় আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও ব্যাপক নিন্দা-সমালোচনা শুরু হয়েছে।

এর আগে, অসাংবিধানিকভাবে ক্ষমতা দখলের অভিযোগে আফ্রিকান ইউনিয়ন সুদানের সদস্যপদ স্থগিত ঘোষণা করেছে। অন্যদিকে, যুক্তরাষ্ট্র ৭০ কোটি ডলারের সাহায্যও বন্ধ করেছে সুদানে।

সুদানের বিরুদ্ধে এইউ এবং বিশ্ব ব্যাংকের নেওয়া এমন পদক্ষেপ দেশটিতে বেসামরিক সরকার পুনর্বহাল করার জন্য অভ্যুত্থানের নেতা জেনারেল আব্দেল ফাত্তাহ আল-বুরহানের ওপর বাড়তি চাপ সৃষ্টি করেছে।

বিশ্ব ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট ডেভিড মালপাস ওয়াশিংটন থেকে এক বিবৃতিতে জানান, সুদানের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে খুবই উদ্বিগ্ন আমি।

দেশটির আর্থ-সামাজিক ‍পুনরুজ্জীবন ও উন্নয়নের ওপর এই পরিস্থিতির যে নাটকীয় প্রভাব পড়তে পারে তা নিয়ে আমি শঙ্কায় আছি।

আমরা আশা করি সুদানে উত্তরণ প্রক্রিয়ায় সততা এবং শান্তি ফিরে আসবে, যাতে দেশটি আবার অর্থনৈতিক উন্নয়নের পথে যাত্রা শুরু করতে পারে এবং আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক অঙ্গনে সঠিক জায়গা করে নিতে পারে।

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

 

পাকিস্তানকে সমর্থন করায় মুসলিমদের গ্রেফতার করছে ভারত

 

 

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের রেশ যেন এখনো কাটছেই না।

গত রবিবার অনুষ্ঠিত ওই ম্যাচে ১০ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে বিরাট কোহলি এন্ড তার দলকে পরাজিত করেছে বাবর আজম বাহিনী। হারটি এখনো মেনে নিতে পারছে না অনেক ভারতীয় সমর্থক।

সেটিরই রেশ দেখা গেলো ভারতের উত্তর প্রদেশে। পাকিস্তানের জয় উদযাপন করায় তিন কাশ্মিরি মুসলিম ছাত্রকে গ্রেফতার করেছে রাজ্যটির পুলিশ।

পুলিশ বলছে, ম্যাচ চলাকালীন ওই ছাত্ররা ভারত বিরোধী এবং পাকিস্তানের পক্ষে স্লোগান দিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে শত্রুতা প্রচার ও সাইবার সন্ত্রাসের অভিযোগ আনা হয়েছে।

কলেজ কর্তৃপক্ষও গত সোমবার ওই তিন কাম্মিরি ছাত্রকে বহিষ্কার করে দিয়েছে। পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের সমর্থনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করাতেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে জানা গেছে।

উত্তর প্রদেশ পুলিশ বলছে, ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টির কয়েকজন সদস্যের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর বুধবার ২৭ অক্টোবর তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

ফেসবুকে নিয়োগ পেলেন শাবিপ্রবির দুই শিক্ষার্থী

 

জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের সফটওয়্যার প্রকৌশলী হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী।

তারা হলেন-মওদুদ আহমেদ শাহরিয়ার ও এম. নাজিম উদ্দিন। এই দুই শিক্ষার্থী শাবিপ্রবির কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের ২০১৩-১৪ সেশনের ছাত্র।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই দুই শিক্ষার্থী ফেসবুকে চাকরি পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মওদুদ আহমেদ শাহরিয়ার বলেন, ফেসবুকের ইউরোপের প্রধান অফিস লন্ডন থেকে গতকাল নিয়োগপত্র পাঠিয়েছে।

তারা জানতে চেয়েছে, লন্ডন ছাড়া ইউরোপের অন্য কোন অফিস জয়েন করতে চাই কী না। আমি লন্ডন অফিসে থাকার কথাই বলেছি।

তিনি বলেন, মোট তিনটা ধাপে আমার ভাইবা নিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। তিন নম্বর ধাপে ৪টা ভাইবা ছিল। প্রতিটি ভাইবার জন্য সময় দিয়েছে ৪৫ মিনিট করে।

শাবিতে পড়াকালীন প্রোগ্রামিংসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতাম। এই প্রতিযোগিতাগুলোর অভিজ্ঞতা ফেসবুকের ভাইবায় খুব কাজে দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ফেসবুকের মতো জনপ্রিয় একটা সাইটে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে নিয়োগ পেয়ে সত্যিই খুব ভালো লাগছে।

আমাদের দেশের অনেক শিক্ষার্থী আছে যাদের ফেসবুক গুগলে চাকরি করার মতো যোগ্যতা রয়েছে। তবে সঠিক গাইডলাইন না থাকার কারণে তারা সেখানে যেতে পারছে না। এসব শিক্ষার্থীদের জন্য ভবিষ্যতে কাজ করবো যাতে তারা সঠিক গাইডলাইন পায়।

অপর শিক্ষার্থী এম. নাজিম উদ্দীন বলেন, ২০১৪ সালে যখন পোগ্রামিং শুরু করি, তখন থেকেই স্বপ্ন ছিলো পৃথিবীর টপক্লাস ইঞ্জিনিয়ারদের সঙ্গে টেক জায়ান্টে জব করার।

ভার্সিটি শেষ হওয়ার পর থেকেই প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করি গুগল, ফেসবুকের জন্য।

তিনি বলেন, প্রথম কয়েকবার এপ্লাই করে ব্যর্থও হই। কিন্তু সবসময়ই নিজের ওপর বিশ্বাস ছিলো। কখনোই মনোবল হারায়নি। অবশেষে এই বছর জুন মাসে ফেসবুক এবং গুগল থেকে যোগাযোগ করে ইন্টারভিউ দেওয়ার জন্য।

প্রায় দুই মাসব্যাপী ৬টা করে ইন্টারভিউ নেয় গুগল এবং ফেসবুক। সবগুলো ইন্টারভিউ ভালো হওয়ার পর দুই কোম্পানি থেকেই অফার করে।

সবকিছু বিবেচনায় আমি ফেসবুকের লন্ডন অফিসের অফার গ্রহণ করি। কোনো জটিলতা না থাকলে জয়েনিং আগামী ফেব্রুয়ারিতে।

 

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

কিরণ গোসাভিকে আটক করেছে পুলিশ

 

 

ভারতের মুম্বাইয়ের মাদককাণ্ডে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর অন্যতম সাক্ষী কিরণ গোসাভিকে আটক করেছে পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পুন পুলিশ কমিশনার অমিতাভ গুপ্ত।

২০১৮ সালের একটি প্রতারণা মামলায় গোসাভির বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিশ জারি করে পুনে পুলিশ। পুলিশের দাবি, তারপর থেকেই খোঁজ মিলছিলো না তার।

কয়েকদিন আগে নিখোঁজ গোসাভি জানিয়েছিলেন মহারাষ্ট্রে তিনি আতঙ্কে রয়েছেন। উত্তরপ্রদেশে লখনউে আত্মসমর্পণের কথা বলেছিলেন তিনি। যদিও পরে গোসাভির সেই দাবি নাকচ করে লখনউ পুলিশ।

মুম্বাইয়ের প্রমোদতরীতে এনসিবি যখন হানা দিয়েছিলো তখন সেখানে গোসাভি উপস্থিত ছিলেন বলে অভিযোগ।

পরে এনসিবির অফিসে আরিয়ান খানের সঙ্গে সেলফি তোলেন তিনি। দুই জায়গার ছবি-ভিডিওতে দেখা যায় শাহরুখ খানের সঙ্গে তার যোগাযোগের বিষয়টি।

রবিবার গোসাভির দেহরক্ষী হিসাবে দাবি করা এক ব্যক্তি ঘুষ সংক্রান্ত লেনদেনের অভিযোগ তুলেছিলেন তার বিরুদ্ধে।

প্রভাকর সইল নামে ওই ব্যক্তি দাবি করেন, টেলিফোনে ২৫ কোটি টাকা ঘুষের বিষয়টি নিয়ে গোসাভিকে কথা বলতে শুনেছিলেন তিনি।

সেই ২৫ কোটির মধ্যে ৮ কোটি টাকা এনসিবি কর্তা সমির ওয়াংখেড়েকে দেওয়ার কথাও হয়েছিলো। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেন গোসাভি।

 

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

 

টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে অবনতি বাংলাদেশের

 

ঘরের মাঠ মিরপুরে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডকে নাস্তানাবুদ করে টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে অভাবনীয় সাফল্য পায় বাংলাদেশ।

এক লাফে ছয় নম্বরে উঠে এসেছিল টাইগাররা। ছয়ে থেকেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু করেছিল মাহমুদউল্লাহ বাহিনী।

তবে বিশ্বকাপে ব্যর্থ পারফরম্যান্সের পর ফের র‌্যাংকিংয়ে অবনতি ঘটল তাদের। দুই ধাপ পিছিয়ে গেল টাইগাররা।

মঙ্গলবার টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে সর্বশেষ র‌্যাংকিং প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা – আইসিসি।

যেখানে বাংলাদেশের অবস্থান আট নম্বরে দেখানো হয়েছে। ৩০ ম্যাচে বাংলাদেশের পয়েন্ট ৭০৮৬, রেটিং ২৩৬। র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের নিচে নয় ও দশ নম্বরে অবস্থান করছে শ্রীলংকা এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

আর ১৩ ম্যাচে ৩০৭২ পয়েন্ট ও সমান রেটিং নিয়ে ঠিক ওপর অবস্থান করছে রশিদ খানদের আফগানিস্তান।

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

দুই মাসের মধ্যে নিবন্ধন নিতে হবে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোকে

 

 

আগামী দুই মাসের মধ্যে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে রেজিস্ট্রেশন নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর দুপুরে সচিবালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় মন্ত্রিসভার বৈঠক। এতে তিনি ভার্চুয়ালি অংশ নেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা রেখে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোকে রেজিস্ট্রেশন নিতে হবে।

যদি কোনো প্রতিষ্ঠান গ্রাহকের সঙ্গে প্রতারণা করে তা হলে সেই টাকা থেকে গ্রাহকদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

 

খালি মাঠে গোল দেওয়ার চর্চা বিএনপির জন্মলগ্ন থেকে

 

 

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ১৫ ফেব্রুয়ারির খালি মাঠে নির্বাচনের কথা বিএনপি ভুলে গেলেও জনগণ এখনও ভোলেনি।

তিনি বৃহস্পতিবার তার বাসভবনে এক ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, শেখ হাসিনা সরকার কখনও খালি মাঠে গোল দিতে চায় না। সরকার চায় প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচন, আর খালি মাঠে গোল দিতে আওয়ামী লীগ অভ্যস্তও নয়।

বিএনপিই জন্মলগ্ন থেকে এ চর্চা করে আসছে।

বিএনপি কর্মসূচির নামে কোনোরূপ সন্ত্রাস ও জনভোগান্তি সৃষ্টি করলে আওয়ামী লীগ জনগণকে সঙ্গে নিয়ে কঠোরভাবে প্রতিহত করবে বলে হুশিয়ারি দেন সেতুমন্ত্রী।

তিনি বলেন, সভা-সমাবেশ সবার সাংবিধানিক অধিকার; কিন্তু সমাবেশের অনুমতি না দিলে বিএনপি বলত সরকার গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না, আর অনুমতি দিলে হামলা, সন্ত্রাস সৃষ্টি করে জনগণের সম্পদ বিনষ্ট করে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির কর্মসূচি মানেই জনগণের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি করা।

তিনি বলেন, নির্বাচন আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে নয়, নির্বাচন হবে নির্বাচন কমিশনের অধীনে।

পূজামণ্ডপের ঘটনায় বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে সরকারের মামলা দেওয়ার অভিযোগ সত্য নয় জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, কে কোন দল করে সেটি দেখে নয়, ভিডিও ফুটেজ দেখেই  চিহ্নিতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার মাধ্যমে বিএনপি পরিস্থিতি ঘোলাটে করতে চেয়েছিল কিন্তু সরকার তা শক্ত হাতে দমন করেছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি জাতিকে বিভ্রান্ত করছে এবং বিভেদ তৈরি করছে।

তিনি বলেন, গত মঙ্গলবার নয়াপল্টনে পুলিশের ওপর হামলা এবং সন্ত্রাস সৃষ্টির মাধ্যমে বিএনপি প্রমাণ করেছে, তারা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালনে সক্ষম নয়, তাদের কর্মসূচি মানে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা।

মঙ্গলবারের কথিত সম্প্রীতি সমাবেশের আড়ালে বিএনপির ভিন্ন কোনো এজেন্ডা ছিল কিনা তা খতিয়ে দেখা দরকার বলে মনে করেন ওবায়দুল কাদের ।

ওবায়দুল কাদের প্রশ্ন রেখে বলেন, তবে কি অপরাধীদের বাঁচানোর জন্যই সম্প্রীতি সমাবেশের নামে বিএনপির এ সন্ত্রাস?

তিনি আরও বলেন, আসলে হামলা, সংঘর্ষ, ষড়যন্ত্র আর সন্ত্রাসী বিএনপির রাজনীতি,  সেটি পূজামণ্ডপে হোক আর নয়াপল্টনে হোক- বিএনপি এই বৃত্ত থেকে বেরিয়ে আসতে পারছে না।

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

২০২২ সালে সরকারি ছুটি ২২ দিন

 

২০২২ সালে ছুটির তালিকা অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। সাধারণ ও নির্বাহী আদেশ মিলিয়ে আগামী বছরও ২২ দিন ছুটি থাকবে।

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ ছুটির তালিকা অনুমোদন দেওয়া হয়। তিনি বৈঠকে ভার্চুয়ালি অংশ নেন।

সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম ছুটির তালিকা অনুমোদনের বিষয়টি জানান।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ২০২২ সালে ১৪ দিন সাধারণ ছুটি এবং নির্বাহী আদেশে আট দিন সরকারি ছুটি থাকছে।

সব মিলিয়ে ছুটি থাকবে ২২ দিন। এর মধ্যে শুক্র ও শনিবার সরকারি ছুটি পড়েছে ছয় দিন।

২০২১ সালেও ২২ দিন সরকারি ছুটি রয়েছে।

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

 

 

ট্রাকের ধাক্কায়, বিকল ট্রেনের ইঞ্জিন

 

পাবনায় ট্রাকের ধাক্কায় আন্তঃনগর ঢালারচর এক্সপ্রেস ট্রেনের ইঞ্জিন বিকল হয়েছে। এতে পাবনা-রাজশাহী রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

বৃহস্পতিবার ভোর ৬টার দিকে পাবনা-রাজশাহী রেলরুটের মহেন্দ্রপুর রেলক্রসিং মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, সকালে ঈশ্বরদী রেলওয়ে স্টেশন থেকে ঢালারচরের উদ্দেশে ছেড়ে যায় আন্তঃনগর ঢালারচর এক্সপ্রেস।

ট্রেনটি পাবনা স্টেশন পার হয়ে মহেন্দ্রপুর রেলক্রসিং মোড়ে পৌঁছায়। এ সময় একটি চলন্ত ট্রাক ট্রেনটিকে সজোরে ধাক্কা দেয়।

খবর পেয়ে পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আসেন। তবে এ ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

ট্রাকচালক ভেবেছিলেন ট্রেনটি আসার আগেই পার হয়ে যেতে পারবেন। কিন্তু তখনই ট্রেনে ট্রাকের ধাক্কা লাগে।

স্থানীয়রা জানান, দুর্ঘটনার সময় রেলক্রসিংয়ের ক্রসবার নামাননি গেটম্যান। ট্রাকচালক সম্ভবত রাতভর গাড়ি চালানোর ক্লান্তিতে ঝিমাচ্ছিলেন। ট্রেনের উপস্থিতি খেয়াল না করেই গাড়ি চালানোয় দুর্ঘটনা ঘটেছে।

পাবনা সদর থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়েই আমরা ঘটনাস্থলে আসি। এ দুর্ঘটনায় রাস্তার দুই পাশে যানজট তৈরি হয়েছে। যানজট নিরসন করেছে পুলিশ।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের ব্যবস্থাপক শাহীদুল ইসলাম বলেন, অল্প সময়ের মধ্যে বিকল্প ইঞ্জিন দিয়ে আমরা ট্রেনটি চালানোর ব্যবস্থা করব। দুর্ঘটনার কারণ খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি করা হবে।

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

 

কাশ্মীর ভারতের মুকুটের রত্ন, অমিত শাহ

 

বিশ্বের বিভিন্ন জায়গা থেকে ভারতে মানুষ ছুটে আসে কাশ্মীরের টানে- এটি নতুন কিছু নয়।

এমনকি ভারতেও অন্যতম পর্যটন গন্তব্য এই কাশ্মীর। এবার কাশ্মীরের রূপে মুগ্ধ হলেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

মঙ্গলবার তিনি কাশ্মীরের বেশ কিছু ছবি পোস্ট করেন টুইটারে।

জম্মু ও কাশ্মীরে তিন দিনের সরকারি সফর শেষ দিল্লি ফেরার পথে ছবিগুলো তোলা হয় বলে জানান ভারতের এ মন্ত্রী।

টুইটারে অমিত শাহ লেখেন- শ্বাসরুদ্ধকর ছবিগুলো তোলা হয়েছে পীর পাঞ্জাল মাউন্টেন রেঞ্জে মৌসুমের প্রথম তুষারপাতের পর।

কাশ্মীর হচ্ছে ভারতের মুকুটের রত্ন, যা পর্যটকদের অভ্যর্থনা জানাতে সম্পূর্ণ প্রস্তুত। ভারতের অত্যন্ত সুন্দর এ জায়গায় ভ্রমণ করুন।

সোমবার অমিত শাহ জম্মু ও কাশ্মীরের ট্যুরিজম বিভাগের আয়োজনে ডাল লেকে হাউসবোট উৎসবের উদ্বোধন করেন।

কাশ্মীরের গুলমার্গ, সোনামার্গ, পাহলগাম, শোপিয়ান এবং গুরেজ এলাকায় মাঝারি তুষারপাত হয়েছে। অপরদিকে লাদাখের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মিনামার্গ এবং দ্রাসেও হয়েছে তুষারপাত।

জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামা ও কুলগাম জেলায়ও মাঝারি ধরনের তুষারপাতের ঘটনা ঘটেছে।

এটি ছিল জম্মু ও কাশ্মীরের ৩৭০ ধারা বাতিল করার পর অমিত শাহের প্রথম কাশ্মীর সফর।

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

সুইজারল্যান্ড ও সুইডেনের রাষ্ট্রদূতের রাঙামাটি সফর

 

 

পার্বত্য জেলা রাঙামাটি সফর করছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইজারল্যান্ড সরকারের রাষ্ট্রদূত নাথাইলে চুয়ার্ড এবং সুইডেন সরকারের রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার বার্জ ভন লিন্ডা।

সফরের দ্বিতীয় দিন বৃহস্পতিবার জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির বাস্তবায়নাধীন বিভিন্ন প্রকল্প পরিদর্শন করেছেন তারা।

এর আগে প্রথম দিন বুধবার রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরীর সঙ্গে তার অফিসকক্ষে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হন তারা।

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সঙ্গে সাক্ষাৎকালে উভয় দেশের রাষ্ট্রদূত বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে এটি তাদের প্রথম সফর।

তাদের সরকার বিভিন্ন দেশে জলবায়ু, মানবাধিকার, জেন্ডার বিষয়ে কাজ করে। এসব বিষয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকার পরিস্থিতি সম্পর্কে বুঝতে তাদের এ সফর।

এ ছাড়া পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির আলোকে গঠিত পার্বত্য পরিষদগুলো কীভাবে উন্নয়নমূলক কাজ করে এবং করোনাকালীন এখানকার মানুষ কীভাবে নিজেদের চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলা করছে, সে বিষয়েও জানতে আগ্রহ প্রকাশ করেন তারা।

এ সময় উভয় দেশের রাষ্ট্রদূতকে অভিনন্দন জানিয়ে পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী বলেন, পার্বত্য শান্তিচুক্তির পর ইউএনডিপির মাধ্যমে বিদেশি দাতাদের সহায়তায় পার্বত্য চট্টগ্রামে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করছে।

এসব কর্মকাণ্ডের মধ্যে রাঙামাটি জেলার প্রত্যন্ত এলাকার স্কুলগুলো জাতীয়করণ, ম্যালেরিয়া নির্মূল এবং কৃষিক্ষেত্রে ব্যাপক সাফল্য এসেছে।

সুইজারল্যান্ড ও সুইডেনের রাষ্ট্রদূতকে তিনি জানান, পার্বত্য শান্তিচুক্তি হয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রামের সমস্যার রাজনৈতিক সমাধানের অংশ হিসাবে। এটি ধারাবাহিকভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে।

তার ধারাবাহিকতায় পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয়, পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ, তিন পার্বত্য জেলা পরিষদ, ভারত প্রত্যাগত ও অভ্যন্তরীণ উদ্বাস্তু সমস্যা সমাধানে টাস্কফোর্স এবং ভূমি সমস্যা সমাধানে পার্বত্য ভূমি কমিশন কাজ করে যাচ্ছে।

কিন্তু প্রশাসনিক ও আমলাতান্ত্রিক ধীরগতির কারণে রাজনৈতিকভাবে প্রতিষ্ঠিত এসব প্রতিষ্ঠান সক্রিয়ভাবে শক্তিশালী হতে পারছে না।

তবে শিগগির সমস্যাগুলোর সমাধান আসবে বলে মন্তব্য করে পার্বত্য চট্টগ্রামের দারিদ্র্য বিমোচন এবং জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় সুইজারল্যান্ড ও সুইডেন সরকারকে সহায়তায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানা তিনি।

এ ছাড়া নারী শিক্ষা উন্নয়ন এবং জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় দাতা সংস্থাদের বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরেন তিনি।

সফররত দুই দেশের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে ইউএনডিপির বাংলাদেশের আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জি, সহকারী আবাসিক প্রতিনিধি প্রসেনজিৎ চাকমাসহ অন্য সফরসঙ্গী উপস্থিত ছিলেন।

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

আরও এক বছর ডিএমপি কমিশনার থাকছেন শফিকুল

 

অতিরিক্ত আইজিপি মোহা. শফিকুল ইসলামকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার হিসেবে আরও এক বছর চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়েছে সরকার।

বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতির আদেশে উপসচিব মো. অলিউর রহমানের সই করা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের চুক্তি ও বৈদেশিক নিয়োগ শাখা এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সরকারি চাকরি আইন, ২০১৮ এর ধারা-৪৯ অনুযায়ী বিসিএস ক্যাডারের কর্মকর্তা মোহা. শফিকুল ইসলামকে তার অবসর-উত্তর ছুটি ও তদসংশ্লিষ্ট সুবিধাদি স্থগিতের শর্তে আগামী ৩০ অক্টোবর অথবা যোগদানের তারিখ থেকে পরবর্তী এক বছর মেয়াদে পুলিশ কমিশনার, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ হিসেবে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ করা হলো।

প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়, এ নিয়োগের শর্তাবলি অনুমোদিত চুক্তিপত্র দ্বারা নির্ধারিত হবে।

ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম ২০১৯ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর ডিএমপি কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছিলেন। এর আগে তিনি সিআইডিপ্রধানের দায়িত্ব পালন করেন।

সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থানে হামলার ঘটনার কারণে তার চাকরির মেয়াদ বাড়ানোর গুঞ্জন ওঠে।

২০১৯ সালের ৭ সেপ্টেম্বর ডিএমপি কমিশনারের দায়িত্ব নেওয়া মোহা. শফিকুল ইসলাম বিসিএস অষ্টম ব্যাচের কর্মকর্তা।

১৯৮৯ সালের ২০ ডিসেম্বর এএসপি হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন।  তার গ্রামের বাড়ি চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায়।

তিনি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। কর্মজীবনে তিনি নারায়ণগঞ্জ, পটুয়াখালী, সুনামগঞ্জ ও কুমিল্লা জেলায় পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

মডেল বানানোর প্রলোভনে নারীদের আটকে অনৈতিক কর্মকাণ্ড

 

টিকটক ও শর্টফিল্মের মডেল বানানোর নামে নারীদের ডেকে এনে আটকে রেখে মুক্তিপণ আদায় করতো একটি চক্র।

মুক্তিপণ আদায়ের পর এসব নারীর বিবস্ত্র ছবি ও ভিডিও ধারণ করে রাখতো। যারা মুক্তিপণ দিতে পারতো না তাদের দিয়ে জোর করে করানো হতো দেহব্যবসা। চক্রটির নেতৃত্বে রয়েছেন ২৩ বছর বয়সী এক তরুণী।

মঙ্গলবার নুরিতা ওরফে সুরাইয়া ওরফে প্রিয়া নামের ওই তরুণীকে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান কেরানীগঞ্জ সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহাবুদ্দিন কবীর। এ সময় থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ উপস্থিত ছিলেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আরও জানান, দেখতে সুন্দর, বিউটি পার্লারসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে জব করে এবং যাদের অভিনয়ের প্রতি দুর্বলতা আছে- এমন মেয়েদের টার্গেট করে ফাঁদ পাতা হয়।

এরপর চক্রের প্রধান নুরিতা ফেসবুকে তাদের সঙ্গে সখ্য গড়ে তোলে। টিকটক ও শর্টফিল্মের অভিনয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ডেকে আনে বিভিন্ন জায়গায়। এরপর সেখান থেকে কৌশলে তাদের নিয়ে যাওয়া হয় ভাড়া করা ফ্লাটে।

হাত-পা বেঁধে করা হয় জিম্মি। পরে পরিবারের কাছে ফোন করে দাবি করা হয় মুক্তিপণ। মুক্তিপণ না পেলে জিম্মি করা নারীদের দিয়ে জোর করে করানো হতো দেহব্যবসা।

গত ২২ অক্টোবর সন্ধ্যায় চক্রটি এক তরুণীকে মডেল বানানোর নামে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের হাসনাবাদ এলাকার ভাড়া ফ্ল্যাটে নিয়ে আসে। সেখানে তাকে হাত-পা বেঁধে মারধর করা হয়।

এরপর বিবস্ত্র করে তার ছবি ও ভিডিও ধারণ করে পরিবারের কাছে মুক্তিপণ দাবি করে। তার পরিবার ৮ হাজার টাকা মুক্তিপণ দেওয়ার পরদিন হাত-পা বাঁধা অবস্থায় তাকে বসুন্ধরা রিভারভিউ প্রকল্পের নির্জন স্থানে ফেলে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

ঘটনার বিস্তারিত শুনে তদন্তে নামে পুলিশ। তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় ওই ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয় নুরিতাকে। অভিযানের সময় ফ্ল্যাট থেকে অপর এক তরুণীকে জিম্মি দশা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

তাকেও একইভাবে ওখানে এনে জিম্মি করা হয়েছিল। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে কৌশলে পালিয়ে গেছে নুরিতার অন্যতম সহযোগী মারুফ আহমেদ সৌরভ ওরফে ওয়াসিম।

এ ঘটনায় ভিকটিম নুরিতা ও মারুফ আহমেদসহ অজ্ঞাত কয়েকজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছেন।

তিনি আরও জানান, কিছুদিন পূর্বে যাত্রাবাড়ী থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছিল নুরিতা। কিন্তু জামিনে বের হয়ে সে একই কাজ শুরু করে।

নুরিতাসহ তার সহযোগীরা বেশিদিন এক জায়গায় অবস্থান করে না। রাজধানী ও আশপাশের এলাকায় ১/২ মাসের জন্য বাসা ভাড়া নিয়ে অপকর্ম করে অন্যত্র চলে যায়।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ জানান, নুরিতার গ্রামের বাড়ি বগুড়া জেলায়। পিতার নাম আলমগীর ফকির। মডেল হওয়ার আশায় সেও একদিন ঢাকায় পাড়ি জমায়। প্রায় ৫ বছর পূর্বে নুরিতার সঙ্গেও একই ঘটনা ঘটেছিল।

ওই ঘটনায় নুরিতা আশুলিয়া থানায় বর্তমান পার্টনার মারুফ আহমেদের বিরুদ্ধে মামলা করে।

সেই মামলায় মারুফ জামিনে আসার পর নুরিতা স্বেচ্ছায় মারুফের সঙ্গে যোগ দিয়ে এভাবে নারীদের জিম্মি করে টাকা আদায়ের পথ বেছে নেয়।

একজন নারী হওয়ায় সহজেই অন্য নারীদের বশে আনতে পারতো নুরিতা। এ কারণে এক সময় দলের প্রধান হয়ে উঠে।

ওসি আরও জানান, চক্রটিতে কারা কারা জড়িত, এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। অপরাধীদের শনাক্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

 

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

 

খাদ্যশস্যের দাম জ্বালানির মতোই, অর্থমন্ত্রী

 

বিশ্বে খাদ্যশস্যের দাম জ্বালানির মতোই বাড়ছে। তবে বর্তমানে ইনফ্লেশন আমাদের ধারণার মধ্যেই আছে। সার্বিকভাবে মূল্যস্ফীতি হয়নি। মূল্যস্ফীতি প্রতিনিয়তই পর্যালোচনা করা হচ্ছে। এখনো কোনো সমস্যা হয়নি।

বুধবার অর্থনৈতিক বিষয় ও সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

ওই বৈঠকে বাংলাদেশের কাফকো, কাতারের মুনতাজাত ও সৌদি বেসিক ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন  থেকে ৯০ হাজার টন ইউরিয়া সার কেনার তিনটি প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়। এতে মোট ব্যয় হবে প্রায় ৫৬৬ কোটি টাকা।

অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ডলারের মূল্য আমরা নির্ধারণ  করে রাখিনি, এটা ফিক্সড না। এটি চাহিদা ও সরবরাহের ওপর নির্ভর করে। অতীত থেকে আমরা যেভাবে করে আসছি, সেভাবেই হয়ে আসছে।

তিনি আরও বলেন, ডলারের মূল্যবৃদ্ধি প্রসঙ্গে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল কী বলেছে, আমি জানি না। সংস্থাটি পরামর্শ দিতে পারে।

কারণ তারা আমাদের উন্নয়ন অংশীদার। আমাদের অর্থনীতির সঙ্গে তারা ওতপ্রোতভাবে জড়িত। কিন্তু তারা আমাদের সিদ্ধান্ত নিতে বলতে পারে না।

মুস্তফা কামাল বলেন, আমরা মনে করি- আমাদের নিজস্ব যে প্যাগড কারেন্সি সেটি ফ্ল্যাক্সিবলই আছে। ডলার বেচাকেনা কীভাবে হয়, ব্যাংকগুলোর কাছে যখন ডলারের পরিমাণ বেশি থাকে তখন বাংলাদেশ ব্যাংক কিছু ডলার কিনতে পারে।

অন্যান্য দেশেও এমনটা হয়ে থাকে। অন্যান্য দেশে এটা ফিক্সড করা থাকে, মার্কেট আপগ্রেড করুক বা না করুক, ফিক্সড রেটেই নিতে হবে। আমাদের দেশে এমন নয়।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের কাছে অনুমোদিত প্রস্তাবগুলোর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সামসুল আরেফিন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন কর্তৃক কাফকো বাংলাদেশ থেকে ৩০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার কেনার প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। এতে ব্যয় হবে ১৮৬ কোটি টাকা।

বিসিআইসি কর্তৃক কাতারের মুনতাজাত থেকে ৩০ হাজার টন ইউরিয়া সার কেনা হবে। এর ব্যয় ধরা হয় ১৮৯ কোটি টাকা। আর এসএবিআইসি সৌদি আরব থেকে ৩০ হাজার টন বাল্ক গ্র্যানুলার ইউরিয়া সার কেনা হবে। দাম হবে ১৯০ কোটি টাকা।

 

 

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

ফেসবুক-ইউটিউব নিয়ন্ত্রণে ক্ষমতা বাড়ছে সরকারের

 

 

ফেসবুক-ইউটিউবসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যখন যার যা খুশি, তাই সম্প্রচার করতে পারবে না।

সরকারের দৃষ্টিতে ক্ষতিকর সম্প্রচারের বিষয়গুলো চাইলেই বন্ধ করে দিতে পারবে কর্তৃপক্ষ। এর দ্বারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরকারের নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা বাড়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেছেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লাইভ ও ভিডিও বন্ধ করতে পারব। যখনই প্রয়োজন হবে আমরা তখনই বন্ধ করতে সক্ষম হব।

বুধবার সচিবালয়ে বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম আয়োজিত সংলাপে অংশ নিয়ে তিনি এ তথ্য জানান।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, কুমিল্লার ঘটনায় ৩০০ লিংকে রিপোর্ট করেছি। এবার আমরা ৩৬৪টি লিংক বন্ধ করেছি।

ফেসবুকের সঙ্গে ২০১৮ সাল থেকে আলোচনা চলছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আমি এখন পর্যন্ত ফেসবুকের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করছি। বাংলাদেশে তাদের বিশাল বাজার।

আশা করছি, বাংলাদেশের পরিস্থিতি ফেসবুক-ইউটিউব বুঝতে শুরু করেছে।

টেলিযোগাযোগমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে যেভাবে চাপ দেওয়া দরকার সেই চাপ অব্যাহতভাবে দেওয়া হচ্ছে। তার পরিপ্রেক্ষিতে তারা ভ্যাট দেয়।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, আমি তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। আমরা কুমিল্লার বিষয়ে ফেসবুককে খুব কড়া ভাষায় অবহিত করেছি। যাতে মাথা ব্যথার কারণে মাথা কেটে ফেলতে না হয়।

তিনি বলেন, মাথা ব্যথা হলে মাথা কেটে ফেলা সমাধান নয়। ওষুধ দিয়ে সমস্যা সমাধান করতে হবে।  এক সময় গুজব রটানো কঠিন হয়ে যাবে।

বিএসআরএফ সভাপতি তপন বিশ্বাসের সভাপতিত্ব ও সাধারণ সম্পাদক মাসউদুল হকের সঞ্চালনায় সংলাপে আরও উপস্থিত ছিলেন প্রধান তথ্য অফিসার শাহেনুর মিয়া।

 

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

নদীবন্দরে চাঁদাবাজি বন্ধের দাবি শ্রমিকদের

 

বরিশাল নদীবন্দরে থ্রি হুইলার থেকে চাঁদাবাজি বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন শ্রমিকরা। পাশাপাশি নগরীতে বিক্ষোভ মিছিলও করেছেন থ্রি হুইলার শ্রমিকরা।

বুধবার বরিশাল নদীবন্দরের সামনে থ্রি হুইলার চালক-শ্রমিকদের ব্যানারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী শ্রমিক মো. জালাল বলেন, মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে মাহিন্দ্রা ও সিএনজি অটোরিকশা শ্রমিকদের আয় কমে গেছে।

এর মধ্যে প্রতি রাতে নদীবন্দর এলাকায় লঞ্চের যাত্রী পরিবহন করার জন্য আমরা গাড়ি নিয়ে আসলে ভাটারখাল এলাকার সুমন ও চাঁদমারী মাদ্রাসা গলির  রাজিব, ফয়সাল ও মিলন  সিরিয়াল দেওয়ার জন্য চাঁদা আদায় করেন। আমাদের নানা সমস্যার কথা অনেকবার বলেছি ইউনিয়নকে। তারা কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।

একাধিক শ্রমিক জানান, থ্রি হুইলার মাহিন্দ্র, সিএনজি যাত্রী পরিবহন করার জন্য নদীবন্দরে আসলে সুমন ও তার সহযোগীরা সিরিয়াল দেওয়ার জন্য অগ্রিম ৫ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা এবং প্রতি রাতে গাড়ি প্রতি ১০০ টাকা আদায় করেন।

প্রতিবাদ করলে মারধরের শিকার হতে হয়। তাই চাঁদাবাজি বন্ধের প্রতিবাদে আমরা সব শ্রমিক গাড়ি বন্ধ করে বিক্ষোভ শুরু করি।

বরিশাল মহানগর শ্রমিক লীগ সাধারণ সম্পাদক পরিমল চন্দ্র দাস বলেন, আমি সবসময় সাধারণ শ্রমিকদের পাশে আছি। নদীবন্দর এলাকায় কোন গাড়ি থেকে কেউ চাঁদাবাজি করলে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্ৰহণ করব।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত সুমন, ফয়সাল, রাজিব বা মিলনের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

 

 

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

ড্যান্ডি নেশায় আসক্ত টঙ্গীর পথশিশুরা

 

 

সর্বনাশা মাদকের ছোবলে যুবক, বয়স্কদের পাশাপাশি টঙ্গীতে ড্যান্ডি নেশায় এখন পথশিশুরাও আসক্ত।

ধীরে ধীরে এগিয়ে যাচ্ছে অন্ধকার জীবনে। এসব শিশুদের বেশিরভাগই নিম্নবিত্ত পরিবারের সন্তান, যাদের বয়স ৮ থেকে ১৫ বছর বয়সের মধ্যে।

টঙ্গী-কালীগঞ্জ সড়ক, স্টেশন রোড ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের উভয় পাশ, শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালের বাউন্ডারি দেয়াল সংলগ্ন ফুটপাত, রেলওয়ে জংশনের প্ল্যাটফর্ম, বাসস্ট্যান্ড ও বস্তির খুপরি ঘরসহ অধিকাংশ ঘনবসতি এলাকায় ২০-২৫ জন পথশিশুকে প্রকাশ্যে নেশাজাতীয় দ্রব্য ড্যান্ডি সেবন করতে দেখা যায়।

কেউ দাঁড়িয়ে আছে, কেউবা দেয়ালে হেলান দিয়ে বসে আছে। সবার হাতে পলিথিন। ফুঁ দিয়ে ফুলিয়ে নাক মুখ তাতে ঢুকিয়ে কয়েক মিনিট চেপে ধরছে।

ভেতরে আঠালো হলুদ কিছু পদার্থ। কিছুক্ষণ গন্ধ শুকার পর একজন ফুটপাতেই চোখ বুজে শুইয়ে আছে, অন্যজন আকাশের দিকে তাকিয়ে অদৃশ্য কি যেন খুঁজছে।

প্রায় প্রতিদিনই কম-বেশি এ দৃশ্য চোখে পড়ে। একই দৃশ্য দেখা যায় নতুনবাজার যাওয়ার পথে সড়কের দুই পাশেও।

নেশার জগতে বিশেষ করে নিম্নবিত্তের কাছে প্রচলিত এ মাদকটির নাম ডেনড্রাইট। অনেকে বুস্টিক হিসেবে চিনে। তবে মাদকসেবীদের কাছে এটি পরিচিত ড্যান্ডি নামেই।

দিন দিন বাড়ছে এর চাহিদা। এক সময় টোকাই শ্রেণির শিশু-কিশোরদের মধ্যে এর ব্যবহার প্রচলিত থাকলেও বর্তমানে অনেক ধনীর দুলালও এটি গ্রহণ করায় ক্রমশ মাদকসেবীদের কাছে প্রিয় হয়ে উঠছে এটি।

জানা গেছে, ডেনড্রাইট বা বুস্টিক একধরনের আঠালো পদার্থ। কাঁচ, রাবার, চামড়া কিংবা রেক্সিন জাতীয় বস্তু জোড়া লাগাতে এটি আইকা বা গাম হিসেবে ব্যবহৃত হয়। গ্যালন, কৌটা বা টিউবে পাওয়া যায় এটি।

যে কোন হার্ডওয়ারের দোকান থেকে এটি খুব সহজেই যে কেউ কিনতে পারে। প্রধানত ভারত ও নেপাল থেকে এটি এদেশে আসছে। ডেনড্রাইট, ড্যান্ডি বা জুতা তৈরির আঠায় টলুইন নামক এক ধরনের আঠালো তরল পদার্থ থাকে।

এটি বাষ্পীভূত হয়ে নিঃশ্বাসের সঙ্গে সেবনকারী শিশুদের দেহে প্রবেশ করলে ক্ষণস্থায়ীভাবে ঝিমুনি, মাথাব্যথা, ক্ষুধা না লাগা ও নিয়ন্ত্রণহীনতার উদ্রেক করে। ডেনড্রাইট স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর।

বুধবার স্টেশনরোড ফুটপাতে গেলে দেখা যায়, ফুটপাতে কয়েকজন বসে ড্যান্ডি সেবন করছিল। এক শিশু পলিথিনে মুখ ঢুকিয়ে নি:শ্বাস টানছে।

জিজ্ঞাসা করতেই শুয়ে থাকা শিশুটি চোখ বুজে উত্তর দেয় ড্যান্ডি খাই ড্যান্ডি। এইডা খাইলে নিশা অয়, ঘুম আইয়ে। খিদা লাগে না। দুনিয়াদারির কোন হুঁশ থাহে না।

নাম জানতে চাইলে একে একে বলে উঠল- নুর মোহাম্মদ, হৃদয়, রিফাত, রাসেল, সূর্য, ময়না, শান্ত।

নেশার টাকা কীভাবে জোগাড় করে জানতে চাইলে হৃদয় জানায়, ভিক্ষা করে টাকা জোগাই আবার বড় ভাইদের নেশা আইন্না দিলে তারা টাকা দেয়। সেই টাকা দিয়া ড্যান্ডি কিনি।

তবে নেশার টাকা জোগাতে পথ যাত্রীদের মূল্যবান জিনিসপত্র ছিনতাইসহ বাসা-বাড়ি ও দোকানপাটে ছোট-বড় চুরির ঘটনাও ঘটাতে দেখা যায় তাদের।

টঙ্গীতে পথশিশুদের নিয়ে কাজ করা টোকাই উন্নয়ন সোসাইটির অর্গানাইজার অলিউল ইসলাম ভয়ংকর একটি তথ্য দেন।

তিনি জানান, ড্যান্ডি সেবনকারী পথশিশুদের অনেকে দাঁতের ফাঁকে ব্লেডের টুকরো ঢুকিয়ে রাখে। মাঝে মধ্যে ব্লেডে চাপ দেয়। এতে মাড়ি কেটে রক্ত বের হয়। ড্যান্ডির গন্ধ শুঁকার পর নোনতা রক্তের স্বাদে নাকি নেশা বেশি হয়।

এ ধরনের বেশ কয়েকজন শিশুকে পেয়েছেন জানিয়ে অলিউল ইসলাম বলেন, অন্য শিশুদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে তাদের এখানে রাখা যায় না।

আমরা ড্যান্ডিসহ বিভিন্ন নেশা সেবনকারী পথশিশুদের এনে পুনর্বাসনের চেষ্টা করি। এক্ষেত্রে সরকারী সহায়তা পেলে কাজটি চালিয়ে যেতে আরও সহজ হতো।

এ প্রসঙ্গে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, গাম জাতীয় কেমিকেল সেবন করলে কিডনি ও লিভার অকার্যকর হতে পারে।

এর প্রভাবে ক্রনিক ডিজিজ যেমন ক্যান্সার হতে পারে। এমনকি মস্তিষ্কবিকৃতি হওয়ারও অধিক সম্ভাবনা থাকে।

টঙ্গী সরকারি কলেজের প্রফেসর কানিজ ফাতেমা এসব ড্যান্ডিসেবীদের ভবিষ্যতের ভয়াবহ পরিণতি সম্পর্কে বলেন, গ্লুগাম বা মাদক হিসেবে পরিচিত ড্যান্ডিতে টলুইন, ন্যাপথালিন, বেনজিন মিথাইল ও কার্বন ড্রাই ক্লোরাইড নামক পদার্থ ব্যবহৃত হয় যা বিশেষ গন্ধযুক্ত, অধিক উদ্বায়ী ও বাষ্পীয়।

এটি সেবনে দেহে প্রথমে শিহরণ জাগে এবং পরে অবসন্ন ভাব, চলাফেরায় অসংলগ্নতা, মাথা ঘোরা ও বমি বমি ভাব হয়। দীর্ঘমেয়াদি সেবনে লিভার কিডনিসহ ব্রেইনের গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলোকে নিষ্ক্রিয় করে ফেলে ড্যান্ডি অর্থাৎ টলুইন।

এছাড়া নিয়মিত ড্যান্ডি সেবনে বেনজিন মিথাইলের প্রভাবে পথশিশুদের মস্তিষ্ক বিকৃতির আশঙ্কা রয়েছে শতভাগ।

এটি সেবনে মানসিক সমস্যা, নিউরোলজিক্যাল সমস্যা, মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ এমনকি নার্ভাস সিস্টেম বন্ধ হয়ে মৃত্যুও হতে পারে। তবে এদের মরণ নেশা থেকে ফিরিয়ে আনতে হলে সরকারি ভূমিকার বিকল্প নেই বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

 

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

রাজশাহীর বিসিএস পরীক্ষা নিয়ে পুলিশের নির্দেশনা

 

 

রাজশাহী মহানগরীর ৪৪টি কেন্দ্রে আগামী শুক্রবার ৪৩তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি টেস্ট পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এ বিষয়ে বিশেষ নির্দেশনা জারি করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, পরীক্ষা চলাকালে এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চতুর্দিকে ২০০ গজের মধ্যে সব প্রকার মিছিল, মিটিং, সমাবেশ, বিক্ষোভ প্রদর্শন, মাইকিং, বিস্ফোরক দ্রব্য ও অস্ত্রশস্ত্র বহন এবং চারজনের অধিক একত্রে চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

বুধবার রাজশাহী মহানগর পুলিশের কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক তার ওপর অর্পিত ক্ষমতাবলে এ আদেশ জারি করেছেন। আদেশ অমান্য করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

সব ধর্মের মানুষের জন্য মাদ্রাসা উন্মুক্ত করে দিন, জাফরুল্লাহ

 

সব ধর্মের মানুষের জন্য মাদ্রাসাগুলো উন্মুক্ত করে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

তিনি বলেছেন, সব ধর্মের মানুষের জন্য মাদ্রাসাগুলো উন্মুক্ত করে দেওয়া হোক। যেখানে যে কোনো ধর্মের লোক পড়তে পারবে।

বুধবার সকাল ১১টায় শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে নৈতিক সমাজ নামের একটি সংগঠন আয়োজিত সমাবেশে তিনি এ দাবি জানান।

সমাজের চুরি, সন্ত্রাস, লুটপাট বন্ধ করতে হলে নৈতিক সমাজ প্রতিষ্ঠা ছাড়া কোনো উপায় নেই বলে সমাবেশে মন্তব্য করেন জাফরুল্লাহ।

তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িক হামলা হয়েছে- তা সরকারের প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক ব্যর্থতা। এই ধরনের ঘটনা আর ঘটতে দেওয়া যাবে না। এই ঘটনা ঘটার অন্যতম আরেকটি কারণ আমরা নৈতিকতা ধারণ করিনি।

সমাবেশে নৈতিক সমাজের সংগঠক মেজর জেনারেল (অব.) আমসা আমিন বলেন, এই সাম্প্রদায়িক হামলা পাগলদের দিয়ে চালানো হয়েছে ঠিক, কিন্তু যারা এর পেছনে আছে তারা পাগল নয়।

যারা এর পেছনে আছে তারা সাম্প্রদায়িকতাকে ক্যাপিটাল হিসেবে ব্যবহার করে স্বাধীন সার্বভৌমত্ব রাষ্ট্রকে অস্থিতিশীল করতে চায়। রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে চায়।

 

 

 

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

শ্বশুরবাড়িতে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে জামাইয়ের মৃত্যু 

 

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার রামগোপালপুর ইউনিয়নের বিশ্বনাথপুরে শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে গিয়ে মতিউর রহমান মতি নামে এক ব্যক্তি বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মারা গেছেন।

বুধবার এ ঘটনা ঘটে। মৃত মতিউর অচিন্তপুর ইউনিয়নের খালিজুড়ী গ্রামের মো. আইয়ুব আলীর পুত্র।

পরিবার ও পুলিশ সূত্র জানায়, মতি ২০১৪ সালে একই উপজেলার রামগোপালপুর ইউনিয়নের বিশ্বনাথপুরে মো. দুলাল মিয়ার কন্যা শারমিন আক্তারকে বিয়ে করেন।

দাম্পত্য জীবনে দুই পুত্রসন্তান রয়েছে। বড় ছেলে আজমাইন হোসেন ও ছোট ছেলে আরমান হোসেন।

শারমিন আক্তার জানান, তার স্বামী সকালে ঘরের ফ্যান মেরামত করতে গিয়ে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে আহত হন। তাকে গৌরীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসা হয়।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসক ডা. মনিকা সরকার জানান, বিদ্যুৎপৃষ্ট রোগীটি হাসপাতালে নিয়ে আসার অনেক আগেই মারা গেছেন।

গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ খান আব্দুল হালিম সিদ্দিকী জানান, এ ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

 

Edited By: Kanij Fatema

 

 

সব কোচিং সেন্টার বন্ধ, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

 

আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে মোট ৩ হাজার ৬৭৯টি কেন্দ্রে এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে ২২ লাখ ২৭ হাজার ১১৩ শিক্ষার্থী।

এ কারণে আগামী ৮ থেকে ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে সারা দেশে শুরু হচ্ছে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। পরীক্ষায় অংশ নেবে মোট ২২ লাখ ২৭ হাজার ১১৩ জন পরীক্ষার্থী।

সংবাদ সম্মেলনে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খানসহ সংশ্লিষ্ট র্কমকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

ভারতে ইলিশ রপ্তানির সময় বাড়ল

 

ভারতে ইলিশ রপ্তানির সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে। আগামী ৫ নভেম্বর পর্যন্ত দেশটিতে ইলিশ রপ্তানি করা যাবে বলে জানিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

মঙ্গলবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের রফতানি-২ শাখার উপসচিব তানিয়া ইসলাম স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা দেওয়া হয়।

এরআগে গত ৪ অক্টোবর থেকে ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত দেশে ইলিশের প্রজনন রক্ষায় ইলিশ শিকার, পরিবহণ ও বিক্রয় বন্ধের নির্দেশনা দেওয়া হয়। এসময় বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ ছিল।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, দুর্গাপূজা উপলক্ষে ভারতে ৪০ মেট্রিক টন করে মোট ১১৫টি প্রতিষ্ঠানকে ইলিশ রফতানির অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

কিন্তু ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে দেশে ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহণ, মজুত, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় নিষিদ্ধ থাকায় নির্ধারিত সময়ের মধ্যে উক্ত প্রতিষ্ঠানগুলো অনুমোদনকৃত ইলিশ রফতানি কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারেনি।

 

 

 

হীরায় মোড়ানো গাড়ি ব্যবহার করেন সৌদি যুবরাজ 

 

সৌদি আরবের যুবরাজ আল-ওয়ালিদ। বিলাসবহুল জীবনযাপনের জন্য সারা বিশ্বে জনপ্রিয় তিনি।

ওয়ালিদ একজন ব্যবসায়ী এবং বিনিয়োগকারীও। অন্তত ২০০টি বহুমূল্য গাড়ি রয়েছে তার। তালিকায় রয়েছে হীরা খচিত একটি গাড়িও। এমন কথা প্রচলিত রয়েছে গাড়িটিকে ছুঁয়ে দেখতে গেলেই নাকি গুনতে হবে লাখ টাকা।

সেটি আসলে একটি মার্সিডিজ গাড়ি। কিন্তু গাড়িটি আগাগোড়া হীরা দিয়ে মোড়া। এসএল৬০০ মডেলের গাড়িটির দাম ৪৮ লাখ ডলার বা ৩৬ কোটি ২৪ লাখ টাকা।

আল-ওয়ালিদ অত্যন্ত বিলাসবহুল জীবনযাপন করেন। শুধুমাত্র সৌদি আরবেই তিনটি প্রাসাদ রয়েছে তার। তবে মধ্য রিয়াদের প্রাসাদেই বেশির ভাগ সময় কাটান তিনি। ওই প্রাসাদে রয়েছে অন্তত ৩১৭টি ঘর।

এই বিশাল প্রাসাদ বানাতে খরচ হয়েছিল ১৩ কোটি ডলার। অন্য দেশে ভ্রমণ করতে গেলে ব্যক্তিগত বিমানেই যাতায়াত করেন ওয়ালিদ।

জানা গেছে, ১৩ জন বিশেষজ্ঞের চেষ্টায় গাড়িটিকে এমন হীরা দিয়ে সাজানো সম্ভব হয়েছিল। যার জন্য সময় লেগেছিল দুই সপ্তাহ। মার্সিডিজ এসএল৬০০ মডেলের গাড়িটির দাম ৪৮ লক্ষ ডলার।

২০০৭ সালে দুবাইয়ের একটি প্রদর্শনীতে মার্সিডিজের ৫০ তম জন্মদিন উপলক্ষে গাড়িটি দেখানো হয়েছিল। তার পরই সেটি কিনে নেন যুবরাজ ওয়ালিদ।

পুরোটাই হীরা দিয়ে মোড়া থাকায় আলো পড়লেই ঝলমল করে ওঠে ওই গাড়ি।

 

 

আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ হবে কেন 

 

ফেসবুক ব্যবহারের শর্তাবলি না মানলে আপনার অ্যাকাউন্ট বন্ধ হতে পারে।

যেমন ফেসবুকে ভুয়া নাম ব্যবহার করলে, অন্য কারও পরিচয়ে অ্যাকাউন্ট খুললে, অবৈধ কিছু পোস্ট করলে, কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড লঙ্ঘন করলে, কিংবা কাউকে হয়রানি করলে বন্ধ হতে পারে আপনার অ্যাকাউন্ট।

সেটা ২৮ তারিখেও হতে পারে, যদি ফেসবুক সেদিন আপনার অ্যাকাউন্টে ত্রুটি খুঁজে পায়।

তবে এখন পর্যন্ত সে তালিকার কোথাও বলা নেই, ফেসবুক প্রটেক্ট সচল না করলে ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্ট সাময়িক অথবা স্থায়ীভাবে বন্ধ কিংবা নিষ্ক্রিয় করে দেওয়া হবে।

সবচেয়ে বড় কথা প্রটেক্ট নামের নিরাপত্তা সুবিধাটি সবার জন্য না। নির্দিষ্ট শ্রেণিতে না পড়লে চাইলেও তা চালু করতে পারবেন না। চলুন দেখা যাক, সুবিধাটি আসলে কী এবং কাদের জন্য।

 

ফেসবুক প্রটেক্ট কী?

ফেসবুক ওয়েবসাইটে এ সম্পর্কে বলা হয়েছে, নির্বাচনে প্রার্থী, তাঁদের প্রচারণা কর্মী এবং নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম অ্যাকাউন্টগুলোর বাড়তি নিরাপত্তা প্রয়োজন।

নির্বাচনের সময় অ্যাকাউন্টগুলো বাড়তি ঝুঁকির মুখে থাকায় তাঁদের বাড়তি নিরাপত্তা দিতে ফেসবুক প্রটেক্ট নামের কর্মসূচি চালু করা হয় এবং সেটা ঐচ্ছিক।

নির্বাচনে প্রার্থী, তাঁদের প্রচারণা কর্মী এবং নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা ‘চাইলে’ তাঁদের অ্যাকাউন্ট এবং পেজে প্রটেক্ট নামের সুবিধাটি সচল করতে পারেন। বিশেষ করে হ্যাকিং থেকে সুরক্ষার জন্য সুবিধা কাজের।

 

ফেসবুক প্রটেক্ট চালু করলে কী হবে?

সুবিধাটি যাঁদের জন্য, তাঁরা যদি সচল করেন, তবে ফেসবুক তাঁদের অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা জোরদার করার জন্য নির্দেশনা দেবে। যেমন টু-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন চালু কিংবা হ্যাকিংয়ের চেষ্টা হচ্ছে কি না, তা নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করা।

পেজের ক্ষেত্রে সব অ্যাডমিনের পোস্ট পাবলিশ করার জন্য নতুন করে অনুমোদন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে।

যাঁরা ওই গুরুত্বপূর্ণ পেজগুলো ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে আছেন, তাঁদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট একটির বেশি থাকা চলবে না, অবশ্যই নিজের আসল নাম ব্যবহার করতে হবে এবং নিরাপত্তার জন্য টু-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন চালু করতে বলা হবে। পাশাপাশি যে দেশে অবস্থান করছেন, সেটাও নিশ্চিত করতে হবে।

 

কীভাবে সচল করবেন?

প্রটেক্ট সুবিধাটি ঐচ্ছিক। তবে নিরাপত্তার জন্য ভালো। যাঁরা প্রটেক্ট সচল করার নোটিফিকেশন পেয়েছেন, তাঁরা পর্দায় দেখানো নির্দেশনা মেনে সচল করতে পারেন।

আর যাঁরা সে নোটিফিকেশন পাননি, তাঁদের চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই। তবু চাইলে বাড়তি নিরাপত্তার জন্য সেটিংস থেকে সিকিউরিটি অ্যান্ড লগইনে গিয়ে টু-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন অপশন সচল করে নিতে পারেন। তবে কেবল এ নিয়ে বাড়তি চিন্তার কিছু নেই।

 

 

পাটুরিয়ায় ফেরিডুবির ঘটনায় তদন্ত কমিটি

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাটে ফেরিডুবির ঘটনায় চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আবদুল লতিফ এই তথ্য জানান।

ঘাটসংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সকাল দৌলতদিয়ার ৫ নম্বর ঘাট থেকে ১৭টি পণ্যবাহী গাড়ি নিয়ে পাটুরিয়ার উদ্দেশে রওনা হয় ফেরি আমানত শাহ।

এ সময় ফেরিতে ১২ থেকে ১৫টি মোটরসাইকেলে আরোহী ছিলেন। সকাল পৌনে ১০টায় পাটুরিয়ার ৫ নম্বর ঘাটে পন্টুনে আসার পর তিনটি গাড়ি ও কয়েকটি মোটরসাইকেল ফেরি থেকে নেমে যায়।

এ সময় ফেরিটিতে পানি ওঠায় তা কাত হয়ে অর্ধেক ডুবে যায়। এতে ১৪টি পণ্যবাহী গাড়িসহ কয়েকটি মোটরসাইকেল পদ্মা নদীতে পড়ে যায়।

এ সময় বেশ কয়েকজন গাড়িচালক ও মোটরসাইকেল আরোহী লাফিয়ে নদীতে পড়েন। পরে তাঁরা সাঁতরে তীরে ওঠেন। এ ঘটনার পর ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে।

দুপুর ১২টায় বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়।

বেলা একটায় উদ্ধারকারী জাহাজ দিয়ে একটি মোটরসাইকেল, এর কিছুক্ষণ পর একটি পণ্যবাহী ট্রাক নদী থেকে উদ্ধার করা হয়। এ ছাড়া নারায়ণগঞ্জ থেকে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় পাটুরিয়ার উদ্দেশে রওনা দিয়েছে।

মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আবদুল লতিফ বলেন, ঘটনা তদন্তে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়েছে।

ভারপ্রাপ্ত অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সানোয়ারুল হককে কমিটির প্রধান করা হয়েছে।

 

 

মুক্তি পাচ্ছে রোমানার সিনেমা 

 

মডেলিং থেকে টেলিভিশন নাটকে, এরপর এক সময় সিনেমায়ও নাম লিখিয়েছিলেন রোমানা খান। শেষ পর্যন্ত সবকিছু ছেড়ে দীর্ঘদিন ধরে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন তিনি।

সেখানেই সংসার করছেন। হয়েছেন সন্তানের মা। সেই রোমানাকেই আবারও দেখা যাবে সিনেমা হলের পর্দায়।

১০ বছর আগে এফ আই মানিকের পরিচালনায় ও ডিপজলের প্রযোজনায় এ দেশ তোমার আমার নামে একটি সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন রোমানা। সে সিনেমাটি আগামী ৫ নভেম্বর মুক্তি পাবে বলে জানা গেছে।

এ সিনেমায় আরও অভিনয় করেছেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল, পারভীন সুলতানা দিতি, মিজু আহমেদ, সোহেল রানা, জায়েদ খান, ডিজে সোহেল, আলী রাজ, রুমানা রাব্বানী, রোমানা নীড়, রাবিনা বৃষ্টি, আমান রেজা, আন্না, শাকিল রাজসহ অনেকে।

সিনেমাতে অভিনয় প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র থেকে রোমানা জানান, ঠিক মনে নেই আসলে কত বছর আগে এ সিনেমাতে অভিনয় করেছিলাম। তবে ১০ বছর তো হবেই।

তখন আমি নাটকে এবং সিনেমাতে সমানতালে কাজ করছিলাম। তাদের সঙ্গে কাজ করার স্মৃতি চোখে স্পষ্ট।

দর্শকের কাছে বিশেষ অনুরোধ থাকবে, এ দেশে তোমার আমার’ সিনেমাটি হলে গিয়ে যেন দেখেন। এটা দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হওয়ার সিনেমা।

জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না ছবিতে অভিনয়ের জন্য প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান এই অভিনেত্রী।

সর্বশেষ তিনি রহমতুল্লাহ তুহিনের নির্দেশনায় ২০১৪ সালে অভিনয় করেন যত দূরে যাবে বন্ধু নাটকে। এরপর তাকে আর সিনেমা কিংবা নাটকে অভিনয় করতে দেখা যায়নি।

২০১৫ সালে রুমানা খান যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ব্যবসায়ী এলিন রহমানকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকেই স্বামীর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন তিনি।

 

সৌদি খেজুর চাষে ঋণ দেবে ব্যাংক 

 

সৌদি খেজুরসহ নতুন চার ফসলে কৃষিঋণ দেওয়ার নির্দেশনা জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের কৃষিঋণ বিভাগ থেকে এসংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

 

দেশে কার্যরত সব তপশিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো ঐ প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ২০২১-২০২২ অর্থবছরের কৃষি-পল্লি ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচিতে বর্ণিত শস্য, ফসল, ফল-ফুল ইত্যাদির সঙ্গে সৌদি খেজুর, ভিয়েতনামি নারকেল, সুইট কর্ন ও কফি চাষ অন্তর্ভুক্ত হবে।

সৌদি খেজুর চাষে একরপ্রতি ১০ লাখ ৫ হাজার ৪০০ টাকা ঋণ পাবেন একজন কৃষক।

ভিয়েতনামি নারকেল উত্পাদনে একজন কৃষককে ৪ লাখ ২৯ হাজার টাকা ঋণ দেওয়া হবে।

সুইট কর্ন চাষে একরপ্রতি ৬৬ হাজার টাকা এবং কফি চাষ করার জন্য একরে সর্বোচ্চ ৩ লাখ ৮৪ হাজার টাকা ঋণ দেওয়া হবে প্রত্যেক কৃষককে।

প্রজ্ঞাপনে আরো বলা হয়, সৌদি খেজুর, ভিয়েতনামি নারকেল ও কফি চাষের জন্য সারা বছর ঋণ নিতে পারবেন কৃষক। তবে সুইট কর্নে ঋণ দেওয়া হবে ১৫ নভেম্বর থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

ঋণ পরিশোধের স্বাভাবিক সময়সীমা ফসল সংগ্রহের পর থেকেই শরু হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

উল্লেখ, ২০২১-২০২২ অর্থবছরে ২৮ হাজার ৩৯০ কোটি টাকা কৃষিঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

এর মধ্যে সরকারি খাতের ব্যাংক ১১ হাজার ৪৫ কোটি টাকা এবং বেসরকারি ও বিদেশি ব্যাংক ১৭ হাজার ৩৪৬ কোটি টাকা বিতরণ করবে।

গত অর্থবছরে ২৬ হাজার ২৯২ কোটি টাকার লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে বিতরণ করা হয়েছে ২৫ হাজার ৫১১ কোটি টাকা।

 

মাস্কের ২ শতাংশ সম্পদে মিটবে বিশ্ব খাদ্যসংকট 

 

বিশ্বের শীর্ষ ধনী টেসলার প্রতিষ্ঠাতা ইলন মাস্কের ২ শতাংশ সম্পদ দিয়েই বিশ্বের চলমান খাদ্যসংকট মেটানো সম্ভব।

এক সাক্ষাৎকারে জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডব্লিউএফপি) পরিচালক ডেভিড বিসলি এমন দাবি করেন।

তিনি বলেন, বিশ্বের শীর্ষ ধনীরা যদি তাদের সম্পদের সামান্য অংশ দান করেন, তাহলে বিশ্বের বহু মানুষের মুখে দুমুঠো খাবার জুটবে। এজন্য ধনীদের উচিরত এগিয়ে আসা।

তিনি আরও বলেন, ৪ কোটি ২০ লাখ মানুষ বিশ্বজুড়ে চরম খাদ্যসংকটে ভুগছে। তাদের বিপদ থেকে রক্ষায় ৬০০ কোটি মার্কিন ডলারের সাহায্য প্রয়োজন।

সম্প্রতি ১ লাখ কোটির মাইলফলক তিক্রম করেছে ইলন মাস্কের বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলা।

ব্লুমবার্গের এক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, টেসলার প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী ইলন মাস্কের সম্পদ বর্তমানে ২৮৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সমপরিমাণ। তিনি যদি তার সম্পদের মাত্র ২ শতাংশ দান করেন তাহলে মিটে যাবে চরম এই খাদ্যসংকট।

 

মাহির জন্মদিনে স্বামীর সারপ্রাইজ 

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা মাহিয়া মাহি। ১৯৯৩ সালের ২৭ অক্টোবর তিনি জন্মগ্রহণ করেন।

বুধবার ছিলো তার জন্মদিন। স্ত্রীর জন্মদিনের প্রথম প্রহরেই জমকালো আয়োজন করে তাকে সারপ্রাইজ দেন মাহির দ্বিতীয় স্বামী রাকিব।

রাত ১২টা বাজতেই স্বামী ও তার আত্নীয়দের সঙ্গে কেক কাটেন মাহি। মাহি তার ফেসবুক পেইজ থেকে লাইভে এসে জন্মদিনের প্রথম প্রহরের কেক কাটার মূহুর্ত শেয়ার করেন তার ভক্তদের সঙ্গে। মুহূর্তেই হয়ে যায় ভাইরাল।

২৮টি ফানুস ওড়ানো হয়। তার সঙ্গে ছিলো আতশবাজির ঝলকানি। সেই সঙ্গে স্ত্রীকে কোচুরি পানা-দোলনচাঁপা উপহার দেন রাকি।

আসলে, মাহি ২৮ বছর পেরিয়ে ২৯ বছরে পা দিলেন সেজন্য ২৮টি ফানুস ওড়ানো হয়। জন্মদিনে স্বামীর এমন আয়োজনে মুগ্ধ মাহি।

প্রথমপ্রহরের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অনেক অতিথি। রাজনীতিবিদ ও ব্যবসায়ী স্বামী, তার আমন্ত্রিত অতিথিই চোখে পড়লো।

ছিলেন আত্মীয় স্বজনরাও। নায়িকাকে দেখা গেলো এই আয়োজনটা উপভোগ করছেন। সহাস্য বদনে কেক কাটলেন, স্বামীসহ উপস্থিত প্রিয়জনদের কেক খাইয়ে দিলেন।

মাহির জন্ম রাজশাহীতে। তার আসল নাম শারমিন আক্তার নিপা। পড়াশোনা করেছেন ঢাকায়। ২০১২ সালে জাজ মাল্টিমিডিয়া প্রযোজিত ভালোবাসার রঙ সিনেমার মাধ্যমে আত্মপ্রকাশ করেন তিনি। এরপর অনেকগুলো আলোচিত সিনেমায় দেখা গেছে তাকে।

শিগগিরই মাহী শুরু করবেন বায়োস্কোপের প্রযোজনায় ড্রাইভার শিরোনামের একটি ওয়েব ফিল্মের কাজ। এটি পরিচালনা করছেন ইফতেখার চৌধুরী।

এতে মাহীর সঙ্গে থাকবেন মোশাররফ করিম ও আবদুন নূর সজল। ইফতেখার চৌধুরীর পরিচালনায় মাহী এর আগে ব্যবসাসফল চলচ্চিত্র অগ্নি ও অগ্নি-২ তে কাজ করছেন। হাতে থাকা কাজগুলো ছাড়াও মাহীর একাধিক চলচ্চিত্র মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে।

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বিয়ে করেছিলেন সিলেটের ব্যবসায়ী পারভেজ মাহমুদ অপুকে। তবে চলতি বছরের মে মাসে সেই সংসারে বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন মাহি।

গত ১৩ সেপ্টেম্বর গাজীপুরের ব্যবসায়ী রাকিব সরকারের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন এ নায়িকা।

 

আফগান অলরাউন্ডার নাবিকে হটিয়ে ফের শীর্ষে সাকিব 

 

চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অসাধারণ অলরাউন্ডিং পারফরম্যান্স দেখিয়ে চলেছেন সাকিব আল হাসান। প্রথম রাউন্ডে ওমান ও পাপুয়া নিউগিনির ম্যাচে ম্যাচসেরা হয়েছেন।

শ্রীলংকার বিপক্ষে তার ব্যাট সেভাবে না হাসলেও বল হাতে দুটি গুরুত্বপূর্ণ উইকেট শিকার করেছেন।

এবার আরো একটি পুরস্কার উঠল সাকিবের হাতে। আফগানিস্তানের অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নাবিকে হটিয়ে  টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের অলরাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়ে আবার শীর্ষে উঠে এসেছেন সাকিব।

বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সাকিবের শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল ।

এবারের বিশ্বকাপে সাবেক পাক অলরাউন্ডার শহিদ আফ্রিদির সঙ্গে যৌথভাবে শীর্ষে থেকে মাঠে নেমেছিলেন সাকিব। সুপার টুয়েলভ রাউন্ডের প্রথম ম্যাচেই আফ্রিদিকে ছাড়িয়ে যান তিনি।

শ্রীলংকা ইনিংসে জোড়া আঘাত হেনে এককভাবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ইতিহাসের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হন সাকিব।

ক্রিকেটের আধুকিতম সংস্করণের বিশ্ব আসরে ৩৪ ম্যাচ খেলে ২৩.২৫ গড়ে ৩৯ উইকেট নিয়েছেন আফ্রিদি।  পাঁচ ম্যাচ কম খেলেই ৪১ উইকেট নিয়েএ রেকর্ডের চূড়ায় উঠলেন।

 

 

শূন্য বয়স থেকেই এনআইডি দেবে সরকার

 

জাতীয় পরিচয়পত্র কার্যক্রম স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে এলে শূন্য বয়স থেকেই নাগরিকদের এনআইডি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

বর্তমানে ১৮ বছরের পর থেকে নাগরিকদের এনআইডি দিচ্ছে নির্বাচন কমিশন ।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম আয়োজিত এক সংলাপে অংশ নিয়ে তিনি একথা জানান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আগে যারা ভোটার তাদেরই কেবল এনআইডি দেওয়া হতো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শূন্য বয়স থেকে এনআইডি চালুর পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে সেই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

তবে এনআইডি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আসার কিছু আইনি জটিলতা দেখা দেওয়ায় ফাইল আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে জননিরাপত্তা বিভাগ এবং অপরটি সুরক্ষা ও সেবা বিভাগ। দুই বিভাগে ছোটবড় মিলিয়ে বেশ কয়েকটি অনুবিভাগ করা হয়েছে।

তার মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আরেকটি বিভাগ যুক্ত হয়েছে। সেটি হচ্ছে জাতীয় পরিচয়পত্র কার্যক্রম। পরিকল্পিতিভাবে সামনের দিকে এগোনো হচ্ছে। এতে আরও কিছুদিন সময় লাগবে।

নির্বাচন কমিশনের হাত থেকে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন কার্যক্রম চলে যাচ্ছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীন সুরক্ষা সেবা বিভাগের হাতে।

এজন্য জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন আইন, ২০১০ এ সংশোধনী আনার প্রয়োজন হবে। আইনে উল্লিখিত নির্বাচন কমিশন- এর স্থলে সরকার শব্দ অন্তর্ভুক্ত করার প্রয়োজন হবে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশনা বাস্তবায়ন হলে সেই কার্যক্রম স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের হাতে চলে যাবে। ভোটার তালিকা আইন, ২০০৯ অনুসারে নতুন ভোটার অন্তর্ভুক্তি বা মৃতদের নাম তালিকা দেওয়ার এখতিয়ার ইসির হাতেই থাকবে। যদিও নতুন ভোটার অন্তর্ভুক্তি ও জাতীয় পরিচয় সংক্রান্ত সেবা একই সার্ভার থেকে দিয়ে আসছে ইসি।

 

 

 

ভিকিকে বিয়ে করছেন ক্যাটরিনা 

 

বলিউড সেনসেশন ক্যাটরিনা কাইফ ও ভিকি কৌশলের প্রেমের গুঞ্জন বলিউডে বহুল চর্চিত বিষয়।

শোনা যাচ্ছে দীর্ঘ প্রেমের পর বিয়ে করতে যাচ্ছেন তারা। ডিসেম্বরেই নাকি রাজস্থানে তাদের বিয়ের অনুষ্ঠান।

১৮ আগস্ট ক্যাট ও ভিকির বাগদান হয়ে গেছে বলে তাদের নিকটজনরা দাবি করেছেন। কিন্তু ভিকি এসব তথ্যকে উড়িয়ে দিয়েছেন।

জানিয়েছেন শিগগিরই বিয়ে করবেন তিনি। ভিকি কাকে বিয়ে করবেন সেটি উল্লেখ না করায় ভিকি-ক্যাটের ভক্তরা ধরে নিয়েছেন এ দুজন গাঁটছড়া বাঁধতে চলেছেন।

গেল ১৮ আগস্ট গোপনে ভিকির সঙ্গে রোকা অনুষ্ঠান সেরেছেন ক্যাটরিনা। এবার ভারতের অন্যতম এ শীর্ষ সংবাদমাধ্যম জানাল, সম্পর্কের পরবর্তী ধাপে যাচ্ছেন ভিকি-ক্যাটরিনা।

শিগগিরই তারা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হচ্ছেন। বিয়ের প্রস্তুতিও নেওয়া শুরু করেছেন ক্যাট-ভিকি। তাদের বিয়ের পোশাক ডিজাইন করছেন সব্যসাচী।

তারা এখন কাপড় নির্বাচন করছেন। ক্যাটরিনার পছন্দ সিল্কের কাপড়, যা দিয়ে লেহেঙ্গা বানানো হবে। নভেম্বর-ডিসেম্বরের মধ্যে বিয়ে হবে।

তবে বুধবার বিনোদনভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বলিউড লাইফ বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করে দাবি করেছে, ক্যাটরিনা কাইফের ডিসেম্বরের বিয়ের খবরটি সত্য নয়।

পোর্টালটিকে ক্যাটরিনা কাইফ জানিয়েছেন, ওই খবর মিথ্যা এবং তিনি বিয়ে করছেন না। তা হলে এ নিয়ে এত মাতামাতি কেন- এমন প্রশ্নে ক্যাটরিনা বলেছেন, ১৫ বছর ধরে তিনি এ পরিস্থিতি মোকাবিলা করে আসছেন।

 

মাধ্যমিকে অংশ নেবে ২২ লাখ ২৭ হাজার শিক্ষার্থী 

 

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে ৯ মাস পিছিয়ে যাওয়া এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার অংশ নিচ্ছে ২২ লাখ ২৭ হাজার ১১৩ শিক্ষার্থী।

বুধবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এ তথ্য জানান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আগের ঘোষণা অনুযায়ী ১৪ নভেম্বর থেকে মোট ৩ হাজার ৬৭৯টি কেন্দ্রে এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে।

১৮ লাখ ৯৯৮ জন আট শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি, ৩ লাখ ১ হাজার ৮৮৭ জন মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে দাখিল এবং ১ লাখ ২৪ হাজার ২২৮ জন কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি ভোকেশনাল পরীক্ষার্থীয় বসবে।

মহামারি পরিস্থিতির কারণে এবার সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে কেবল তিনটি নৈর্বচনিক বিষয়গুলোর পরীক্ষা নেওয়া হবে।

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি আগেই জানিয়েছিলেন, বাংলা, ইংরেজির মতো আবশ্যিক বিষয়গুলোতে পরীক্ষা না নিয়ে আগের পাবলিক পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে মূল্যায়ন করা হবে।

 

 

সামরিক আদালতে প্রথম সাক্ষ্য দিলেন সু চি 

 

সেনাবাহিনীর অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত ও গৃহবন্দি মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী অং সান সু চি জান্তা আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। প্রথম সাক্ষ্যে তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি।

মঙ্গলবার মিয়ানমারের রাজধানী নেইপিদোতে জান্তা গঠিত বিশেষ আদালতে সাক্ষ্য দেন সু চি। গত জুন থেকে নেইপিদোর বিশেষ সামরিক আদালতে এসব মামলার বিচার কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে তার আইনজীবী দলের এক সদস্য বলেন, সু চি খুব ভালোভাবেই নির্দোষ প্রমাণ করতে পেরেছেন। আইনজীবী এর বাইরে কোনো তথ্য দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।

কারণ মামলার শুনানির বিষয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

আগামী সপ্তাহে আদালত এই মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ বিষয়ক বিবরণী লিখিত আকারে প্রকাশ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

কোন মামলায় তিনি সাক্ষ্য দিয়েছেন, তা আদালত লিখিত আকারে প্রকাশের আগ পর্যন্ত জানা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছে সূত্র।

সু চির বিরুদ্ধে করোনার বিধিনিষেধ লংঘন, অবৈধভাবে ওয়াকিটকি আমদানি ও রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা রয়েছে।

বিচারে সেনা সরকারের পক্ষে রায় এলে তাকে আমৃত্যু কারাগারে থাকতে হতে পারে। গত ফেব্রুয়ারিতে গণতান্ত্রিক সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী।

এরপর থেকে গৃহবন্দি আছেন সাবেক সরকারি দলের নেতা সু চি। প্রত্যেকটি অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার সর্বোচ্চ ১৫ বছর করে কারাদণ্ড হতে পারে।

 

 

আরিয়ানকে নিয়ে পূজা দাদলানির পোস্ট ভাইরাল 

 

বলিউড সুপারস্টার শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খানকে নিয়ে শাহরুখের ম্যানেজার পূজা দাদলানির একটি পুরনো পোস্ট ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

২০১৯ সালে আরিয়ানের জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়ে ওই পোস্টটি করেছিলেন পূজা দাদলানি।

বুধবার আরিয়ানের জামিন আবেদনের শুনানি চলছে মুম্বাই হাইকোর্টে। এ সময় পূজা খান পরিবারের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করে পুরনো ওই পোস্টটি নতুন করে রিপোস্ট করলে মুহুর্তে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

ভাইরাল হওয়া পোস্টটিতে পূজা লিখেছিলেন- জন্মদিনে আরিয়ানের জন্য অনেক শুভেচ্ছা। সে খুবই হৃদয়বান, কোমল হৃদয়ের এবং স্পর্শকাতর একটি ছেলে।

২০১২ সাল থেকে শাহরুখের সঙ্গে কাজ করছেন পূজা। খান পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে খুবই ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে উঠেছে তার।

গত ২ অক্টোবর মুম্বাই থেকে গোয়াগামী প্রমোদতরী থেকে আটক করা হয়েছিল আরিয়ানকে। তার পর ৩ তারিখ তাকে গ্রেফতার দেখায় নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো।

নিম্ন আদালতে দুবার তার জামিনের আবেদন খারিজ হয়ে যায়। যুক্তি হিসেবে বলা হয়- জামিনে ছাড়া পেলে আরিয়ান তার বিরুদ্ধে যাবতীয় তথ্য ও প্রমাণ লোপাটের চেষ্টা করতে পারে।

আরিয়ানের জন্য তৃতীয়বারের মতো মঙ্গলবার জামিন আবেদন করা হয় মুম্বাই হাইকোর্টে। বুধবার বিকালে রায় হওয়ার কথা রয়েছে।

 

 

 

রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী

রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী

রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী রাজশাহী

 

কুমিল্লার ঘটনায় সরকারকে দায়ী করে যা বললেন ফখরুল

সব কোচিং সেন্টার বন্ধ, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

শ্বশুরবাড়িতে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে জামাইয়ের মৃত্যু

ভারতে ইলিশ রপ্তানির সময় বাড়ল

হীরায় মোড়ানো গাড়ি ব্যবহার করেন সৌদি যুবরাজ

চিকেন থাই স্যুপ

উড্ডয়নের ২২ মিনিট পরই ফিরে আসে বিমানট্রাকের

জামিন পেলেন শাহরুখপুত্র আরিয়ান

বাঁধনের জন্মদিন উদযাপন বলিউডে

সুদানে অভ্যুত্থান, সাহায্য বন্ধ

নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল 

নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল 

নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল 

নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল 

নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল 

নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল 

নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল নাজমুল নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল  নাজমুল 

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.