ওলামা লীগের ১০ দফা দাবি

বুড়িগঙ্গার তীর ঘেঁষে ৭৭টি মসজিদ ভাঙাকে বাবরী মসজিদ ভাঙার মতো ষড়যন্ত্র এবং ভ্যালেন্টাইন ডে পালনকে শফিক রেহমান চর্চা বলে নিষিদ্ধসহ ১০ দাবিতে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগ।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন থেকে এ দাবি জানান তারা।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘শফিক রেহমান প্রবর্তিত ‘ভ্যালেন্টাইন ডে’ পালনে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে হবে। পাতলা পোশাক, বেহায়া সাজগোজ এবং সব বিজাতীয় আচার, অনুষ্ঠান ও কর্মকাণ্ড নিষিদ্ধ করতে হবে। প্রকাশ্যে চুমু খাওয়ার ব্যভিচার কঠোর হস্তে বন্ধ করতে হবে। ভালোবাসা দিবসের নামে বাণিজ্য ও মিডিয়ার প্রচারণা বন্ধ করে শফিক রেহমান চর্চা বন্ধ করতে হবে।’ 

ঢাকার ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনার ঘোষণায় নবনির্বাচিত মেয়রদ্বয়কে অভিনন্দন জানিয়ে তারা বলেন, ‘সঙ্গতকারণেই নবনির্বাচিত মেয়রদ্বয়কে ‘মসজিদের শহর ঢাকা’ এ ঐতিহ্য পূনরায় ফিরিয়ে আনতে হবে। এক্ষেত্রে ২ কোটি মানুষের শহর ঢাকায় অনতিবিলম্বে হাজার হাজার মসজিদ তৈরী করতে হবে। কথিত সৌন্দর্য বর্ধন তথা উন্নয়নের নামে ঢাকার চারপাশে নদীকেন্দ্রীক ৭৭ টি মহাসম্মানিত মসজিদসহ ভাঙ্গা চলবেনা। প্রয়োজনে রাস্তা ঘুরিয়ে নিতে হবে। ইদানিং অনেক দেশে সমুদ্রবুকে মসজিদ হচ্ছে। সমুদ্রে মসজিদ থাকলে নদীতে থাকবেনা কেন? হিন্দুদের মন্দির অক্ষত রাখা ও মহাসম্মানিত মসজিদ ভাঙা বৈষম্য; যা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও সংবিধান লঙ্ঘনের শামিল।’ 

বক্তারা বলেন, ‘কথিত সৌন্দর্য বর্ধন তথা উন্নয়নের নামে শ্যামপুরের মসজিদে নূর, সূত্রাপুরের উল্টিগঞ্জ জামে মসজিদ, শ্যামবাজার জামে মসজিদ, বাইতুন নাজাত জামে মসজিদ, বাদামতলীর নবাববাড়ী ঘাট বায়তুস সালাম জামে মসজিদ, আগারগাঁওয়ে মসজিদে আবেদীনসহ ঢাকার চারপাশে নদীকেন্দ্রীক ৭৭টি মহাসম্মানিত মসজিদসহ সমগ্রদেশে আরো অনেক মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র মসজিদ যা মহান আল্লাহ পাক উনার ঘর এবং কিছু মাদরাসাসমূহ ভেঙে দেয়ার চরম ইসলামবিরোধী কথা নৌ-পরিবহন সচিব বলেছে। কিন্তু নৌ-পরিবহন মন্ত্রী বলেনি। আমরা মনে করি- নৌ-পরিবহন সচিবের এসব কথা নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে। জামায়াত-হেফাজত, বিএনপি ইস্যু নেবে।’

পবিত্র রমজানে মাসব্যাপী ছুটি দেয়ার দাবি জানিয়ে তারা আরও বলেন, ‘পবিত্র রমাদ্বান শরীফ মাস আসলে মানবিক দিক বিবেচনা করে বাংলাদেশে সরকারী চাকুরীর সময়সূচিও সংক্ষিপ্ত করা হয়, অথচ ওই একই সময় পরীক্ষার নাম করে তুলনামূলক অধিক পরিশ্রম ছাত্র ও শিক্ষকদের ওপর চাপিয়ে দেয়া হয়। উল্লেখ্য মে’ মাসের দিকে বাংলাদেশে প্রচ- গরম থাকার সম্ভবনা আছে। গরমের মধ্যে রোজা রাখা এমনিতেই কষ্ট, এর মধ্যে তুলনামূলক অধিক পরিশ্রমের পরীক্ষা চাপিয়ে দেয়া সত্যিই অমানবিক। তাছাড়া, বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী প্রত্যেক নাগরিককে তার ধর্ম পালন করতে দেয়া তার মৌলিক অধিকার। কিন্তু রোজা ও গরমকালে তার উপর শিক্ষক ও ছাত্রদের উপর পরীক্ষা চাপিয়ে দিলে একটা বড় অংশ রোজা রাখাতে সমর্থ হবে না। তাই পবিত্র রমাদ্বান শরীফ মাসে অবশ্যই সকল ধরনের পরীক্ষা বন্ধ করতে হবে এবং মাসব্যাপী ছুটি দিতে হবে।’

আওয়ামী ওলামা লীগের নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘রাসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ব্যাঙ্গচিত্র প্রতিযোগিতার ঘোষণা দেয়ায় নেদারল্যান্ডের কুখ্যাত এমপি গিয়ার্ট উইল্ডার্সের ফাঁসি দিতে হবে। সৌন্দর্য বর্ধন তথা উন্নয়নের নামে’ ৭৭টি মসজিদ ভাঙার সিদ্ধান্ত বাতিলের করতে হবে।’

সমাবেশ ও মানবন্ধনে সমন্বয় করেন, বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগের সভাপতি- আলহাজ্জ মাওলানা মুহম্মদ আখতার হুসাইন বুখারী,সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্জ কাজী মাওলানা মুহম্মদ আবুল হাসান শেখ শরীয়তপুরী, সম্মিলিত ইসলামী গবেষণা পরিষদের সভাপতি- আলহাজ্জ হাফেজ মাওলানা মুহম্মদ আব্দুস সাত্তার,দফতর সম্পাদক মাওলানা মুহম্মদ শওকত আলী শেখ ছিলিমপুরী প্রমুখ।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.