মুজিববর্ষে প্রবীণ আ.লীগ নেতাদের সংবর্ধনা: কাদের

মুজিববর্ষে জেলা পর্যায় থেকে প্রবীণ আওয়ামী লীগের নেতাদের ঢাকায় এনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ সংবর্ধনা দেবে বলে জানিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সোমবার (১৬ মার্চ) ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির সম্পাদকমণ্ডলীর মুলতবি সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘যতোদিন বাংলাদেশের পতাকা রয়েছে, ততোদিন বঙ্গবন্ধুর মৃত্যু নেই, শেখ হাসিনার মৃত্যু নেই। বঙ্গবন্ধু অমর হয়ে থাকবেন স্বাধীনতা সংগ্রামে নেতৃত্ব দেয়ার কারণে, আর শেখ হাসিনা অমর হবেন জনগণের মুক্তি সংগ্রামের আপসহীন নেত্রী হিসেবে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা আমাদের কর্মসূচি জানিয়েছি। এ কর্মসূচি চলবে বছরজুড়ে। মুজিববর্ষে আমাদের পার্টির নিজস্ব কিছু অনুষ্ঠান রয়েছে। আবার জাতীয় উদযাপন কমিটিরও অনুষ্ঠান রয়েছে। তাদের সঙ্গে আমরা সমন্বয় করে কাজ করবো। জেলাগুলো থেকে প্রবীণতম আওয়ামী লীগ নেতাদের ঢাকায় এনে তাদের সংবর্ধনা দেবো।’

কাদের বলেন, ‘মুজিববর্ষ উপলক্ষে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে স্মরণিকা প্রকাশ করা হবে। এছাড়া আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ‘মুজিববর্ষে কেউ গৃহহীন থাকবে না’ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে। মুজিববর্ষে আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে আমাদের পার্টিকে আরও স্মার্টার, আধুনিক এবং সুশৃঙ্খল করে গড়ে তুলবো।’  

মুজিববর্ষ প্রসঙ্গে দলটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সাংগঠনিক এ নেতা বলেন, ‘জাতির পিতার শততম জন্মবার্ষিকী’ বাঙালি জাতির ইতিহাসে এক অনন্য মাইলফলক স্পর্শকারী ও অভাবনীয় ঘটনা।  আজ বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্যকন্যা, বাঙালির আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রত্যয় ও প্রত্যাশার বিশ্বস্ত ঠিকানা দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ। মুজিববর্ষের এ দিনটিতে বিশ্বজুড়ে বাঙালি জাতির কাছে এক নবজাগরণের বারতা নিয়ে বঙ্গবন্ধু যেন ফিরে এসেছেন তার প্রিয় স্বাধীন বাংলাদেশে।’

আগামীকাল রাত ৮টায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মক্ষণ উপলক্ষে সারা দেশে একযোগে আতশবাজি প্রদর্শনী ও ফানুস উত্তোলন করা হবে বলেও জানান আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর করিব নানক, যু্গ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, মির্জা আজম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ, দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী প্রমুখ।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.