মুজিব বর্ষে খালেদা জিয়া কী অবদান রাখবেন: ফখরুলকে হাসান

‘খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে মুজিব বর্ষ পালন, এটা মানুষের কাছে কতটুকু পৌঁছাবে’- বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন প্রশ্নের জবাবে পাল্টা প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। মির্জা ফখরুলের প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেছেন, ‘বেগম জিয়া মুজিব বর্ষে কী অবদান রাখতে পারবেন? তিনি তো ১৫ আগস্টের দিন কেক কেটে মিথ্যা জন্মদিন পালন করেন।’

রবিবার (১২ জানুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবে দৈনিক স্বদেশ প্রতিদিন-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ প্রশ্ন রাখেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘গত দুই দিনই মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেব একই প্রশ্ন রেখেছেন- ‘বেগম খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে মুজিব বর্ষ পালন, এটি মানুষের কাছে কতটুকু পৌঁছাবে?’ আমি সবিনয়ে ফখরুল সাহেবের কাছে প্রশ্ন রাখতে চাই, বেগম খালেদা জিয়া যিনি ১৫ আগস্টের দিন বঙ্গবন্ধুর সপরিবারে হত্যার দিন ‘মিথ্যা জন্মদিন’ পালন করে কেক কাটেন, তিনি মুজিব বর্ষে কী অবদান রাখতে পারবেন? তাঁকে জেল থেকে মুক্তি দেয়ার উদ্দেশ্য কী, তিনি কি আবারও ১৫ আগস্ট কেক কাটার সুযোগ চান?’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি নেতাদের বক্তব্য শুনে মনে হচ্ছে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ডাক্তাররা ডাক্তার নয়। বরং বিএনপির নেতারাই (মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, মওদুদ আহমেদ, খন্দকার মোশাররফ হোসেন) বড় ডাক্তার। কারণ উনারা বলছেন, বেগম জিয়ার অসুস্থতা নাকি গোপন করা হচ্ছে। আসলে বেগম জিয়ার স্বাভাবিক অসুস্থতাকে ফুলিয়ে-ফাঁপিয়ে দেখিয়ে তাঁকে খাটো করা হচ্ছে মানুষের সামনে। এ পথ অনুসরণ না করার জন্য বিএনপিকে অনুরোধ করবো।’

খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে বিএনপি ‘অপরাজনীতি’ করছে মন্তব্য করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে বিএনপি সবসময় অপরাজনীতিতে ব্যস্ত। খালেদা জিয়ার অসুস্থতা বহু বছরের পুরনো। এ সমস্যা নিয়ে তিনি দু’বার প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন, দু’বার বিরোধীদলীয় নেত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন এবং বিএনপির মতো একটি দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন। বেগম খালেদা জিয়া যতটুকু অসুস্থ তারচেয়ে বেশি অসুস্থতা দেখিয়ে বিএনপি মানুষকে বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টা করছে, এতে আমি মনে করি বেগম জিয়াকে মানুষের সামনে খাটো করছে বিএনপি।’ 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, সংসদ সদস্য আকবর হোসেন পাঠান, পত্রিকাটির সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি মো. ওয়াকিল উদ্দিন, সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রতন এবং স্বদেশ প্রপার্টিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.