সকালে খালেদা জিয়াকে স্থায়ী জামিন, দুপুরেই প্রত্যাহার

Image result for সকালে খালেদা জিয়াকে স্থায়ী জামিন, দুপুরেই প্রত্যাহার

মানহানির অভিযোগে নড়াইলে দায়ের করা এক মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সকালে স্থায়ী জামিন দিলেও বিকেলে তা প্রত্যাহার (রিকল) করে নিয়েছেন হাইকোর্ট। এই জামিন বিষয়ে পুনরায় চূড়ান্ত রুল শুনানির জন্য অবকাশের এক সপ্তাহ পর নির্ধারণ করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে বিচারপতি আবু জাফর সিদ্দিকী ও বিচারপতি এ এস এম আব্দুল মোবিনের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

খালেদা জিয়ার জামিনাদেশ প্রত্যাহারের বিষয়টি ব্রেকিংনিউজকে নিশ্চিত করেছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী কায়সার কামাল।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সামিরা তারান্নুম রাবেয়া। অপরদিকে খালেদার পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট কামারুজ্জামান।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সামিরা তারান্নুম রাবেয়া সাংবাদিকদের বলেন, ‘আদালত প্রথমে খালেদা জিয়াকে স্থায়ী জামিন দিয়েছিলেন। তখন আমরা উপস্থিত ছিলাম না। পরে আমরা আদালতকে বলি, এই মামলায় খালেদা জিয়া ২০২১ সালের জানুয়ারি মাস জামিনে আছেন। রাষ্ট্রপক্ষের কাছে এই মামলার নথি নেই। আমরা রুল শুনানি করতে চাই। তখন আদালত আমাদের আবেদন মঞ্জুর করে আদেশ প্রত্যাহার করে পুনরায় রুল শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন। অবকাশকালীন ছুটির শেষ হলে তার এক পর রুল শুনানি হবে।’

২০১৮ সালের ১৩ আগস্ট তিনবারের সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে এ মামলায় অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দিয়ে রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট। 

মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে মন্তব্য করায় মানহানির অভিযোগে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ২০১৫ সালের ২৪ ডিসেম্বর নড়াইল সদর আমলি আদালতে মামলাটি করেন জেলার নড়াগাতী থানার চাপাইল গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান রায়হান ফারুকী ইমাম।

পরে ২০১৮ সালের ৫ আগস্ট এ মামলায় নড়াইলের আদালতে খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর হয়। এরপর ওই মামলায় জামিন চেয়ে খালেদা জিয়া একই বছরের ৯ আগস্ট হাইকোর্টে আবেদন করেছিলেন।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.