চবিতে ছাত্রী লাঞ্ছনার দায়ে শিক্ষার্থী বহিষ্কার

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের এক ছাত্রীকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছনার দায়ে যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী প্রবীর ঘোষকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

রবিবার (০৮ মার্চ) দুপুরে চবি উপাচার্য তার নির্বাহী ক্ষমতাবলে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করেন। তবে বহিষ্কারাদেশ গত ১ মার্চ থেকে চলমান থাকবে। 

বহিষ্কারাদেশে উল্লেখ করা হয়, বহিষ্কারের তারিখ থেকে তার ভর্তি বাতিল হবে এবং শ্রেণিকক্ষে পাঠ গ্রহণ ও পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে না। এছাড়া বহিষ্কৃত শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ে ও আবাসিক হলে অবস্থান করতে পারবে না। কোনও বহিষ্কৃত শিক্ষার্থী এ আদেশ অমান্য করলে তাকে গ্রেফতার ও তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে ক্ষমতা প্রদান করা হয়েছে। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এস এম মনিরুল হাসান বলেন, ‘আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের এক শিক্ষার্থীকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছনা করা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপত্তিকর মন্তব্য করায় যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী প্রবীর ঘোষকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।’ 

প্রসঙ্গত, গত ১ মার্চ রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাটা পাহাড় সড়কে এক মেয়ে শিক্ষার্থীর মুখে রং মেখে দিয়ে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে প্রবীর। পরে ভুক্তভোগীর সহপাঠীরা তাকে ধরে প্রক্টরিয়াল বডির নিকট হস্তান্তর করলে তাৎক্ষণিক ভ্রাম্যমাণ আদালতে পাঠানো হয়। পরে রাত ১০টার দিকে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমীন পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়। পরে সে জামিনে বেরিয়ে আসে।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.