রেইনকোট পড়ে চিকিৎসা দিচ্ছেন ডাক্তাররা

নিউজ ডেস্ক : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সরকারিভাবে ২৫ দিনেও পারসোনাল প্রোটেক্টিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই) সরবরাহ না করায় নিজের সুরক্ষার জন্য বাজার থেকে রেইনকোট সংগ্রহ করে ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালন করছেন ডাক্তাররা।

করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষাপটে মঙ্গলবার কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত ডাক্তারদের রেইনকোট পড়ে রোগীদের চিকিৎসাসেবা দিতে দেখা যায়। অপরদিকে নার্সরা তাদের নিয়মিত পোশাকে কোনোরকম সুরক্ষা ড্রেস ছাড়াই দায়িত্ব পালন করছেন।

সূত্র জানায়, সরকারি নির্দেশে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য পুরাতন ভবনের মহিলা কেবিনে আইসোলেশন কক্ষ তৈরি করে ২০টি বেড প্রস্তুত করা হয়েছে। কিন্তু চিকিৎসা প্রদানের জন্য এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত করার কোনো কিট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেনি। একই সঙ্গে এখনো হাসপাতালের ডাক্তার, নার্স ও অন্যান্য স্টাফদের কোনো পিপিই সরকারিভাবে সরবরাহ করা হয়নি।

হাসপাতালের ডাক্তার ও নার্সদের পর্যাপ্ত সুরক্ষা ব্যবস্থা না থাকায় সাধারণ জ্বর-সর্দি-কাশি রোগী এলে ডাক্তার ও নার্সরা আতঙ্কের মধ্যে চিকিৎসা প্রদান করতেন। এমন অবস্থায় সরকারের সুরক্ষা ড্রেসের জন্য অপেক্ষা না করে সোমবার কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত ৮জন ডাক্তার নিজ খরচে স্থানীয় বাজার হতে রেইনকোট কিনেছেন।

এ বিষয়ে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহবুবুল আলম ভূঁইয়া বলেন, আসলে সরকারের সুরক্ষা ড্রেস এখনো আসেনি। তাই আমাদের নিরাপত্তার জন্য নিজেরাই রেইনকোট ক্রয় করে চিকিৎসা প্রদান করছি।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.