হাজীগঞ্জ সংঘর্ষের ঘটনায় আরও একজনের মৃত্যু

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলায় সংঘর্ষের ঘটনায় আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এ ঘটনায় পাঁচজনের মৃত্যু হলো। মারা যাওয়া ব্যক্তির নাম সাগর।

মঙ্গলবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে তার মৃত্যু হয়।

সাগরের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার ইব্রাহিমপুর গ্রামের খন্দকার এলাকার বাসিন্দা। তিনি থাকতেন হাজীগঞ্জ বাজারের ডিগ্রি কলেজ রোডসংলগ্ন এলাকায়। সাগর পেশায় ট্রাকচালক।

এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাজীগঞ্জ থানার ওসি হারুনুর রশীদ।

তিনি জানান, সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় চার মামলায় দুই হাজার ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে, পুলিশ আটক করেছে ১৫ জনকে।

সাগরের বাবা মো. মোবারক হোসেন জানান, গত ১৪ অক্টোবর রাতে হাজীগঞ্জ বাজারে হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় তার ছেলে গুলিবিদ্ধ হন। পরে তাকে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়।

অবস্থার অবনতি হলে তাকে কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হলে মঙ্গলবার সকালে সাড়ে ৭টায় তার মৃত্যু হয়।

সাগরের মা আমেনা বেগম যুগান্তরকে বলেন, পাঁচ সন্তানের মধ্যে সাগর সবার ছোট। সাগর হাজীগঞ্জ উপজেলার বড়কুল ইউনিয়নের নোয়াদ্দা সুমন মাঝির মেয়েকে বিয়ে করেন। তার এক কন্যাসন্তান রয়েছে।

এর আগে এ ঘটনায় নিহতরা হলেন- হাজীগঞ্জ উপজেলার রায়চোঁ গ্রামের আল আমিন, হোটেল শ্রমিক চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাবলু ও পথচারী শিশু রান্ধুনীমুড়া গ্রামের ফজলুর ছেলে হৃদয় ।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.