১৮ মাস পর খুললো নিউ ইয়র্কের বিখ্যাত ব্রডওয়ে থিয়েটার

করোনার ধাক্কা সামলে টানা ১৮ মাস পর আবার খুললো নিউ ইয়র্কের ব্রডওয়ে থিয়েটার ম্যাজেস্টিক। গান, বাজনা এবং মানুষের উচ্ছাসে ফের একবার মুখরিত হবে এই থিয়েটার।

২০২০ সালে করোনার থাবা সারা বিশ্বের উপরই পড়েছিল। করোনা মহামারীতে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই বন্ধ হয়ে যায় স্কুল, কলেজ, অফিস, রেস্তোরাঁ, সিনেমা হল ও থিয়েটার।

যেখানে একসঙ্গে অনেক মানুষ ভিড় করে, সেই স্থানগুলো আগে বন্ধ করে দেওয়া হয়। ফলে বন্ধ হয়ে যায় নিউ ইয়র্কের টাইম স্কোয়ারে অবস্থিত ব্রডওয়ে থিয়েটার।

এখন আগের তুলনায় অনেকটাই কমেছে সংক্রমণ। তাই নতুন করে আরেকবার ব্রডওয়ে থিয়েটারে মঞ্চস্থ হবে দ্য ফ্যান্টম অফ দ্য অপেরা।

ব্রডওয়ে থিয়েটারের খুলে যাওয়ায় থিয়েটারের কর্মী থেকে শুরু করে নাটকের সদস্য, খুশি সকলেই। এই থিয়েটারে অন্যতম বিখ্যাত নাটক হল ফ্যান্টম।

ব্রডওয়ে থিয়েটারে সব থেকে দীর্ঘ দিন ধরে চলা নাটক ফ্যান্টমের অভিনেত্রী মেগান পিসর্ন জানান, মহামারীর কারণে থিয়েটার বন্ধ হয়ে যেতে প্রায় ১৮ মাস ধরে ঘরে বসে রয়েছেন তিনি।

তার এই কাজ নিয়েও তাকে যথেষ্ট সমস্যায় পড়তে হয়েছিল। যার কারণ হিসাবে অভিনেত্রী মেগান জানান, নাটকের মধ্যে নিজের দুই সহ অভিনেতার সঙ্গে চুম্বনের দৃশ্য থাকতো তার। কিন্তু করোনার কারণে এই ধরণের দৃশ্যের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছিল।

কিন্তু নাটকের অংশ হিসাবে প্রত্যেকটি দৃশ্যই জরুরি। নাটকের সময় মাস্ক ছাড়া অভিনয় করতে হত এবং একে অপরের থেকে দূরত্ব বজায় রাখা, সেটাও সম্ভব হত না। তাই সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে তাদের এই নাটক বন্ধ করে দিতে হয়।

ব্রডওয়ে থিয়েটার, নিউ ইয়র্ক পর্যটনের একটি অন্যতম অংশ। কিন্তু নিউ ইয়র্ক সরকার এই থিয়েটারকে বন্ধ করে দেয়। থিয়েটারের বেশ কিছু কাস্ট ও ক্রু মেম্বর অসুস্থ হয়ে পড়েছিল।

যার ফলে ২০২০ সালের ১২ মার্চ বন্ধ হয়ে যায় এই থিয়েটার। এর মধ্যেই করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় ড্রেসার জেনিফার আরনল্ডর, যিনি ৩ দশকেরও বেশি সময় ধরে এই নাটক দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন

 

ব্রডওয়ে থিয়েটারে কাজ শুরু হলেও থিয়েটার কর্তৃপক্ষ বেশ কিছু বিধি নিষেধ আরোপ করেছে তার কর্মী এবং নাটক দলের জন্য।

যেখানে বলা হয়েছে নাটকের সঙ্গে যুক্ত কাস্ট ও ক্রু মেম্বরদের সকলকেই টিকা নিতে হবে। তার সঙ্গে সপ্তাহে অন্তত দু’বার করে সোয়াব টেস্ট করাতে হবে।

 

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.