৮ ডিসেম্বর নেত্রকোনা ট্র্যাজেডি দিবস

নেত্রকোনায় জেএমবির বোমা হামলায় নিহতদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা আর গণজাগরণের মাধ্যমে সন্ত্রাসী ও জঙ্গিবাদী কর্মকাণ্ড নির্মূলের দীপ্ত অঙ্গীকারের মধ্য দিয়ে বুধবার ট্র্যাজেডি দিবস পালিত হয়েছে।

নেত্রকোনা ট্র্যাজেডি দিবস উদযাপন কমিটির উদ্যোগে সকালে জেলা শহরের অজহর রোডস্থ উদীচী কার্যালয়ে কালো পতাকা উত্তোলন ও কালো ব্যাজ ধারণের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শুরু হয়।

 

পরে নিহতদের স্মরণে উদীচী কার্যালয়ের সামনে নির্মিত স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পমাল্য অর্পণ করার পর বোমা হামলায় নিহতদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য ১০.৪০ মিনিট থেকে ১০.৪৫ মিনিট পর্যন্ত রাস্তায় যে যেখানে ছিল সেখানেই ৫ মিনিট নীরবে দাঁড়িয়ে ‘স্তব্ধ নেত্রকোনা’ কর্মসূচি পালন করে।

 

এ সময় সড়কে চলাচলরত সকল প্রকার যানবাহন ৫ মিনিটের জন্য থমকে দাঁড়ায়।

 

এরপর বেলা ১১টায় স্থানীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ থেকে প্রতিবাদী মিছিল বের হয়ে জেলা শহর প্রদক্ষিণ করে। দুপুরে শহীদদের কবর জিয়ারত, শশ্মানের স্মৃতিফলকে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও শহীদ পরিবারবর্গের সঙ্গে সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়।

 

বিকালে স্থানীয় শহীদ মিনারে সন্ত্রাস মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী সমাবেশ এবং প্রতিবাদী গণজাগরণী সংগীত হয়।

 

সকালে স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পমাল্য উপস্থিত ছিলেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খসরু এমপি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রশান্ত কুমার রায়, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক তফসীর উদ্দিন খান, উদীচীর সাবেক সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মোজাম্মেল হক বাচ্চু, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শামছুর রহমান, জেলা উদীচীর সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান খান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মারুফ হাসান খান অভ্র, জেলা ছাত্রলীগের সম্পাদক সোবায়েল আহমদ খান প্রমুখ।

 

উল্লেখ্য, ২০০৫ সালের ৮ ডিসেম্বর নেত্রকোনায় জেএমবির বোমা হামলায় আটজন নিহত ও অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত হয়।

 

 

আরও পড়ুন

শিক্ষা  অপরাধ  স্বাস্থ্য  অর্থনীতি  রাজনীতি  আন্তর্জাতিক  খেলাধুলা  লাইফস্টাইল  সারাদেশ

 

নেত্রকোনা

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.