Sun. Dec 15th, 2019

রেকর্ড রান তাড়া করে জিতলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ

তিনশ’র উপরে রান তাড়া করে জয়ের ঘটনা ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেট ইতিহাসে বিরল। ২০১৭ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রোভিডেন্সে ৩০৯ রানের লক্ষ্যে জিতেছিল তারা। শনিবার ডাবলিনে তাদের ৩২৮ রানের টার্গেট দিয়ে তাই স্বস্তিতে ফিল্ডিং করছিল আয়ারল্যান্ড। কিন্তু সুনীল আমব্রিসের দুর্দান্ত সেঞ্চুরি ব্যর্থ করে দিলো স্বাগতিকদের।

আমব্রিসের ১৪৮ রানের ইনিংসে রেকর্ড রান তাড়া করে ত্রিদেশীয় সিরিজে জয়ে ফিরলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ৫ উইকেটে আয়ারল্যান্ডকে হারিয়েছে তারা। ৪৭.৫ ওভারে ৫ উইকেটে ৩৩১ রান করে তারা। স্বাগতিকরা আগে ব্যাট করে ৫ উইকেটে করে ৩২৭ রান।

বাংলাদেশের কাছে আগের ম্যাচ হারের পর সিরিজের দ্বিতীয় জয়ে শীর্ষে উঠেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ৩ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট তাদের। এক ম্যাচ কম খেলে ৬ পয়েন্ট বাংলাদেশের।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ১৯ রানে প্রথম উইকেট হারায় আইরিশরা। পল স্টারলিংয়ের সঙ্গে অ্যান্ডি বালবিরনির ১৪৬ রানের জুটিতে ঘুরে দাঁড়ায় তারা। ৭৭ রানের ইনিংস খেলে মাঠ ছাড়েন স্টারলিং।

আয়ারল্যান্ডের পঞ্চম সর্বোচ্চ স্কোর গড়তে এরপর বালবিরনিকে সঙ্গ দেন কেভিন ও’ব্রায়ান। স্কোরবোর্ডে ৮৪ রান যোগ করেন তারা। বালবিরনি ১২৪ বলে ১১ চার ও ৪ ছয়ে ১৩৫ রান করে আউট হন। ৪০ বলে তিনটি করে চার ও ছয়ে ৬৩ রান করেন ও’ব্রায়ান।

স্বাগতিক ব্যাটসম্যানদের থামাতে ৮ বোলারকে কাজে লাগান জেসন হোল্ডার। সবচেয়ে সফল ছিলেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, দুটি উইকেট নেন ৪৭ রান দিয়ে।

লক্ষ্যে নেমে অ্যামব্রিসের সঙ্গে ৮৪ রানের জুটি গড়ে ফিরে যান শাই হোপ (৩০)।  এরপর রোস্টন চেজের কাছ থেকে দারুণ সমর্থন পান অ্যামব্রিস। ১২৮ রানের জুটি গড়েন দুজনে। চেজ ৪৬ রানে বিদায় নেওয়ার কিছুক্ষণ পর আউট হন অ্যামব্রিস।  ১২৬ বলে ১৪৮ রানের ইনিংস খেলে জয়ের ভিত গড়ে মাঠ ছাড়েন এই ডানহাতি ওপেনার। তার ইনিংসে ছিল ১৯ চার ও ১ ছয়ে।

শেষ দিকে জোনাথন কার্টারের সঙ্গে হোল্ডারের ৭৫ রানের জুটি চমৎকার জয়ে অবদান রাখে। ২৪ বলে ৩৬ রান করেন হোল্ডার। কার্টার ২৭ বলে ৪৩ রানে অপরাজিত ছিলেন।

আয়ারল্যান্ডের পক্ষে বয়েড র‌্যানকিন সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন। ম্যাচসেরা হন অ্যামব্রিস। ক্রিকইনফো

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *