Mon. Jan 27th, 2020

কিশোরগঞ্জে প্রেমিকাকে ধর্ষণ করতে ব্যর্থ হয়ে…….!

সিডি নিউজ ডেস্ক : মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে প্রেমিকাকে ধর্ষণ করতে ব্যর্থ হয়ে গলায় ব্লেড চালিয়েছে আমিরুল ইসলাম (২৮) নামে এক যুবক। পুলিশ তাকে আজ গ্রেপ্তার করেছে। গুরুতর আহত প্রেমিকাকে (২৫) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে কিশোরগঞ্জের ভৈরব পৌর শহরের গাছতলাঘাট এলাকায়। আমিরুল গাছতলাঘাট এলাকার আব্দুল হকের ছেলে।

আহত প্রেমিকার মা জানান, জরুরি কথা আছে বলে বৃহস্পতিবার সকালে তার মেয়েকে গাছতলাঘাট এলাকার একটি নির্জন বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। পরে আমিরুল তার দুই সহযোগী সবুজ ও শরীফকে নিয়ে তার মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এসময় তার মেয়ে কৌশলে সেখান থেকে বের হয়ে আসার চেষ্টা করলে আমিরুল তাকে পেছন থেকে জাপটে ধরে ধারালো ব্লেড দিয়ে গলায় আঘাত করে। এতে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে আমিরুলসহ তার অন্য দুই সহযোগী পালিয়ে যায়। পরে তার মেয়ের চিৎকারে স্থানীয় এলাকাবাসী এগিয়ে এসে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ এসে আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতেই মেয়েটির মা বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ধর্ষণ ও হত্যা চেষ্টার অভিযোগে আমিরুলসহ অন্য দুই সহযোগীর নাম উল্লেখ করে ভৈরব থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। রাতেই অভিযান চালিয়ে আমিরুলকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয় পুলিশ।

এ বিষয়ে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডা. কেএনএম জাহাঙ্গীর জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পুলিশ মেয়েটিকে পুলিশ সদস্যরা হাসপাতাল নিয়ে আসেন। তখন তার গলায় কাটা দাগ ছিলো এবং সে কথা বলতে পারছিলো না। তাকে আমরা অজ্ঞান অবস্থায় ভর্তি করি। তখন তার গলায় ৪ ইঞ্চি লম্বা কাটা দাগ দেখতে পাই এবং সেখানে প্রায় ১০টি সেলাই করি। পরে সন্ধ্যায় তার জ্ঞান ফিরে আসে।

ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ শাহীন জানান, সন্ধ্যায় আহত মেয়েটির জ্ঞান ফিরে এলে সে জানায় তার প্রেমিক আমিরুল ও তার সহযোগী সবুজ ও শরীফ তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এতে সে বাধা দিলে আমিরুল ধারালো ব্লেড দিয়ে গলা কেটে তাকে হত্যা করতে চায়। এ অভিযোগে রাতে আহত মেয়েটির মা একটি অভিযোগ দায়ের করলে আমরা আমিরুলকে গ্রেপ্তার করি। এছাড়াও অন্যান্য অভিযুক্তদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *